ঢাকা ০৭:৩২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চাঁদপুরে মাদকদ্রব্যের রোধকল্পে সমন্বিত কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নে কর্মশালা

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও চাঁদপুর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের সহযোগিতায় মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার রোধকল্পে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য সমন্বিত কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Model Hospital

২০মার্চ (সোমবার) সকাল ১০টায় চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের হলরুমে চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সানজিদা শাহনাজ এর সভাপতিত্বে কর্মশালায় বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) এ.এস,এম মোসা।

তিনি তার বক্তব্যে বলেন, আপনারা আমরা সবাই মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। মাদক দিয়ে দ্রুত টাকা ইনকাম করতে পারে। অনেকেই অতি লোভে মাদক কারবারে জড়িরে যায়। যারা সমাজে আছে, তারা যদি মাদক ব্যবসায়ীদের বয়কট করে তাহলে, তারা সামাজিক ভাবে চলতে পারবে না। মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীদের সামাজিকভাবে বয়কট করতে হবে। মসজিদের ইমাম সাহেবরা যদি কোরআন হাদীসের আলোকে বলে মাদক হারাম, তাহলে মাদক সমাজ থেকে কিছুটা কমানো যাবে। আমি মাঝে মাঝে কাজে জেলখানায় গেলে দেখি, মাদকের আসামী অনেক।

তিনি বলেন, আমাদের উন্নত বাংলাদেশ গড়তে মাদককে সমাজ থেকে প্রতিহত করতে হবে। ডলার ধরে রাখার জন্য মাদক বন্ধ করতে হবে। বিজিবির চোখ ফাঁকি দিয়ে মাদক ডুকে যায়। বিজিবি অনেক মাদক আটক করে। কোন কিছু চাহিদা থাকলে তা বৈধ ও অবৈধ দুই প্রন্থায় আসবে। আমরা আমাদের যুব সমাজকে দেশের কাজে লাগাতে চাই। আমাদের মাদকসেবীদের চিহ্নিত করতে হবে। চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করতে পারবে।

শুরুতেই সেমিনার উদ্বোধন করেন ও উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো: নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান।

উদ্বোধনী বক্তব্যে তিনি বলেন, মাদক একটা খারাপ জিনিস। যেহেতু এটা খরাপ জিনিস, এটাকে বন্ধ করতে হবে। আমরা এটা বন্ধ করার জন্য চেষ্টা করতে হবে। আগে যারা মদ খায়, তাদের সাথে কেউ আত্মীয়তা করে না। মাদক যারা সেবন করে ও বিক্রি করে তারা আমাদের সমাজের জন্য ক্ষতিকর। মাদকাসক্ত ব্যক্তি যদি পরিবারে থাকে তাহলে সে পরিবারটা নষ্ট হয়ে যায়। দুরারোগ্য ব্যাধি সমাজ থেকে প্রতিরোধ করতে হবে। যারা মাদকের ব্যবসা বড় বড় ডিলার তাদেরকে ধরা কিছুটা কঠিন, কিন্তু তাদেরকে আগে ধরতে হবে। এই চক্রকে ধরিয়ে দিতে হলে আমাদের সহযোগিতা লাগবে। এগুলো বন্ধ করতে হলে আমাদের সচেতন হতে হবে। ইউপিতে মিটিং করে কমিটি করে, মাদকসেবীদের প্রতিরোধ করতে হবে। আমরা সমাজ থেকে এগুলো একেবারে নির্মূল করতে না পারলে সমাজ নষ্ট হয়ে যাবে। একটা মাদকাসক্ত সন্তানের বাবা-মা সহ আত্মীয়স্বজন নিরাপদ না। নেশা করলে স্মরণশক্তি কমে যায়। যারা মাদক ব্যবসায়ী ও সেবী তাদের নিরাময় কেন্দ্রে নিতে হবে। গ্রাম পর্যায়ে মাদকের খুব আনা গোনা বেশি। গ্রাম পর্যায়ে পাহাড়ার মাধ্যমে তাদের রোধ করা যায়। সামাজিক আন্দোলনের মাধ্যমেই মাদক প্রতিরোধ করতে হবে। একটা সমাজে একা ভালো থাকা যায়না। সমাজে সবাইকে নিয়ে ভালো থাকতে হবে। আজকের এ আয়োজনের গুরুত্ব অপরিসীম। আমরা চেষ্টা করলে মাদককে প্রতিহত করতে পারব। একজন মাদক কারবারি সমাজ ও দেশের বোঝা। আমরা সামাজিক আন্দোলনের মাধ্যমে সমাজ থেকে মাদক দূর করব। আমরা আমাদের অবস্থানে থেকে মাদককে প্রতিহত করব।

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক এমদাদুল ইসলাম মিঠুন।

চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সিএ মো: মামুনুর রশিদের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) এবং দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক সোহেল রুশদী।

