ঢাকা ০৬:৪২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মতলব উত্তরে বিকাশ ব্যবসায়ীর মাথা কুপিয়ে দিল দুবৃর্ত্তরা, ৭ লাখ টাকা লুট

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার সুলতনাবাদ ইউনিয়নের হাতিঘাটা গ্রামে এক বিকাশ ব্যবসায়ীর  উপর হামলা করে তার মাথা ফাটিয়ে দিয়ে ৭ লাখ টাকা লুটে নিয়েছে দুবৃর্ত্তরা। গত ২ ফেব্রুয়ারী রাত ৭.৩০ ঘটিকার সময় এ ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনায় সুজাতপুর বাজারের ব্যবসায়ী মোঃ হুমায়ুন কবির বাদী হয়ে মতলব উত্তর থানায় মামলা দায়ের করেন।
এ ঘটনায় আসামী করা হয়েছে, একই উপজেলার মোঃ আল আমিন (৩২), পিতা আউয়াল মোল্লা, গ্রাম ছোট দূর্গাপুর, মোঃ ইয়াছিন (২২), পিতা মোঃ মহরম প্রকাশ মরম আলী, গ্রাম লামছরি, পোঃ সুজাতপুর বাজার, মোঃ শাহপরান (২৭), পিতা মোঃ রুহুল আমিন, সাং-লামচরি।
মামলার এজাহার সুত্রে জানা গেছে, আহত বিকাল ব্যবসায়ী উপজেলার সুজাতপুর বাজারে ‘নূরজাহান ষ্টোর” নামে দীর্ঘ ২২ বৎসর যাবত দোকান দিয়ে বিকাশের ও মোবাইল ব্যাংকিং এর ব্যবসা করে আসছেন।
তিনি প্রতিদিনের ন্যায় ঘটনার তারিখ রাত অনুমান ৭ ঘটিকার সময় দোকান বন্ধ করে বাড়ীর উদ্দেশ্যে সুজাতপুর বাজার থেকে অটোগাড়ী যোগে রওয়ান হন। হাতিঘাটা পাকা রাস্তায় নেমে তার বাড়ীতে যাওয়ার জন্য কাঁচা রাস্তার উপর দিয়ে পায়ে হেটে রওনা হন। ওখানে একটি কালভার্টের উপরে তাকে একা পেয়ে পিছন থেকে বিবাদীরা হাতে লাঠি, সোটা, লোহার রড, ধারালো লোহার ছেনা ইত্যাদি দেশিয় অস্ত্র সস্ত্রে নিয়ে ঘটনাস্থলে পূর্ব হইতে ওৎ পেতে থাকে।
হুমায়ুন কবির ঘটনাস্থলে পৌছা মাত্রই সকল বিবাদীরা তার চারপাশ ঘেড়াও করে। বিবাদীদের হাতে থাকা দেশিয় অস্ত্র সন্ত্রদ্বারা তাকে এলোপাথারী ভাবে মারধর করে। আসামীরা তার সাথে থাকা ব্যবসায়ীক নগদ ৭ লাখ টাকার ১টি ব্যাগ নিয়ে যায়। এবং তাকে লোহার ধারালো ছেনাদ্বারা বাদীকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথায় কোপ মারে তার মাথার তালুতে গুরুতর কাটা রক্তাক্ত জখম করে।
তিনি মাটিতে পড়ে গেলে, আসামীরা লাঠি সোটা, রড ইত্যাদি দ্বারা মারধর করিয়া তার নাকে, মুখে, পিঠে, কোমড়ে সহ শরীরের বিভিন্নস্থানে নীলাফুলা জখম করে। আসামীরা মারধর করে তার তাকে প্রাণ নাসের হুমকি দিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করতে থাকলে তার ডাক চিৎকার শুনে আশ পাশ হইতে লোকজন দ্রুত এসে বিবাদীদেরকে ধাওয়া করেন এবং আল-আমিন নামে একজনকে ধৃত করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়।
স্থানীয় লোকজনদের সহায়তায় মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন গুরুতর হুমায়ুন কবির। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।
মতলব উত্তর থানার ওসি মোহাম্মদ শহীদ হোসেন বলেন, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে, একজনকে আটক করা হয়েছে। বাকীদেরও গ্রেফতারপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

রমজানের আগেই ‘দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ কমিশন’ দাবি নতুনধারার

