ঢাকা ০৭:৩২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিরলরোগে আক্রান্ত আনোয়ার স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যেতে চায়

বিরল রোগে আক্রান্ত চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলার চিতোষী পশ্চিম  ইউনিয়নের নোয়াপাড়া গ্রামের বাসিন্দা মৃত মজিবুল হক ও রোকেয়া বেগম দম্পতির বড় পুত্র আনোয়ার হোসেন মিন্টু। আপনার সহায়তা পেলে সে ফিরে পেতে পারে স্বাভাবিক জীবন। আপনার সহযোগিতা নিয়ে সে স্বাভাবিক জীবন ফিরে পেতে চায়।

Model Hospital

আনোয়ার হোসেন মিন্টু সমাজের আর আট-দশ জন মানুষের মত স্বাভাবিক শিশু হিসেবে জন্মগ্রহণ করেন।  কিন্তু বিধির বাম জন্মের ৫ বছরের মাথায় একদিন সে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়।

চিকিৎসকের পরামর্শে  ডায়রিয়া রোগ থেকে মুক্তি পেতে তাকে ঔষধ সেবন করে। ঐ ঔষধ সেবনের পর থেকে কি এক অজানা রোগ বাসা বাঁধে তার শরীরে । সেই থেকে আজ অবধি অজানা রোগটি বয়ে বেড়াতে হচ্ছে তাকে। এক প্রশ্নের জবাবে আনোয়ার হোসেন জানান, তার বয়স এখন ৪০, ঘর-সংসার করা হয়নি তার। নিজের অসুস্থতার কারনে কেউ তাকে বিয়ে করতে রাজী হয় না। দুই ভাই ৪ বোনের মধ্যে আনোয়ার হোসেন সবার বড়।

বাবা-মায়ের বড় সন্তান হিসেবে অসুস্থ থাকায় সে কারও জন্য কিছু করতে পারেননি। তার এক ভাই ও তিন বোনের বিয়ে হয়েছে ছোট বোনের বিয়ের বাকি রয়েছে। আনোয়ার নিজের জন্য চিন্তা করেন না। তিনি বলেন তার দিন কোন না কোন ভাবে কেটে যাবে। ছোট বোন এখনো বিয়ের বাকি রয়েছে। ছোট বোনের জন্য কষ্ট হয় তার। বাবা গত হয়েছেন কয়েক বছর আগে। মা বেঁচে আছেন কিন্তু তিনি বয়সের ভারে নূব্জ্য।

তার বিষয়ে জানতে চাইলে সে এদিক-সেদিক কি যেন খোঁজতে থাকে। এক সময় অস্পষ্টভাবে জবাব দেয় ‘টেয়া নাই, টেয়া ছাড়া কি চিকিৎসা হয়’? আনোয়ার হোসেন মিন্টু সুস্থ হতে চিকিৎসার জন্য তাই টাকার প্রয়োজন। আপনার সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিলে আনোয়ার হোসেন চিকিৎসা করাতে পারবে। তাই সমাজের বিত্তশালী হৃদয়বান দানবীর ব্যক্তিদেরকে আনোয়ার হোসেন এর চিকিৎসার জন্য সহায়তায় হাত বাড়িয়ে দিয়ে তাকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনার আহবান জানাচ্ছি।

আনোয়ার হোসেন শারীরিক প্রতিবন্ধী হিসেবে সরকারের সামাজিক সুরক্ষা বেষ্টনীর আওতায় সমাজ সেবা কার্যালয় শাহরাস্তি হতে প্রতিবন্ধী ভাতা পান। কিন্তু ভাতার টাকায় তার চিকিৎসা করা সম্ভব নয়।

তার আশু চিকিৎসায় হৃদয়বান বিত্তশালীমও দানবীদের সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেয়ার আহবান জানাচ্ছি। এমন কেউ কি আছেন অর্থ সহায়তা করতে চাইলে তার মা রোকেয়া বেগমের বিকাশ নম্বরে টাকা পাঠাতে পারেন।

বিকাশ নম্বরঃ 01741-442415.

