ঢাকা ০৩:৩৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মতলব উত্তরে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে ১ লাখ মিটার জাল; জব্দ ইলিশ দুঃস্থদের মাঝে বিতরণ

মতলব উত্তর ব্যুরো : গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত ২২ দিন ইলিশ মাছ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সরকার। এ সময় সারা দেশে ইলিশ মাছ আহরণ, পরিবহন, মজুত, বাজারজাতকরণ, ক্রয়-বিক্রয় ও বিনিময় সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ এবং দণ্ডনীয় অপরাধ।

Model Hospital

এ আইন অমান্য করলে কমপক্ষে ১ থেকে ২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ৫ হাজার টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করার বিধান রাখা হয়েছে। তারপরও সরকারের এ নিষেধাজ্ঞা অবজ্ঞা করে প্রথম দিনে বিভিন্ন স্থানে জেলেরা ইলিশ মাছ ধরায় স্থানীয় প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে নানা শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়।

নিষেধাজ্ঞার চতুর্থদিনে ইলিশ রক্ষায় উপজেলা টাস্কফোর্স এর একটি টিম উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. হেদায়েত উল্লাহর নেতৃত্বে মতলব উত্তরের মেঘনা নদীতে অভিযানে নামে। অভিযানে ৩ জেলেকে এক লাখ মিটার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল ও ১২০ কেজি মা ইলিশ মাছ জব্দ করা হয়। জব্দকৃত জাল মোহনপুর মেঘনা নদীর তীরে পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে। জব্দকৃত মাছগুলো দুঃস্থদের ও এতিমখানায় বিতরণ করা হয়েছে। আটক জেলেকে ৫ হাজার টাকা করে অর্থ দণ্ড প্রদান করেন।

মোহনপুর নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মো. মুনিরুজ্জামান ও সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মো. রাশেদুজ্জামান এ অভিযানে ছিলেন।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. হেদায়েত উল্লাহ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। মো. হেদায়েত উল্লাহ মা ইলিশ রক্ষায় জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা অনুযায়ী অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে ১২০ কেজি ইলিশ মাছ জব্দ করা হয়। জব্দকৃত মাছ পরে এতিমখানায় বিতরণ করা হয়।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

রমজানের আগেই ‘দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ কমিশন’ দাবি নতুনধারার

মতলব উত্তরে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে ১ লাখ মিটার জাল; জব্দ ইলিশ দুঃস্থদের মাঝে বিতরণ

আপডেট সময় : ০১:০৮:৩৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১০ অক্টোবর ২০২২

মতলব উত্তর ব্যুরো : গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত ২২ দিন ইলিশ মাছ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সরকার। এ সময় সারা দেশে ইলিশ মাছ আহরণ, পরিবহন, মজুত, বাজারজাতকরণ, ক্রয়-বিক্রয় ও বিনিময় সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ এবং দণ্ডনীয় অপরাধ।

Model Hospital

এ আইন অমান্য করলে কমপক্ষে ১ থেকে ২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ৫ হাজার টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করার বিধান রাখা হয়েছে। তারপরও সরকারের এ নিষেধাজ্ঞা অবজ্ঞা করে প্রথম দিনে বিভিন্ন স্থানে জেলেরা ইলিশ মাছ ধরায় স্থানীয় প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে নানা শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়।

নিষেধাজ্ঞার চতুর্থদিনে ইলিশ রক্ষায় উপজেলা টাস্কফোর্স এর একটি টিম উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. হেদায়েত উল্লাহর নেতৃত্বে মতলব উত্তরের মেঘনা নদীতে অভিযানে নামে। অভিযানে ৩ জেলেকে এক লাখ মিটার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল ও ১২০ কেজি মা ইলিশ মাছ জব্দ করা হয়। জব্দকৃত জাল মোহনপুর মেঘনা নদীর তীরে পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে। জব্দকৃত মাছগুলো দুঃস্থদের ও এতিমখানায় বিতরণ করা হয়েছে। আটক জেলেকে ৫ হাজার টাকা করে অর্থ দণ্ড প্রদান করেন।

মোহনপুর নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মো. মুনিরুজ্জামান ও সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মো. রাশেদুজ্জামান এ অভিযানে ছিলেন।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. হেদায়েত উল্লাহ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। মো. হেদায়েত উল্লাহ মা ইলিশ রক্ষায় জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা অনুযায়ী অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে ১২০ কেজি ইলিশ মাছ জব্দ করা হয়। জব্দকৃত মাছ পরে এতিমখানায় বিতরণ করা হয়।