ঢাকা ১০:২২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রেমিক-প্রেমিকা মিলে ব্যাংকের টাকা চুরি করতে নৈশপ্রহরীকে খুন

মতলব উত্তরে গজরা বাজারের কৃষি ব্যাংকে টাকা চুরি করতে গিয়ে নৈশপ্রহরী শাহাদাতকে খুন করেন প্রেমিক-প্রেমিকা। এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

Model Hospital

শনিবার (৬ এপ্রিল) দুপুরে পিবিআই পুলিশ সুপার মো. মোস্তফা কামাল রাশেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, প্রেমিককে এখনও ধরা যায়নি, চেষ্টা চলছে। তবে প্রেমিকা মিলি আক্তার ও তাদের আরেক সহযোগী মো. সজিব হোসেনকে আটক করা হয়েছে। তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হবে।

তিনি আরও জানান, আটক সজিবের দেওয়া তথ্যানুযায়ী শনিবার সকালে গজরা বাজার কৃষি ব্যাংকের ভল্ট কাটার জন্য ব্যবহৃত গ্যাস সিলিন্ডার ও বিভিন্ন সরঞ্জাম পুকুর থেকে উদ্ধার করা হয়।

২৫ ফেব্রুয়ারি সকাল সাড়ে ৯টায় মতলব উত্তর থানাধীন গজরা বাজারে অবস্থিত বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক এর ছাদের ইন্টারনেট টাওয়ার এর সাথে রশি দ্বারা বাঁধা অবস্থায় উক্ত ব্যাংকের নৈশ প্রহরী মোঃ শাহদাত (১৯) এর লাশ পাওয়া যায়। সংবাদ পেয়ে পিবিআই ক্রাইমসিন টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে আলামত জব্দ সহ আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় ঘটনায় জড়িত আসামীদের সনাক্ত করনের যাবতীয় কার্যক্রম গ্রহন করে।

মামলাটি পিবিআই সিডিউলভুক্ত হওয়ায় মামলাটি অধিগ্রহণ করতঃ এসআই (নিঃ) মোঃ ইব্রহীম খলিল তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়।

পিবিআই’র এ্যাডিশনাল আইজিপি বনজ কুমার মজুমদার বিপিএম (বার), পিপিএম এর সঠিক তত্ত্বাবধান ও দিক নির্দেশে ৫ এপ্রিল পিবিআই পুলিশ সুপার মো. মোস্তফা কামাল রাশেদ এর নেতৃত্বে ও সার্বিক সহযোগিতায় মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই (নিঃ) ইব্রাহীম খলিল ও এসআই মো. রিয়াদ মইনুদ্দিন, পুলিশ পরিদর্শক আতিকুর রহমানের নেতৃত্বে একটি বিশেষ টিম নিয়ে অভিযান পরিচালনা করে মামলার ঘটনায় জড়িত অন্যতম আসামী মো. সজিব হোসেন ও মিলি আক্তারকে গ্রেপ্তার করেন।

আসামীরা ব্যংকের টাকা লুট করার উদ্দেশ্যে ভিকটিমকে আসামী মিলি আক্তার প্রেমের ফাঁদে ফেলে রাতের বেলায় ফোন দিয়ে ব্যাংকের ভিতর হতে বাহির করে আনে।

আসামী মো. সজিব হোসেন ও অপর এক আসামী ভিকটিমকে হাতপা বেঁধে ছাদে নিয়ে টাওয়ারের সাথে বেঁধে গলায় বেল্ট ও গামছা পেচিয়ে হত্যা করে গ্যাস ও অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে ব্যাংকের ভল্ট ভাঙ্গার চেষ্টা করে এবং ব্যাংকের মুল্যবান জিনিসপত্র চুরি করে নিয়ে যায়। আসামী সজিবের দেখানো মোতাবেক গ্যাস সিলিন্ডার ও তালা ভাঙ্গার সরঞ্জামাদি ব্যাংকের পিছনের পুকুর হতে উদ্ধার করে জব্দ করা হয়।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি কৃষি ব্যাংকের ছাদ থেকে শাহাদাত হোসেনের হাত-পা বাঁধা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ বিষয়ে ঘটনার পর মতলব উত্তর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে পরিবার।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুরে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে অটো চালকের মৃত্যু

প্রেমিক-প্রেমিকা মিলে ব্যাংকের টাকা চুরি করতে নৈশপ্রহরীকে খুন

আপডেট সময় : ০৮:৫৯:৪৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ এপ্রিল ২০২৪

মতলব উত্তরে গজরা বাজারের কৃষি ব্যাংকে টাকা চুরি করতে গিয়ে নৈশপ্রহরী শাহাদাতকে খুন করেন প্রেমিক-প্রেমিকা। এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

Model Hospital

শনিবার (৬ এপ্রিল) দুপুরে পিবিআই পুলিশ সুপার মো. মোস্তফা কামাল রাশেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, প্রেমিককে এখনও ধরা যায়নি, চেষ্টা চলছে। তবে প্রেমিকা মিলি আক্তার ও তাদের আরেক সহযোগী মো. সজিব হোসেনকে আটক করা হয়েছে। তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হবে।

তিনি আরও জানান, আটক সজিবের দেওয়া তথ্যানুযায়ী শনিবার সকালে গজরা বাজার কৃষি ব্যাংকের ভল্ট কাটার জন্য ব্যবহৃত গ্যাস সিলিন্ডার ও বিভিন্ন সরঞ্জাম পুকুর থেকে উদ্ধার করা হয়।

২৫ ফেব্রুয়ারি সকাল সাড়ে ৯টায় মতলব উত্তর থানাধীন গজরা বাজারে অবস্থিত বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক এর ছাদের ইন্টারনেট টাওয়ার এর সাথে রশি দ্বারা বাঁধা অবস্থায় উক্ত ব্যাংকের নৈশ প্রহরী মোঃ শাহদাত (১৯) এর লাশ পাওয়া যায়। সংবাদ পেয়ে পিবিআই ক্রাইমসিন টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে আলামত জব্দ সহ আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় ঘটনায় জড়িত আসামীদের সনাক্ত করনের যাবতীয় কার্যক্রম গ্রহন করে।

মামলাটি পিবিআই সিডিউলভুক্ত হওয়ায় মামলাটি অধিগ্রহণ করতঃ এসআই (নিঃ) মোঃ ইব্রহীম খলিল তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়।

পিবিআই’র এ্যাডিশনাল আইজিপি বনজ কুমার মজুমদার বিপিএম (বার), পিপিএম এর সঠিক তত্ত্বাবধান ও দিক নির্দেশে ৫ এপ্রিল পিবিআই পুলিশ সুপার মো. মোস্তফা কামাল রাশেদ এর নেতৃত্বে ও সার্বিক সহযোগিতায় মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই (নিঃ) ইব্রাহীম খলিল ও এসআই মো. রিয়াদ মইনুদ্দিন, পুলিশ পরিদর্শক আতিকুর রহমানের নেতৃত্বে একটি বিশেষ টিম নিয়ে অভিযান পরিচালনা করে মামলার ঘটনায় জড়িত অন্যতম আসামী মো. সজিব হোসেন ও মিলি আক্তারকে গ্রেপ্তার করেন।

আসামীরা ব্যংকের টাকা লুট করার উদ্দেশ্যে ভিকটিমকে আসামী মিলি আক্তার প্রেমের ফাঁদে ফেলে রাতের বেলায় ফোন দিয়ে ব্যাংকের ভিতর হতে বাহির করে আনে।

আসামী মো. সজিব হোসেন ও অপর এক আসামী ভিকটিমকে হাতপা বেঁধে ছাদে নিয়ে টাওয়ারের সাথে বেঁধে গলায় বেল্ট ও গামছা পেচিয়ে হত্যা করে গ্যাস ও অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে ব্যাংকের ভল্ট ভাঙ্গার চেষ্টা করে এবং ব্যাংকের মুল্যবান জিনিসপত্র চুরি করে নিয়ে যায়। আসামী সজিবের দেখানো মোতাবেক গ্যাস সিলিন্ডার ও তালা ভাঙ্গার সরঞ্জামাদি ব্যাংকের পিছনের পুকুর হতে উদ্ধার করে জব্দ করা হয়।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি কৃষি ব্যাংকের ছাদ থেকে শাহাদাত হোসেনের হাত-পা বাঁধা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ বিষয়ে ঘটনার পর মতলব উত্তর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে পরিবার।