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুরে রিমালে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান সুমন

বিরলরোগে আক্রান্ত আনোয়ার স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যেতে চায়

আপডেট সময় : ০৩:১৫:১৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৩

বিরল রোগে আক্রান্ত চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলার চিতোষী পশ্চিম  ইউনিয়নের নোয়াপাড়া গ্রামের বাসিন্দা মৃত মজিবুল হক ও রোকেয়া বেগম দম্পতির বড় পুত্র আনোয়ার হোসেন মিন্টু। আপনার সহায়তা পেলে সে ফিরে পেতে পারে স্বাভাবিক জীবন। আপনার সহযোগিতা নিয়ে সে স্বাভাবিক জীবন ফিরে পেতে চায়।

Model Hospital

আনোয়ার হোসেন মিন্টু সমাজের আর আট-দশ জন মানুষের মত স্বাভাবিক শিশু হিসেবে জন্মগ্রহণ করেন।  কিন্তু বিধির বাম জন্মের ৫ বছরের মাথায় একদিন সে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়।

চিকিৎসকের পরামর্শে  ডায়রিয়া রোগ থেকে মুক্তি পেতে তাকে ঔষধ সেবন করে। ঐ ঔষধ সেবনের পর থেকে কি এক অজানা রোগ বাসা বাঁধে তার শরীরে । সেই থেকে আজ অবধি অজানা রোগটি বয়ে বেড়াতে হচ্ছে তাকে। এক প্রশ্নের জবাবে আনোয়ার হোসেন জানান, তার বয়স এখন ৪০, ঘর-সংসার করা হয়নি তার। নিজের অসুস্থতার কারনে কেউ তাকে বিয়ে করতে রাজী হয় না। দুই ভাই ৪ বোনের মধ্যে আনোয়ার হোসেন সবার বড়।

বাবা-মায়ের বড় সন্তান হিসেবে অসুস্থ থাকায় সে কারও জন্য কিছু করতে পারেননি। তার এক ভাই ও তিন বোনের বিয়ে হয়েছে ছোট বোনের বিয়ের বাকি রয়েছে। আনোয়ার নিজের জন্য চিন্তা করেন না। তিনি বলেন তার দিন কোন না কোন ভাবে কেটে যাবে। ছোট বোন এখনো বিয়ের বাকি রয়েছে। ছোট বোনের জন্য কষ্ট হয় তার। বাবা গত হয়েছেন কয়েক বছর আগে। মা বেঁচে আছেন কিন্তু তিনি বয়সের ভারে নূব্জ্য।

তার বিষয়ে জানতে চাইলে সে এদিক-সেদিক কি যেন খোঁজতে থাকে। এক সময় অস্পষ্টভাবে জবাব দেয় ‘টেয়া নাই, টেয়া ছাড়া কি চিকিৎসা হয়’? আনোয়ার হোসেন মিন্টু সুস্থ হতে চিকিৎসার জন্য তাই টাকার প্রয়োজন। আপনার সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিলে আনোয়ার হোসেন চিকিৎসা করাতে পারবে। তাই সমাজের বিত্তশালী হৃদয়বান দানবীর ব্যক্তিদেরকে আনোয়ার হোসেন এর চিকিৎসার জন্য সহায়তায় হাত বাড়িয়ে দিয়ে তাকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনার আহবান জানাচ্ছি।

আনোয়ার হোসেন শারীরিক প্রতিবন্ধী হিসেবে সরকারের সামাজিক সুরক্ষা বেষ্টনীর আওতায় সমাজ সেবা কার্যালয় শাহরাস্তি হতে প্রতিবন্ধী ভাতা পান। কিন্তু ভাতার টাকায় তার চিকিৎসা করা সম্ভব নয়।

তার আশু চিকিৎসায় হৃদয়বান বিত্তশালীমও দানবীদের সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেয়ার আহবান জানাচ্ছি। এমন কেউ কি আছেন অর্থ সহায়তা করতে চাইলে তার মা রোকেয়া বেগমের বিকাশ নম্বরে টাকা পাঠাতে পারেন।

বিকাশ নম্বরঃ 01741-442415.