ঢাকা ০৯:৩৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কচুয়ায় গলায় গামছা পেছানো কিশোরের লাশ উদ্ধার

কচুয়া উপজেলার গোহট দক্ষিন ইউনিয়নের গোহট গ্রামের জুগি বাড়ির নির্জনস্থান থেকে গলায় গামছা পেছানো সাজিদ (১৪) নামে এক কিশোরের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে এ লাশ উদ্ধার করা হয়।

Model Hospital

সরজমিনে গেলে জানা যায়, সাজিদ ঢাকায় বসবাস করে। সে গত ৫ আগস্ট নানার বাড়ি কচুয়ার গোহট গ্রামের আমিনুল হক মেম্বার বাড়িতে বেড়াতে আসে। তার নানার নাম মৃত আজম হোসেন। নানার বাড়িতে বেড়াতে আসলে মামা সুজন ভাগিনাকে রং এর কাজ শিখানোর জন্য স্থানীয় এক রং মিস্ত্রির সাথে দেয়।

মামা সুজন জানায়, ভাগিনা সাজিদ গত রবিবার আমার কাছে একটি আইফোন সহ তাকে বিয়ে করানোর দাবী করে। আমি আইফোন কিনে দিতে অপরাগতা প্রকাশ করায় ওই দিন বিকাল থেকে সে নিখোঁজ হয়ে পড়ে। অনেক খোজাখুজি করেও কোথাও তাকে না পাওয়া গেলে মঙ্গলবার দুপুরে খবর পাই নির্জনস্থানে একটি লাশ পড়ে রয়েছে। ছুটে এসে দেখি ভাগিনা সাজিদের লাশ।

কচুয়া থানাকে অবগত করলে কচুয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: ইব্রাহীম খলিল ও ওসি তদন্ত মো: হারুনুর রশিদ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

প্রাথমিক তদন্তে জানাযায়, নির্জন জঙ্গলে সাজিদ প্রায় ২০/২৫ ফুট উচ্চতার একটি গাছের সাথে গলায় গামছা পেচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে এবং তার মৃত্যুর পর গামছার একটি অংশ ছিড়ে লাশ নিচে পড়ে।

কচুয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ইব্রাহীম খলিল বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আমরা খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য চাঁদপুর সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করি।

ট্যাগস :

কচুয়ায় গলায় গামছা পেছানো কিশোরের লাশ উদ্ধার

আপডেট সময় : ১০:২৪:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৫ অগাস্ট ২০২৩

কচুয়া উপজেলার গোহট দক্ষিন ইউনিয়নের গোহট গ্রামের জুগি বাড়ির নির্জনস্থান থেকে গলায় গামছা পেছানো সাজিদ (১৪) নামে এক কিশোরের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে এ লাশ উদ্ধার করা হয়।

Model Hospital

সরজমিনে গেলে জানা যায়, সাজিদ ঢাকায় বসবাস করে। সে গত ৫ আগস্ট নানার বাড়ি কচুয়ার গোহট গ্রামের আমিনুল হক মেম্বার বাড়িতে বেড়াতে আসে। তার নানার নাম মৃত আজম হোসেন। নানার বাড়িতে বেড়াতে আসলে মামা সুজন ভাগিনাকে রং এর কাজ শিখানোর জন্য স্থানীয় এক রং মিস্ত্রির সাথে দেয়।

মামা সুজন জানায়, ভাগিনা সাজিদ গত রবিবার আমার কাছে একটি আইফোন সহ তাকে বিয়ে করানোর দাবী করে। আমি আইফোন কিনে দিতে অপরাগতা প্রকাশ করায় ওই দিন বিকাল থেকে সে নিখোঁজ হয়ে পড়ে। অনেক খোজাখুজি করেও কোথাও তাকে না পাওয়া গেলে মঙ্গলবার দুপুরে খবর পাই নির্জনস্থানে একটি লাশ পড়ে রয়েছে। ছুটে এসে দেখি ভাগিনা সাজিদের লাশ।

কচুয়া থানাকে অবগত করলে কচুয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: ইব্রাহীম খলিল ও ওসি তদন্ত মো: হারুনুর রশিদ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

প্রাথমিক তদন্তে জানাযায়, নির্জন জঙ্গলে সাজিদ প্রায় ২০/২৫ ফুট উচ্চতার একটি গাছের সাথে গলায় গামছা পেচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে এবং তার মৃত্যুর পর গামছার একটি অংশ ছিড়ে লাশ নিচে পড়ে।

কচুয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ইব্রাহীম খলিল বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আমরা খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য চাঁদপুর সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করি।