ঢাকা ১১:৩৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

হাজীগঞ্জে জামায়াতের গোপন বৈঠক থেকে ১১ নারী কর্মী গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে গোপন বৈঠক থেকে জামায়াতের ১১ নেত্রীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার রাতে হাজীগঞ্জ বাজারের কাতার-কানাডা টাওয়ারের ১১ তলায় অবসরপ্রাপ্ত কৃষি কর্মকর্তা আবদুস সালামের বাসা থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

Model Hospital

সোমবার দুপুরে তাদেরকে চাঁদপুর আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন হাজীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ জোবায়ের সৈয়দ।

তিনি জানান, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমির ডা. মো. সফিকুর রহমানকে গ্রেফতার করার প্রতিবাদে নাশকতামূলক কর্মকান্ড আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি করতে গোপন বৈঠকে বসে। পরে সেখান থেকে ১১ জনকে গ্রেফতার করা হয়। ওইসময় জামায়াতের মতাদর্শের বই, প্রচারপত্র, চাঁদা আদায়ের রসিদ বই ও দাওয়াতি কার্ডসহ বেশ কিছু সরঞ্জাম জব্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃত নেত্রীরা হলেন, কচুয়া উপজেলার নাসরিন খানম, আঞ্জুমানারা লাকি, শাহানারা বেগম, হাজীগঞ্জ উপজেলার বাড্ডা গ্রামের ফাতেমা, মকিমাবাদের হাসিনা, চিলাচৌঁ গ্রামের সালমা আহম্মদ, শাহরাস্তি উপজেলার রাগৈই গ্রামের জেসমিন আক্তার, বানিয়াচৌ গ্রামের নিহারা বেগম, বাদিয়া গ্রামের শিরিনা বেগম, মাসুদা বেগম, নিজ মেহারের শেলিনা আক্তার।

তবে আটককৃত নারীদের পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন তারা কোরআনের দারস শিখ ছিলেন। কোরআন শরীফের বিভিন্ন সূরা শিখাকালীন সময় হাজীগঞ্জ থানা পুলিশের একটি টিম তাদের পরিচয় জানতে চায়। এক পর্যায়ে পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) নজরুল ইসলাম তাদের সাথে ওসি সাহেব কথা বলবেন এমনটা জানিয়ে থানায় নিয়ে যান।

আটককৃত নারীদের মধ্যে একজন গর্ভবতী ও একজন ব্রেনস্টোকের রোগী ছিলেন।

এ বিষয়ে এসআই মো. নুরুল আলম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। মামলায় ১৫ জন নামধারীসহ অজ্ঞাতনামা ২০/২৫ জনকে আসামী করা হয়। তারা সবাই চাঁদপুর জেলার বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুর প্রেসক্লাবের নতুন কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠান হচ্ছে

হাজীগঞ্জে জামায়াতের গোপন বৈঠক থেকে ১১ নারী কর্মী গ্রেফতার

আপডেট সময় : ০২:৪৯:৪২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০২২

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে গোপন বৈঠক থেকে জামায়াতের ১১ নেত্রীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার রাতে হাজীগঞ্জ বাজারের কাতার-কানাডা টাওয়ারের ১১ তলায় অবসরপ্রাপ্ত কৃষি কর্মকর্তা আবদুস সালামের বাসা থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

Model Hospital

সোমবার দুপুরে তাদেরকে চাঁদপুর আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন হাজীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ জোবায়ের সৈয়দ।

তিনি জানান, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমির ডা. মো. সফিকুর রহমানকে গ্রেফতার করার প্রতিবাদে নাশকতামূলক কর্মকান্ড আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি করতে গোপন বৈঠকে বসে। পরে সেখান থেকে ১১ জনকে গ্রেফতার করা হয়। ওইসময় জামায়াতের মতাদর্শের বই, প্রচারপত্র, চাঁদা আদায়ের রসিদ বই ও দাওয়াতি কার্ডসহ বেশ কিছু সরঞ্জাম জব্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃত নেত্রীরা হলেন, কচুয়া উপজেলার নাসরিন খানম, আঞ্জুমানারা লাকি, শাহানারা বেগম, হাজীগঞ্জ উপজেলার বাড্ডা গ্রামের ফাতেমা, মকিমাবাদের হাসিনা, চিলাচৌঁ গ্রামের সালমা আহম্মদ, শাহরাস্তি উপজেলার রাগৈই গ্রামের জেসমিন আক্তার, বানিয়াচৌ গ্রামের নিহারা বেগম, বাদিয়া গ্রামের শিরিনা বেগম, মাসুদা বেগম, নিজ মেহারের শেলিনা আক্তার।

তবে আটককৃত নারীদের পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন তারা কোরআনের দারস শিখ ছিলেন। কোরআন শরীফের বিভিন্ন সূরা শিখাকালীন সময় হাজীগঞ্জ থানা পুলিশের একটি টিম তাদের পরিচয় জানতে চায়। এক পর্যায়ে পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) নজরুল ইসলাম তাদের সাথে ওসি সাহেব কথা বলবেন এমনটা জানিয়ে থানায় নিয়ে যান।

আটককৃত নারীদের মধ্যে একজন গর্ভবতী ও একজন ব্রেনস্টোকের রোগী ছিলেন।

এ বিষয়ে এসআই মো. নুরুল আলম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। মামলায় ১৫ জন নামধারীসহ অজ্ঞাতনামা ২০/২৫ জনকে আসামী করা হয়। তারা সবাই চাঁদপুর জেলার বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা।