ঢাকা ০৫:৪৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চাঁদপরে জাতীয় বীমা দিবসে আলোচনা সভা র‍্যালি অনুষ্ঠিত

সজীব খান : চাঁদপুরে জাতীয় বীমা দিবসে আলোচনা সভা ও র‍্যালি অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( সার্বিক) ইমতিয়াজ হোসেনের সভাপতিত্বে সভা অনুষ্ঠিত হয়।

Model Hospital

এ সময় তিনি বলেন বীমা খাতকে শক্তিশালী করতে হবে, বীমাখাতকে সুন্দর ও সম্ভাবনাময় জীবনে নিয়ে আসার জন্য সরকারের সহযোগীতা রয়েছে, জীবনের ঝুঁকি ও সম্পদের ঝুঁকি হ্রাস করতে প্রত্যেকের বীমা করা প্রয়োজন। ব্যাংক খাতের তুলনায় বীমা খাতে তেমন অগ্রগতি হয়নি। দুর্বলতার কারন খুঁজে পেলে নতুন করে বীমা খাতে এগোতে পারবো।

তিনি বলেন, স্বচ্ছতা ও প্রচারণার অভাবের কারণে বাংলাদেশে বীমা খাতে এগোতে পারে নি। নিজেদের বীমা পরিকল্পনার কথা সঠিকভাবে সবাইকে অবগত করানো দরকার। সাধারণ জনগনদের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে আপনাদের বীমার পরিকল্পনাগুলো সঠিকভাবে বুঝাতে হবে। এ খাতটি একদিনের খাত নয়, এ খাতটি সারাবিশ্বে যেভাবে এগিয়ে গেছে ঠিক সেভাবেই বাংলাদেশেও এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। উন্নত বিশ্বে প্রতিটি মানুষ বীমা করে থাকে। বীমা ছাড়া কোন মানুষ পাওয়া যায় না।

পপুলার লাইফ ইন্সুরেন্সে কর্মী জুয়েলের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদ হোসেস, বীমা কোম্পানিগুলোর পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন, পপুলার লাইফ ইন্সুরেন্স দেলোয়ার হোসেন উজ্জ্বল, জীবন বীমা কর্পারেশনের জামিল হোসেন পাটওয়ারী, ন্যাশনাল লাইফ ইন্সুরেন্সের তাজুল ইসলাম, মেট লাইফ ইন্সুরেন্সের মাকসুদুর রহমান, ফার ইস্ট লাইফ ইন্সুরেন্সের হারুন রশিদ মেঘনা লাইফ ইন্সুরেন্সের মানিক খান প্রমূখ।

আলোচনা সভা শেষে বীমার গুরুত্ব নিয়ে অনুষ্ঠিত রচনা প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

কি হবে আর ছবি তুলে!

চাঁদপরে জাতীয় বীমা দিবসে আলোচনা সভা র‍্যালি অনুষ্ঠিত

আপডেট সময় : ০৯:৩১:২৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১ মার্চ ২০২২

সজীব খান : চাঁদপুরে জাতীয় বীমা দিবসে আলোচনা সভা ও র‍্যালি অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( সার্বিক) ইমতিয়াজ হোসেনের সভাপতিত্বে সভা অনুষ্ঠিত হয়।

Model Hospital

এ সময় তিনি বলেন বীমা খাতকে শক্তিশালী করতে হবে, বীমাখাতকে সুন্দর ও সম্ভাবনাময় জীবনে নিয়ে আসার জন্য সরকারের সহযোগীতা রয়েছে, জীবনের ঝুঁকি ও সম্পদের ঝুঁকি হ্রাস করতে প্রত্যেকের বীমা করা প্রয়োজন। ব্যাংক খাতের তুলনায় বীমা খাতে তেমন অগ্রগতি হয়নি। দুর্বলতার কারন খুঁজে পেলে নতুন করে বীমা খাতে এগোতে পারবো।

তিনি বলেন, স্বচ্ছতা ও প্রচারণার অভাবের কারণে বাংলাদেশে বীমা খাতে এগোতে পারে নি। নিজেদের বীমা পরিকল্পনার কথা সঠিকভাবে সবাইকে অবগত করানো দরকার। সাধারণ জনগনদের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে আপনাদের বীমার পরিকল্পনাগুলো সঠিকভাবে বুঝাতে হবে। এ খাতটি একদিনের খাত নয়, এ খাতটি সারাবিশ্বে যেভাবে এগিয়ে গেছে ঠিক সেভাবেই বাংলাদেশেও এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। উন্নত বিশ্বে প্রতিটি মানুষ বীমা করে থাকে। বীমা ছাড়া কোন মানুষ পাওয়া যায় না।

পপুলার লাইফ ইন্সুরেন্সে কর্মী জুয়েলের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদ হোসেস, বীমা কোম্পানিগুলোর পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন, পপুলার লাইফ ইন্সুরেন্স দেলোয়ার হোসেন উজ্জ্বল, জীবন বীমা কর্পারেশনের জামিল হোসেন পাটওয়ারী, ন্যাশনাল লাইফ ইন্সুরেন্সের তাজুল ইসলাম, মেট লাইফ ইন্সুরেন্সের মাকসুদুর রহমান, ফার ইস্ট লাইফ ইন্সুরেন্সের হারুন রশিদ মেঘনা লাইফ ইন্সুরেন্সের মানিক খান প্রমূখ।

আলোচনা সভা শেষে বীমার গুরুত্ব নিয়ে অনুষ্ঠিত রচনা প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।