ঢাকা ০৮:৩৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চাঁদপুরে তেল মনিটরিং ও ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সভা অনুষ্ঠিত

চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের আয়োজনে তেল মনিটরিং ও ভোক্তার অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Model Hospital

গতকাল ১৬ মে বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় জেলা প্রশাসক সম্মেলন করতে অতিরিক্ত  জেলা প্রশাসক (সার্বিক) বশির আহমেদের সভাপতিত্বে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় বক্তারা বলেন, তেলের ডিপুর আশেপাশে যারা তেল বিক্রি করছে তার কতটুকু আইন সংগত। অনেক তেল বিক্রেতা এক জায়গার লাইসেন্স করে অন্য জায়গায় তেল বিক্রি করছে। আপনারা আইনের সহায়তা নেননি কেন? পদ্মা মেঘনা যমুনা তেলর ডিপু কখনো জেলা প্রশাসানকে এ বিষয় গুলো অবগত করেন নি?  তাহলে আমাদেরকেই আইনগত ব্যবস্থা নিতেহবে।

ডিপু কর্তৃপক্ষ বলে এক জেলার তেল অন্য জেলায় বিক্রি করা যাবে না। চাঁদপুর ডিপু  থেকে তেল নিয়ে যাওয়ার সময় পথিমধ্যে বিক্রি করে দেয়। চাঁদপুর থেকে ফরিদগঞ্জ পর্যন্ত ১১৫ টি অবৈধ তেল বিক্রির দোকান রয়েছে। একটি প্রতিষ্ঠানের রহমান ট্রেডাসের শুধু লাইসেন্স রয়েছে। ২১ মে ও ২২ মে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন থাকায় দু দিন সরকারি ছুটি থাকবে সে জন্য তেলের মজুত রাখতে হবে।

ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর নিয়মিত চাঁদপুরে কাজ করছে। হোটেল, রেস্তুরা,ডায়াগনস্টিক সেন্ট্রার, ওষুধ বিপরী ও নিত্যপণ্যের দোকানে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। সামনে ঈদুল আযহা, তাই মসল্লার বাজার গুলোতে তদারকি ও  অভিযান করা প্রয়োজন।

পুরান বাজারে অহরহ ভারতিয় চিনি আসছে। খোলা অবস্থায় এনে বিভিন্ন কোম্পানি ব্যান্ডের প্যাকেজাত করে বিক্রি করছে। আসলে তারা ব্যবসায়ি না। মসল্লা, পেয়াজ, আদা, রসূন এগুলোর দাম এখন বারবে। বাচ্চাদের বিদ্যালয়ের সামনে বিভিন্ন ব্যান্ডের আইসক্রিম বিক্রি করা হচ্ছে এগুলো খেয়ে কোমলমতি শিশুরা অসুস্থ হয়ে পড়ছে। প্রচন্ড গরমে মানুষের পানির পিপাসা  বেড়েছে। চাঁদপুরে পানির জার বিক্রি করা হচ্ছে, তা কতটুকু মানসম্মান তা যাচাই করা হবে।

সমস্যা যদি না থাকে তাহলে ব্যবসায়ীরা ব্যবসা করতে পারবে না এবং আমরা প্রসঙ্গে কর্মকর্তা কাজ করতে পারবো না। তবে সবকিছু সহনশীল ও নিয়ন্ত্রণ রাখতে হবে।

এ সময় বক্তব্য রাখেন ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর চাঁদপুরের এডি নূর হোসেন,  চেম্বার অব  কমার্সের পরিচালক গোপাল সাহা, জেলা ক্যাব সদস্য বিপ্লব সরকার, হোটেল রেস্তোরা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাসুদ আখন্দ, কৃষি বিপণন কর্মকর্তা মাসুদ রানা,  জেলা সেনেটারী ইন্সপেক্টর নজরুল ইসলাম, জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা, পুলিশ পরিদর্শক আক্তার ডিএসবি চাঁদপুর,যমুনা অয়েল কোম্পানির পক্ষে শিশির চন্দ্র, মেঘনা পেট্রোলিয়াম লিমিটেড এর পক্ষে লিটন কর্মকার, পদ্মা অয়েল কোম্পানির পক্ষে সিরাজুল ইসলাম সহ আরো অনেকে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুরে মাদরাসাতু মুহাম্মদ সাঃ উদ্বোধন