তিনি তার বক্তব্যে বলেন, মাদক সমাজের ব্যাধি, এ ব্যাধি থেকে আমাদের সমাজকে মুক্তি পেতে হলে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে এখনই প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। আমরা সকলে মিলে মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধের মাধ্যমেই মাদক নির্মূল করতে পারবো। চাঁদপুরে মাদক নিয়ন্ত্রনে কাজ করছে ডিএনসি। যারা মাদক সেবী ও মাদক বিক্রেতা তাদের সমাজ থেকে বিতারিত করতে হবে। আপনারা সকলে মাদকের বিরুদ্ধে একত্রিত হয়েছেন। আমাদেরকেই মাদক ব্যবসায়ীদের ধরিয়ে দিতে হবে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। আমরা সবাই মাদক নিমূলের জন্য কাজ করতে হবে। আজকের সেমিনার উদ্দেশ্যে হচ্ছে মাদক সমাজ থেকে নির্মূল করা।

সেমিনারে সভাপতির বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সানজিদা শাহনাজ।
তিনি তার বক্তব্যে বলেন, আমাদের যুব সমাজের জন্য মাদক খুবই খারাপ একটি জিনিস। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে হলে মাদক নিমূল করতে হবে । আজকে সেমিনারের উদ্দেশ্য হল আমরা সামাজিক ভাবে মাদকের বিরুদ্ধে সোচ্চার হবো , প্রতিরোধ গড়ে তুলবো। মাদকের কুফল সম্পর্কে আপনারা মসজিদে বলবেন। আমরা সকলে দলমত নির্বিশেষে মাদকের বিরুদ্ধে কাজ করব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশ ডিজিটাল করেছেন, এখন স্মাট বাংলাদেশের দিকে যাচ্ছে দেশ।

সেমিনারে আরো বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর সদর মডেল থানার ওসি মুহাম্মদ আব্দুর রশিদ। তিনি বলেন, মাদকের বিষয়ে আমাদের সচেতন হতে হবে। মিয়ানমার থেকে মাদকটা আমাদের দেশে আসে আর তা ব্যবহার করে আমাদের তরুন সমাজ। যে মাদক দিয়ে আমাদের দেশের ছেলেদের জীবন নষ্ট হচ্ছে।

এসময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা মো: নুরুল ইসলাম পাঠান, চাঁদপুর সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো: কামাল হোসেন, , ৪নং শাহমাহমুদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: মাসুদুর রহমান নান্টু পাটওয়ারী, ৬নং মৈশাদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: নুরুল ইসলাম পাটওয়ারী, আশিকাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: বিল্লাল হোসেন পাটওয়ারীসহ সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ, ইউপি সদস্যবৃন্দ ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন হাফেজ মো: ছানা উল্ল্যাহ।

ট্যাগস :

চাঁদপুরে মাদকদ্রব্যের রোধকল্পে সমন্বিত কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নে কর্মশালা

আপডেট সময় : ০৩:৪২:২৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মার্চ ২০২৩

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও চাঁদপুর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের সহযোগিতায় মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার রোধকল্পে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য সমন্বিত কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Model Hospital

২০মার্চ (সোমবার) সকাল ১০টায় চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের হলরুমে চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সানজিদা শাহনাজ এর সভাপতিত্বে কর্মশালায় বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) এ.এস,এম মোসা।

তিনি তার বক্তব্যে বলেন, আপনারা আমরা সবাই মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। মাদক দিয়ে দ্রুত টাকা ইনকাম করতে পারে। অনেকেই অতি লোভে মাদক কারবারে জড়িরে যায়। যারা সমাজে আছে, তারা যদি মাদক ব্যবসায়ীদের বয়কট করে তাহলে, তারা সামাজিক ভাবে চলতে পারবে না। মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীদের সামাজিকভাবে বয়কট করতে হবে। মসজিদের ইমাম সাহেবরা যদি কোরআন হাদীসের আলোকে বলে মাদক হারাম, তাহলে মাদক সমাজ থেকে কিছুটা কমানো যাবে। আমি মাঝে মাঝে কাজে জেলখানায় গেলে দেখি, মাদকের আসামী অনেক।

তিনি বলেন, আমাদের উন্নত বাংলাদেশ গড়তে মাদককে সমাজ থেকে প্রতিহত করতে হবে। ডলার ধরে রাখার জন্য মাদক বন্ধ করতে হবে। বিজিবির চোখ ফাঁকি দিয়ে মাদক ডুকে যায়। বিজিবি অনেক মাদক আটক করে। কোন কিছু চাহিদা থাকলে তা বৈধ ও অবৈধ দুই প্রন্থায় আসবে। আমরা আমাদের যুব সমাজকে দেশের কাজে লাগাতে চাই। আমাদের মাদকসেবীদের চিহ্নিত করতে হবে। চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করতে পারবে।

শুরুতেই সেমিনার উদ্বোধন করেন ও উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো: নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান।

