ঢাকা ১১:৪৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পৌর মেয়রের সু-দৃষ্টি কামনা : হাজীগঞ্জে চলাচল সড়কে দেয়াল, অবরুদ্ধ ২০ পরিবার

হালট দিয়ে মাটির রাস্তা তৈরি করারর পরে ও সামনের বাড়ির লোকজনের বাঁধায় জন চলাচলে অবরুদ্ধ রয়েছে প্রায় ২০ টি পরিবার। সড়কের সামনের অংশে দেয়াল নির্মান করে ফেলার কারনে বর্ষা মৌসুমে পানি কাদায় পুরোপুরি অবরুদ্ধ পরিবারগুলো। সড়কে দেয়াল নির্মানকারী পরিবারগুলোর দাবী যথানিয়মে আসলে পথ দেয়া হবে নচেৎ না।  তবে স্থানীয় কাউন্সিলর বলছেন জনস্বার্থে সড়কের একটা ব্যবস্থা করে দিতে হবে।  ঘটনাটি হাজীগঞ্জ পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের ধেররা এলাকার।
খোঁজ নিয়ে ও সরজমিনে দেখা যায়, ইউসুফ আলি মির্জা বাড়ির পিছনে লিলাম বাড়ি। নিলাম বাড়িতে প্রায় ২০ টি পরিবারের স্থায়ী বসতি হলে ও বাড়ি থেকে বের হবার কোন সড়ক নেই বাড়িটির। সম্প্রতি সময় নিলাম বাড়ির লোকজন হালটে দিয়ে মাটির রাস্তা বেঁধে ইউসুফ আলী মির্জা বাড়ির সীমানায় এনে শেষ করেন। মাটির রাস্তার কাজ শেষ হলে মির্জা বাড়ির লোকজন হঠাৎ করে বাকী রাস্তা নির্মানে বাঁধা দেয় আর রাস্তায় পাকা দেয়াল তুলে প্রতিবন্ধকতা করে দেয়। সেই থেকে নিলাম বাড়ির লোকজন চরম দূর্ভোগের মধ্য দিয়ে চলাচল করছে বিশেষ করে বাড়ির শিক্ষার্থীরা স্কুল কলেজে যেতে হাটার পথ প্রধান বাঁধা হয়ে দাড়িয়েছে ।
ভূক্তভোগী বশির উল্যাহ পন্ডিতের মিলন মিয়া জানান,  আমরা অভিভাবক হিসেবে পৌর মেয়র আ স ম মাহবুব উল আলম স্যার ও আমাদের কাউন্সিলর বাদল ভাইয়ের দিকে ছেয়ে আছি। উনারা আমাদের দিকে সু-দৃষ্টি দিলে আমাদের পথের ব্যবস্থা হয়ে যাবে।
এ দিকে ইউসুফ আলী মির্জা বাড়িতে গত শনিবার দুপুরে গেলে কথা বলার মতো কোন পুরুষ পাওয়া যায় না। সবাই কাজে গেছে বলে বাড়ির মোখলেছুর রহমান মির্জার ছেলে হাবিব জানিয়েছেন, হাবিব আরো জানান,  তারা আমাদের বাড়ির পাশে দিয়ে পথ নিতে চায় আবার আমাদেরকে আসামী করে মামলা করে এটা তো হতে পারে না।
এ বিষয়ে স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর মোহসিন ফারুক বাদল জানান,  যে কোন ভাবে জনস্বার্থে জনগন চলাচলকারী রাস্তা করে দিতে হবে। সেভাবেই আমরা একটা ব্যবস্থা করে দেবো।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুরের তিন উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা কে কত ভোট পেলেন

পৌর মেয়রের সু-দৃষ্টি কামনা : হাজীগঞ্জে চলাচল সড়কে দেয়াল, অবরুদ্ধ ২০ পরিবার

আপডেট সময় : ০৬:৫০:৪২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৫ অগাস্ট ২০২৩
হালট দিয়ে মাটির রাস্তা তৈরি করারর পরে ও সামনের বাড়ির লোকজনের বাঁধায় জন চলাচলে অবরুদ্ধ রয়েছে প্রায় ২০ টি পরিবার। সড়কের সামনের অংশে দেয়াল নির্মান করে ফেলার কারনে বর্ষা মৌসুমে পানি কাদায় পুরোপুরি অবরুদ্ধ পরিবারগুলো। সড়কে দেয়াল নির্মানকারী পরিবারগুলোর দাবী যথানিয়মে আসলে পথ দেয়া হবে নচেৎ না।  তবে স্থানীয় কাউন্সিলর বলছেন জনস্বার্থে সড়কের একটা ব্যবস্থা করে দিতে হবে।  ঘটনাটি হাজীগঞ্জ পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের ধেররা এলাকার।
খোঁজ নিয়ে ও সরজমিনে দেখা যায়, ইউসুফ আলি মির্জা বাড়ির পিছনে লিলাম বাড়ি। নিলাম বাড়িতে প্রায় ২০ টি পরিবারের স্থায়ী বসতি হলে ও বাড়ি থেকে বের হবার কোন সড়ক নেই বাড়িটির। সম্প্রতি সময় নিলাম বাড়ির লোকজন হালটে দিয়ে মাটির রাস্তা বেঁধে ইউসুফ আলী মির্জা বাড়ির সীমানায় এনে শেষ করেন। মাটির রাস্তার কাজ শেষ হলে মির্জা বাড়ির লোকজন হঠাৎ করে বাকী রাস্তা নির্মানে বাঁধা দেয় আর রাস্তায় পাকা দেয়াল তুলে প্রতিবন্ধকতা করে দেয়। সেই থেকে নিলাম বাড়ির লোকজন চরম দূর্ভোগের মধ্য দিয়ে চলাচল করছে বিশেষ করে বাড়ির শিক্ষার্থীরা স্কুল কলেজে যেতে হাটার পথ প্রধান বাঁধা হয়ে দাড়িয়েছে ।
ভূক্তভোগী বশির উল্যাহ পন্ডিতের মিলন মিয়া জানান,  আমরা অভিভাবক হিসেবে পৌর মেয়র আ স ম মাহবুব উল আলম স্যার ও আমাদের কাউন্সিলর বাদল ভাইয়ের দিকে ছেয়ে আছি। উনারা আমাদের দিকে সু-দৃষ্টি দিলে আমাদের পথের ব্যবস্থা হয়ে যাবে।
এ দিকে ইউসুফ আলী মির্জা বাড়িতে গত শনিবার দুপুরে গেলে কথা বলার মতো কোন পুরুষ পাওয়া যায় না। সবাই কাজে গেছে বলে বাড়ির মোখলেছুর রহমান মির্জার ছেলে হাবিব জানিয়েছেন, হাবিব আরো জানান,  তারা আমাদের বাড়ির পাশে দিয়ে পথ নিতে চায় আবার আমাদেরকে আসামী করে মামলা করে এটা তো হতে পারে না।
এ বিষয়ে স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর মোহসিন ফারুক বাদল জানান,  যে কোন ভাবে জনস্বার্থে জনগন চলাচলকারী রাস্তা করে দিতে হবে। সেভাবেই আমরা একটা ব্যবস্থা করে দেবো।