ঢাকা ০৯:১৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহন

ভয়াবহ ভাঙনে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক সড়ক

  • মাসুদ হোসেন
  • আপডেট সময় : ১০:১৯:১৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ১২ অগাস্ট ২০২৩
  • 344
ভারী বৃষ্টিপাতের আঘাতে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক সড়কে ভয়াবহ ভাঙন ধরেছে। ছোট-বড় অসংখ্য স্পটে এই ভাঙন তীব্র আকার ধারণ করেছে। ভেঙে যাওয়া অংশ এখনই মেরামত করা না হলে ব্যাপক ভাঙনে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক সড়ক দিয়ে যোগাযোগ করা অসম্ভব হয়ে যাবে।
শনিবার (১২ আগস্ট) চাঁদপুর-কুমিল্লা সড়কের সদর উপজেলার ঠাকুরবাড়ির পূর্ব দিকে গিয়ে দেখা যায়, গত কয়েকদিনের প্রবল ভারি বৃষ্টিতে সড়কের দক্ষিণ পাশের পুকুরে গাছ পড়ে গিয়ে সড়কটি ভেঙে তলিয়ে গেছে।
এছাড়া এ সড়কের দুই পাশের বিভিন্ন স্থানে ছোট-বড় অনেকগুলো ভাঙ্গনের ফলে মারাত্মক ঝুঁকি নিয়ে যান চলাচলে সমস্যা দেখা দিচ্ছে। বিশেষ করে ব্যস্ততম এই সড়কে রাতের বেলায় যানবাহন চালক কিংবা পথচারীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হয়।
স্থানীয়রা জানান, গত কয়েকদিনের ভারি বৃষ্টিতে সড়কের এমন ভয়াবহ ভাঙন দেখা দিয়েছে। আমরা এ স্থানটিতে লাল কাপড় দিয়ে নিশানা টানিয়ে দিয়েছি। তবে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের এসব ভাঙন কবলিত স্থানে চাঁদপুর সড়ক বিভাগ দ্রুত মেরামত না করলে যেকোন যানবাহন হঠাৎ দুর্ঘটনার শিকার হতে হবে। এ বিষয়ে কথা বলতে শনিবার দুপুরে চাঁদপুর সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ সামসুজ্জোহা এর মোবাইলে কল দিয়েও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।
এদিকে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের চাঁদপুর সদর উপজেলার ঠাকুরবাড়ির পূর্ব দিকে ভেঙে যাওয়া সড়কের পাশে একটি মেহগনি ও আকাশী গাছ পড়ে গেলে মহামায়া এলাকার ছিদ্দিক হোসেন ছ’মিল ব্যবসায়ী কেটে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ তোলেন স্থানীয়রা। এ বিষয়ে ছিদ্দিক হোসেন বলেন, গাছগুলো বন বিভাগের কর্মকর্তারাই কেটে মহামায়া পূর্ব বাজার আমার ছ’মিলের পাশে এনে রাখে আমার জিম্মায়।
চাঁদপুর বন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ তাজুল ইসলাম দৈনিক চাঁদপুর খবরকে বলেন, হেলে পড়া গাছগুলো আমরাই কেটে সামাজিক বনায়ন প্রকল্পের সভাপতির কাছে রাখা হয়েছে। প্রতি দুই মাস অন্তর অন্তর এসব গাছগুলো টেন্ডারের মাধ্যমে বিক্রি করা হয়। এগুলোও তাই করা হবে।
ট্যাগস :

ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহন

ভয়াবহ ভাঙনে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক সড়ক

আপডেট সময় : ১০:১৯:১৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ১২ অগাস্ট ২০২৩
ভারী বৃষ্টিপাতের আঘাতে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক সড়কে ভয়াবহ ভাঙন ধরেছে। ছোট-বড় অসংখ্য স্পটে এই ভাঙন তীব্র আকার ধারণ করেছে। ভেঙে যাওয়া অংশ এখনই মেরামত করা না হলে ব্যাপক ভাঙনে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক সড়ক দিয়ে যোগাযোগ করা অসম্ভব হয়ে যাবে।
শনিবার (১২ আগস্ট) চাঁদপুর-কুমিল্লা সড়কের সদর উপজেলার ঠাকুরবাড়ির পূর্ব দিকে গিয়ে দেখা যায়, গত কয়েকদিনের প্রবল ভারি বৃষ্টিতে সড়কের দক্ষিণ পাশের পুকুরে গাছ পড়ে গিয়ে সড়কটি ভেঙে তলিয়ে গেছে।
এছাড়া এ সড়কের দুই পাশের বিভিন্ন স্থানে ছোট-বড় অনেকগুলো ভাঙ্গনের ফলে মারাত্মক ঝুঁকি নিয়ে যান চলাচলে সমস্যা দেখা দিচ্ছে। বিশেষ করে ব্যস্ততম এই সড়কে রাতের বেলায় যানবাহন চালক কিংবা পথচারীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হয়।
স্থানীয়রা জানান, গত কয়েকদিনের ভারি বৃষ্টিতে সড়কের এমন ভয়াবহ ভাঙন দেখা দিয়েছে। আমরা এ স্থানটিতে লাল কাপড় দিয়ে নিশানা টানিয়ে দিয়েছি। তবে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের এসব ভাঙন কবলিত স্থানে চাঁদপুর সড়ক বিভাগ দ্রুত মেরামত না করলে যেকোন যানবাহন হঠাৎ দুর্ঘটনার শিকার হতে হবে। এ বিষয়ে কথা বলতে শনিবার দুপুরে চাঁদপুর সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ সামসুজ্জোহা এর মোবাইলে কল দিয়েও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।
এদিকে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের চাঁদপুর সদর উপজেলার ঠাকুরবাড়ির পূর্ব দিকে ভেঙে যাওয়া সড়কের পাশে একটি মেহগনি ও আকাশী গাছ পড়ে গেলে মহামায়া এলাকার ছিদ্দিক হোসেন ছ’মিল ব্যবসায়ী কেটে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ তোলেন স্থানীয়রা। এ বিষয়ে ছিদ্দিক হোসেন বলেন, গাছগুলো বন বিভাগের কর্মকর্তারাই কেটে মহামায়া পূর্ব বাজার আমার ছ’মিলের পাশে এনে রাখে আমার জিম্মায়।
চাঁদপুর বন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ তাজুল ইসলাম দৈনিক চাঁদপুর খবরকে বলেন, হেলে পড়া গাছগুলো আমরাই কেটে সামাজিক বনায়ন প্রকল্পের সভাপতির কাছে রাখা হয়েছে। প্রতি দুই মাস অন্তর অন্তর এসব গাছগুলো টেন্ডারের মাধ্যমে বিক্রি করা হয়। এগুলোও তাই করা হবে।