ঢাকা ১১:১৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্যারোলে মুক্তি পেয়ে মায়ের সৎকারে ফরিদগঞ্জ আ.লীগ নেতা

নিজস্ব প্রতিনিধি : প্যারোলে মুক্তি পেয়ে মায়ের সৎকার করলেন চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ও দাসপাড়া যুবসংঘের সহসভাপতি কৃষ্ণ দাস। বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) সকালে বার্ধক্যজনিত কারণে কৃষ্ণ দাসের মা বিমলা সুন্দরী (৮০) মৃত্যুবরণ করেন। ওই দিন জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশের বিশেষ অনুমতি নিয়ে রাতে মায়ের শেষকৃত্য সম্পন্ন করে পুনরায় কারাগারে ফিরে যান কৃষ্ণ দাস।

Model Hospital

জানা গেছে, ফরিদগঞ্জের অনাথ দাস নামে এক জেলেকে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে গত ৪ মাস ধরে কারাগারে রয়েছেন কৃষ্ণ দাস। তার মায়ের মৃত্যুর পর পুলিশের একটি বিশেষ টিম বৃহস্পতিবার রাতে তাকে নিয়ে ফরিদগঞ্জ পৌরসভার দাসপাড়ায় এসে পৌঁছায়। পরে পৌর শ্মশানে নিয়ে গিয়ে মায়ের শেষকৃত্য সম্পন্ন করে পুনরায় তাকে কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

এ ব্যাপারে চাঁদপুর জেলা কারাগারের জেল সুপার গোলাম দোস্তগীরের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ১৯ জুলাই উপজেলার পাইকপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের খুরুমখালী গ্রামের জেলে অনাথ দাস বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর সাত দিন পর কড়ৈতলী গ্রামের একটি খালে তার মরদেহ পাওয়া যায়। ওই ঘটনায় নিহত অনাথ দাসের ছেলে সুভাষ দাস বাদী হয়ে ২৫ জুলাই মামলা দায়ের করলে ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশ ওইদিন রাতেই সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে কৃষ্ণ দাসকে গ্রেফতার করে।

ট্যাগস :

প্যারোলে মুক্তি পেয়ে মায়ের সৎকারে ফরিদগঞ্জ আ.লীগ নেতা

আপডেট সময় : ০৪:৪৮:৩৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ নভেম্বর ২০২১

নিজস্ব প্রতিনিধি : প্যারোলে মুক্তি পেয়ে মায়ের সৎকার করলেন চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ও দাসপাড়া যুবসংঘের সহসভাপতি কৃষ্ণ দাস। বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) সকালে বার্ধক্যজনিত কারণে কৃষ্ণ দাসের মা বিমলা সুন্দরী (৮০) মৃত্যুবরণ করেন। ওই দিন জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশের বিশেষ অনুমতি নিয়ে রাতে মায়ের শেষকৃত্য সম্পন্ন করে পুনরায় কারাগারে ফিরে যান কৃষ্ণ দাস।

Model Hospital

জানা গেছে, ফরিদগঞ্জের অনাথ দাস নামে এক জেলেকে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে গত ৪ মাস ধরে কারাগারে রয়েছেন কৃষ্ণ দাস। তার মায়ের মৃত্যুর পর পুলিশের একটি বিশেষ টিম বৃহস্পতিবার রাতে তাকে নিয়ে ফরিদগঞ্জ পৌরসভার দাসপাড়ায় এসে পৌঁছায়। পরে পৌর শ্মশানে নিয়ে গিয়ে মায়ের শেষকৃত্য সম্পন্ন করে পুনরায় তাকে কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

এ ব্যাপারে চাঁদপুর জেলা কারাগারের জেল সুপার গোলাম দোস্তগীরের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ১৯ জুলাই উপজেলার পাইকপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের খুরুমখালী গ্রামের জেলে অনাথ দাস বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর সাত দিন পর কড়ৈতলী গ্রামের একটি খালে তার মরদেহ পাওয়া যায়। ওই ঘটনায় নিহত অনাথ দাসের ছেলে সুভাষ দাস বাদী হয়ে ২৫ জুলাই মামলা দায়ের করলে ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশ ওইদিন রাতেই সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে কৃষ্ণ দাসকে গ্রেফতার করে।