মতলব উত্তরে বিকাশ ব্যবসায়ীর মাথা কুপিয়ে দিল দুবৃর্ত্তরা, ৭ লাখ টাকা লুট

আপডেট সময় : ০৮:০৬:১০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার সুলতনাবাদ ইউনিয়নের হাতিঘাটা গ্রামে এক বিকাশ ব্যবসায়ীর  উপর হামলা করে তার মাথা ফাটিয়ে দিয়ে ৭ লাখ টাকা লুটে নিয়েছে দুবৃর্ত্তরা। গত ২ ফেব্রুয়ারী রাত ৭.৩০ ঘটিকার সময় এ ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনায় সুজাতপুর বাজারের ব্যবসায়ী মোঃ হুমায়ুন কবির বাদী হয়ে মতলব উত্তর থানায় মামলা দায়ের করেন।
এ ঘটনায় আসামী করা হয়েছে, একই উপজেলার মোঃ আল আমিন (৩২), পিতা আউয়াল মোল্লা, গ্রাম ছোট দূর্গাপুর, মোঃ ইয়াছিন (২২), পিতা মোঃ মহরম প্রকাশ মরম আলী, গ্রাম লামছরি, পোঃ সুজাতপুর বাজার, মোঃ শাহপরান (২৭), পিতা মোঃ রুহুল আমিন, সাং-লামচরি।
মামলার এজাহার সুত্রে জানা গেছে, আহত বিকাল ব্যবসায়ী উপজেলার সুজাতপুর বাজারে ‘নূরজাহান ষ্টোর” নামে দীর্ঘ ২২ বৎসর যাবত দোকান দিয়ে বিকাশের ও মোবাইল ব্যাংকিং এর ব্যবসা করে আসছেন।
তিনি প্রতিদিনের ন্যায় ঘটনার তারিখ রাত অনুমান ৭ ঘটিকার সময় দোকান বন্ধ করে বাড়ীর উদ্দেশ্যে সুজাতপুর বাজার থেকে অটোগাড়ী যোগে রওয়ান হন। হাতিঘাটা পাকা রাস্তায় নেমে তার বাড়ীতে যাওয়ার জন্য কাঁচা রাস্তার উপর দিয়ে পায়ে হেটে রওনা হন। ওখানে একটি কালভার্টের উপরে তাকে একা পেয়ে পিছন থেকে বিবাদীরা হাতে লাঠি, সোটা, লোহার রড, ধারালো লোহার ছেনা ইত্যাদি দেশিয় অস্ত্র সস্ত্রে নিয়ে ঘটনাস্থলে পূর্ব হইতে ওৎ পেতে থাকে।
হুমায়ুন কবির ঘটনাস্থলে পৌছা মাত্রই সকল বিবাদীরা তার চারপাশ ঘেড়াও করে। বিবাদীদের হাতে থাকা দেশিয় অস্ত্র সন্ত্রদ্বারা তাকে এলোপাথারী ভাবে মারধর করে। আসামীরা তার সাথে থাকা ব্যবসায়ীক নগদ ৭ লাখ টাকার ১টি ব্যাগ নিয়ে যায়। এবং তাকে লোহার ধারালো ছেনাদ্বারা বাদীকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথায় কোপ মারে তার মাথার তালুতে গুরুতর কাটা রক্তাক্ত জখম করে।
তিনি মাটিতে পড়ে গেলে, আসামীরা লাঠি সোটা, রড ইত্যাদি দ্বারা মারধর করিয়া তার নাকে, মুখে, পিঠে, কোমড়ে সহ শরীরের বিভিন্নস্থানে নীলাফুলা জখম করে। আসামীরা মারধর করে তার তাকে প্রাণ নাসের হুমকি দিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করতে থাকলে তার ডাক চিৎকার শুনে আশ পাশ হইতে লোকজন দ্রুত এসে বিবাদীদেরকে ধাওয়া করেন এবং আল-আমিন নামে একজনকে ধৃত করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়।
স্থানীয় লোকজনদের সহায়তায় মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন গুরুতর হুমায়ুন কবির। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।
মতলব উত্তর থানার ওসি মোহাম্মদ শহীদ হোসেন বলেন, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে, একজনকে আটক করা হয়েছে। বাকীদেরও গ্রেফতারপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।