চাঁদপুরে তেল মনিটরিং ও ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সভা অনুষ্ঠিত

আপডেট সময় : ১২:১৪:১৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ মে ২০২৪

চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের আয়োজনে তেল মনিটরিং ও ভোক্তার অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Model Hospital

গতকাল ১৬ মে বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় জেলা প্রশাসক সম্মেলন করতে অতিরিক্ত  জেলা প্রশাসক (সার্বিক) বশির আহমেদের সভাপতিত্বে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় বক্তারা বলেন, তেলের ডিপুর আশেপাশে যারা তেল বিক্রি করছে তার কতটুকু আইন সংগত। অনেক তেল বিক্রেতা এক জায়গার লাইসেন্স করে অন্য জায়গায় তেল বিক্রি করছে। আপনারা আইনের সহায়তা নেননি কেন? পদ্মা মেঘনা যমুনা তেলর ডিপু কখনো জেলা প্রশাসানকে এ বিষয় গুলো অবগত করেন নি?  তাহলে আমাদেরকেই আইনগত ব্যবস্থা নিতেহবে।

ডিপু কর্তৃপক্ষ বলে এক জেলার তেল অন্য জেলায় বিক্রি করা যাবে না। চাঁদপুর ডিপু  থেকে তেল নিয়ে যাওয়ার সময় পথিমধ্যে বিক্রি করে দেয়। চাঁদপুর থেকে ফরিদগঞ্জ পর্যন্ত ১১৫ টি অবৈধ তেল বিক্রির দোকান রয়েছে। একটি প্রতিষ্ঠানের রহমান ট্রেডাসের শুধু লাইসেন্স রয়েছে। ২১ মে ও ২২ মে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন থাকায় দু দিন সরকারি ছুটি থাকবে সে জন্য তেলের মজুত রাখতে হবে।

ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর নিয়মিত চাঁদপুরে কাজ করছে। হোটেল, রেস্তুরা,ডায়াগনস্টিক সেন্ট্রার, ওষুধ বিপরী ও নিত্যপণ্যের দোকানে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। সামনে ঈদুল আযহা, তাই মসল্লার বাজার গুলোতে তদারকি ও  অভিযান করা প্রয়োজন।

পুরান বাজারে অহরহ ভারতিয় চিনি আসছে। খোলা অবস্থায় এনে বিভিন্ন কোম্পানি ব্যান্ডের প্যাকেজাত করে বিক্রি করছে। আসলে তারা ব্যবসায়ি না। মসল্লা, পেয়াজ, আদা, রসূন এগুলোর দাম এখন বারবে। বাচ্চাদের বিদ্যালয়ের সামনে বিভিন্ন ব্যান্ডের আইসক্রিম বিক্রি করা হচ্ছে এগুলো খেয়ে কোমলমতি শিশুরা অসুস্থ হয়ে পড়ছে। প্রচন্ড গরমে মানুষের পানির পিপাসা  বেড়েছে। চাঁদপুরে পানির জার বিক্রি করা হচ্ছে, তা কতটুকু মানসম্মান তা যাচাই করা হবে।

সমস্যা যদি না থাকে তাহলে ব্যবসায়ীরা ব্যবসা করতে পারবে না এবং আমরা প্রসঙ্গে কর্মকর্তা কাজ করতে পারবো না। তবে সবকিছু সহনশীল ও নিয়ন্ত্রণ রাখতে হবে।

এ সময় বক্তব্য রাখেন ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর চাঁদপুরের এডি নূর হোসেন,  চেম্বার অব  কমার্সের পরিচালক গোপাল সাহা, জেলা ক্যাব সদস্য বিপ্লব সরকার, হোটেল রেস্তোরা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাসুদ আখন্দ, কৃষি বিপণন কর্মকর্তা মাসুদ রানা,  জেলা সেনেটারী ইন্সপেক্টর নজরুল ইসলাম, জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা, পুলিশ পরিদর্শক আক্তার ডিএসবি চাঁদপুর,যমুনা অয়েল কোম্পানির পক্ষে শিশির চন্দ্র, মেঘনা পেট্রোলিয়াম লিমিটেড এর পক্ষে লিটন কর্মকার, পদ্মা অয়েল কোম্পানির পক্ষে সিরাজুল ইসলাম সহ আরো অনেকে।