উদ্বোধনী বক্তব্যে তিনি বলেন, মাদক একটা খারাপ জিনিস। যেহেতু এটা খরাপ জিনিস, এটাকে বন্ধ করতে হবে। আমরা এটা বন্ধ করার জন্য চেষ্টা করতে হবে। আগে যারা মদ খায়, তাদের সাথে কেউ আত্মীয়তা করে না। মাদক যারা সেবন করে ও বিক্রি করে তারা আমাদের সমাজের জন্য ক্ষতিকর। মাদকাসক্ত ব্যক্তি যদি পরিবারে থাকে তাহলে সে পরিবারটা নষ্ট হয়ে যায়। দুরারোগ্য ব্যাধি সমাজ থেকে প্রতিরোধ করতে হবে। যারা মাদকের ব্যবসা বড় বড় ডিলার তাদেরকে ধরা কিছুটা কঠিন, কিন্তু তাদেরকে আগে ধরতে হবে। এই চক্রকে ধরিয়ে দিতে হলে আমাদের সহযোগিতা লাগবে। এগুলো বন্ধ করতে হলে আমাদের সচেতন হতে হবে। ইউপিতে মিটিং করে কমিটি করে, মাদকসেবীদের প্রতিরোধ করতে হবে। আমরা সমাজ থেকে এগুলো একেবারে নির্মূল করতে না পারলে সমাজ নষ্ট হয়ে যাবে। একটা মাদকাসক্ত সন্তানের বাবা-মা সহ আত্মীয়স্বজন নিরাপদ না। নেশা করলে স্মরণশক্তি কমে যায়। যারা মাদক ব্যবসায়ী ও সেবী তাদের নিরাময় কেন্দ্রে নিতে হবে। গ্রাম পর্যায়ে মাদকের খুব আনা গোনা বেশি। গ্রাম পর্যায়ে পাহাড়ার মাধ্যমে তাদের রোধ করা যায়। সামাজিক আন্দোলনের মাধ্যমেই মাদক প্রতিরোধ করতে হবে। একটা সমাজে একা ভালো থাকা যায়না। সমাজে সবাইকে নিয়ে ভালো থাকতে হবে। আজকের এ আয়োজনের গুরুত্ব অপরিসীম। আমরা চেষ্টা করলে মাদককে প্রতিহত করতে পারব। একজন মাদক কারবারি সমাজ ও দেশের বোঝা। আমরা সামাজিক আন্দোলনের মাধ্যমে সমাজ থেকে মাদক দূর করব। আমরা আমাদের অবস্থানে থেকে মাদককে প্রতিহত করব।

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক এমদাদুল ইসলাম মিঠুন।

চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সিএ মো: মামুনুর রশিদের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) এবং দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক সোহেল রুশদী।

তিনি তার বক্তব্যে বলেন, মাদক সমাজের ব্যাধি, এ ব্যাধি থেকে আমাদের সমাজকে মুক্তি পেতে হলে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে এখনই প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। আমরা সকলে মিলে মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধের মাধ্যমেই মাদক নির্মূল করতে পারবো। চাঁদপুরে মাদক নিয়ন্ত্রনে কাজ করছে ডিএনসি। যারা মাদক সেবী ও মাদক বিক্রেতা তাদের সমাজ থেকে বিতারিত করতে হবে। আপনারা সকলে মাদকের বিরুদ্ধে একত্রিত হয়েছেন। আমাদেরকেই মাদক ব্যবসায়ীদের ধরিয়ে দিতে হবে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। আমরা সবাই মাদক নিমূলের জন্য কাজ করতে হবে। আজকের সেমিনার উদ্দেশ্যে হচ্ছে মাদক সমাজ থেকে নির্মূল করা।

সেমিনারে সভাপতির বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সানজিদা শাহনাজ।
তিনি তার বক্তব্যে বলেন, আমাদের যুব সমাজের জন্য মাদক খুবই খারাপ একটি জিনিস। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে হলে মাদক নিমূল করতে হবে । আজকে সেমিনারের উদ্দেশ্য হল আমরা সামাজিক ভাবে মাদকের বিরুদ্ধে সোচ্চার হবো , প্রতিরোধ গড়ে তুলবো। মাদকের কুফল সম্পর্কে আপনারা মসজিদে বলবেন। আমরা সকলে দলমত নির্বিশেষে মাদকের বিরুদ্ধে কাজ করব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশ ডিজিটাল করেছেন, এখন স্মাট বাংলাদেশের দিকে যাচ্ছে দেশ।

সেমিনারে আরো বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর সদর মডেল থানার ওসি মুহাম্মদ আব্দুর রশিদ। তিনি বলেন, মাদকের বিষয়ে আমাদের সচেতন হতে হবে। মিয়ানমার থেকে মাদকটা আমাদের দেশে আসে আর তা ব্যবহার করে আমাদের তরুন সমাজ। যে মাদক দিয়ে আমাদের দেশের ছেলেদের জীবন নষ্ট হচ্ছে।

এসময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা মো: নুরুল ইসলাম পাঠান, চাঁদপুর সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো: কামাল হোসেন, , ৪নং শাহমাহমুদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: মাসুদুর রহমান নান্টু পাটওয়ারী, ৬নং মৈশাদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: নুরুল ইসলাম পাটওয়ারী, আশিকাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: বিল্লাল হোসেন পাটওয়ারীসহ সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ, ইউপি সদস্যবৃন্দ ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন হাফেজ মো: ছানা উল্ল্যাহ।