ঢাকা ১০:০৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঘূর্ণিঝড় ‘মোখা’ মোকাবেলায় মতলব উত্তরে ৫৫টি আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত

ঘূর্ণিঝড় ‘মোখা’ মোকাবেলায় মতলব উত্তর উপজেলায় প্রস্তুত রাখা হয়েছে ৫৫টি আশ্রয় কেন্দ্র। এছাড়াও মাঠে থাকবে স্বেচ্ছাসেবক। গঠন করা হয়েছে মেডিকেল টিম। উপজেলায় খোলা হচ্ছে কন্ট্রোল রুম। শুক্রবার বিকেলে মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আশরাফুল হাসান এ তথ্য জানান।

Model Hospital

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. আওরঙ্গজেব জানান, ঘুর্ণিঝড় ‘মোখা’ মোকাবেলায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তিন ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। এগুলো হচ্ছে- দুর্যোগপূর্ব, দুর্যোগকালীন ও দুর্যোগ পরবর্তী সময়ের প্রস্তুতি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আশরাফুল হাসান জানান, জেলেদের নিরাপদে ফিরে আসার জন্য বলা হচ্ছে। ইতোমধ্যে অধিকাংশ জেলে ঘাটে ফিরেছেন। এছাড়া মাঠের প্রায় ৯০ ভাগ পাকা ধান কর্তন সম্পন্ন হয়েছে। ইতিমধ্যে বাকিটা হয়ে যাবে।

তিনি আরো জানান, পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেটসহ মেডিকেল টিম দুর্যোগের জন্য প্রস্তুত রয়েছে। উপজেলার প্রাণিসম্পদ রক্ষায় মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। সকল ধরনের জরুরী পরিষেবা ২৪ ঘন্টা প্রস্তুত রয়েছে।

আমাদের বাঁধ সুরক্ষায় পানি উন্নয়নবোর্ড কাজ করছে। আমরা সকলে একসাথে মিলে আসন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় কাজ করে যাবো।

উপজেলা প্রশাসনের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা থাকবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমান সর্বনিন্ম রাখা।

একইসাথে আমরা নদী তীরবর্তী এলাকার বাঁধ সার্বক্ষণিক মনিটরিং করছি। সবাই সতর্ক অবস্থানে রয়েছি।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুরের তিন উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা কে কত ভোট পেলেন

ঘূর্ণিঝড় ‘মোখা’ মোকাবেলায় মতলব উত্তরে ৫৫টি আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত

আপডেট সময় : ১১:৪১:২৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ মে ২০২৩

ঘূর্ণিঝড় ‘মোখা’ মোকাবেলায় মতলব উত্তর উপজেলায় প্রস্তুত রাখা হয়েছে ৫৫টি আশ্রয় কেন্দ্র। এছাড়াও মাঠে থাকবে স্বেচ্ছাসেবক। গঠন করা হয়েছে মেডিকেল টিম। উপজেলায় খোলা হচ্ছে কন্ট্রোল রুম। শুক্রবার বিকেলে মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আশরাফুল হাসান এ তথ্য জানান।

Model Hospital

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. আওরঙ্গজেব জানান, ঘুর্ণিঝড় ‘মোখা’ মোকাবেলায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তিন ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। এগুলো হচ্ছে- দুর্যোগপূর্ব, দুর্যোগকালীন ও দুর্যোগ পরবর্তী সময়ের প্রস্তুতি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আশরাফুল হাসান জানান, জেলেদের নিরাপদে ফিরে আসার জন্য বলা হচ্ছে। ইতোমধ্যে অধিকাংশ জেলে ঘাটে ফিরেছেন। এছাড়া মাঠের প্রায় ৯০ ভাগ পাকা ধান কর্তন সম্পন্ন হয়েছে। ইতিমধ্যে বাকিটা হয়ে যাবে।

তিনি আরো জানান, পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেটসহ মেডিকেল টিম দুর্যোগের জন্য প্রস্তুত রয়েছে। উপজেলার প্রাণিসম্পদ রক্ষায় মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। সকল ধরনের জরুরী পরিষেবা ২৪ ঘন্টা প্রস্তুত রয়েছে।

আমাদের বাঁধ সুরক্ষায় পানি উন্নয়নবোর্ড কাজ করছে। আমরা সকলে একসাথে মিলে আসন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় কাজ করে যাবো।

উপজেলা প্রশাসনের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা থাকবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমান সর্বনিন্ম রাখা।

একইসাথে আমরা নদী তীরবর্তী এলাকার বাঁধ সার্বক্ষণিক মনিটরিং করছি। সবাই সতর্ক অবস্থানে রয়েছি।