ঢাকা ০১:৪৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শাহরাস্তি ১০ ইউপি নির্বাচনে প্রচারণার শেষ মুহুর্তে প্রার্থীরা বিরামহীন মাঠ চষে বেড়াচ্ছে

স্বপন কর্মকার মিঠুন : নির্বাচনের দিন যত ঘনিয়ে আসছে ততই নির্বাচনী উৎসহর সঙ্গে সঙ্গে উৎকন্টাও বাড়ছে।

Model Hospital

শাহরাস্তি উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন আগামী ২৬ ডিসেম্বর আর চেয়ারম্যান ও সদস্য প্রার্থীরা বিরামহীন ভাবে নির্বাচনী মাঠ চষে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ভোট ভিক্ষা প্রার্থনা করছে। এবার আওয়ামীলীগ দলিয় মনোনীত হয়ে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করলেও বিএনপি মনোনীত ধানের শীর্ষ প্রতীক না দিলেও কৌশল অবলম্বন করে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছে। উভয় দলের প্রার্থীরা সমান ভাবে প্রচার চালাচ্ছে।

উপজেলার মোট ১০টি ইউনিয়নে ঘুরে জানাযায়, এবার ১০ ইউনিয়নের মধ্যে টামটা উত্তর ও দক্ষিন ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ বনাম যুবলীগ প্রার্থীর মধ্যে মুল প্রতিন্দ্বিতা হবে। ওই ইউনিয়ন গুলোতে বিএনপির উল্লেখযোগ্য কোন প্রার্থী না থাকায় নৌকাকে কোনঠাসা করতে যুবলীগ নেতারাই স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছে বলে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতারা দাবি করছেন।

অপর দিকে ১০টি ইউনিয়নের সূচীপাড়া উত্তরে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. মোস্তফা কামাল মজুমদার আর বিএনপির উপজেলার সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মো. হাবিবুর রহমান পাটওয়ারী স্বতন্ত্র, রায়শ্রী উত্তরে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মোশারফ হোসেন আর বিএনপি উপজেলা সাধারন সম্পাদক বর্তমান চেয়ারম্যান মো. সেলিম হোসেন পাটওয়ারী স্বতন্ত্র, রায়শ্রী দক্ষিনে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ডাক্তার আব্দুর রাজ্জাক আওয়ামলীগের একক প্রার্থী আর ইউনিয়ন বিএনপির নেতা মো. মাহবুব আলম স্বতন্ত্র, মেহার উত্তরে বর্তমান চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী মো. মনির হোসেন আর সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপির নেতা সাইফুল ইসলাম রনি স্বতন্ত্র, মেহার দক্ষিনে আওয়ামীলীগে একক প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. রুহুল আমিন আর বিএনপি নেতা মো. কাজি জাহাঙ্গির আলম স্বতন্ত্র, সূচীপাড়া দক্ষিনে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী মো. মাহতাব উদ্দিন হেলাল, বিএনপি উপজেলা নেতা বর্তমান চেয়াম্যান মো. আব্দুর রশিদ স্বতন্ত্র, চিতোষী পশ্চিমে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর মোহাম্মদ আদেল আর বিএনপির নেতা বর্তমান চেয়াম্যান মো. যোবায়ের কবির বাহাদুর, চিতোষী পূর্ব ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী ইউপি আ’লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আবু ইউসুফ পাটোয়ারী আর বিএনপির নেতা আলম বেলাল স্বতন্ত্র, টামটা উত্তর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী মো. আলমগীর কবির মজুমদার (পলাশ) আর উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. ফারুক হোসেন দর্জ্জি স্বতন্ত্র এবং টামটা দক্ষিনে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী ইউপি আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শফিকুর রহমান মজুমদার আর উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. জহিরুল ইসলাম মানিক স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মাঠে রয়েছে।

তবে ১০ ইউনিয়নের মধ্যে ৮টি ইউনিয়নে নৌকার একক প্রার্থীদের সঙ্গে স্বতন্ত্রের আদলে অঘোষিত বিএনপির প্রার্থীদের মুল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে। আর টামটা উত্তর ও দক্ষিণে আওয়ামীলীগ বনাম যুবলীগের স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে বলে কেউ কেউ ধারণা করছে। অপর দিকে ভোটাররা বলছে, শেয়ানে শেয়ানে লড়াইয়ের নির্বাচনী মাঠ দিন দিন উত্তাপ্ত হয়ে উঠছে।

অন্য দিকে স্থানী আওয়ামীলীগের কর্মী ও সমর্থকদের সাথে কথা বলে জানাযায়, আ’লীগ প্রার্থী ও তার অনুসারিরা বিএনপির ভোটার ও প্রার্থীদের নিয়ে যতটুকো টেনশ নয় তার চেয়ে বেশি টেনশনে রয়েছেন নিজ দলীয় নেতা-কর্মীদের আচরণ বিপরীত মুখী হওয়া নিয়ে। নেতা-কর্মীরা বিপরীত মুখ থেকে বেরিয়ে আসলে আওয়ামীলীগ প্রার্থীদের বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী নৌকা প্রতীক না পাওয়ায় তারা ও তাদের অনুসারীরা মনে চাপা ক্ষোভ রেখে বর্তমান নৌকা প্রতীক প্রার্থীর সমর্থনে কাজ না করে বিজয় হতে পারে এমন স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রতি গোপন সমর্থন জানিয়ে ঘরে বসে রয়েছে বলে একাধিক সূত্রে জানিয়েছে। অপর দিকে স্বতন্ত্রের আদলে বিএনপির প্রার্থীর সমর্থকরা বলছে, সুষ্ঠু ও কেন্দ্রে অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটলে তাদের প্রার্থীদের বিজয় সুনিশ্চিত বলে দাবি করেন। অপর দিকে সংশ্লিষ্ঠ প্রশাসন সুষ্ঠু নির্বাচন নিতে সকল ধরণের প্রস্তুতি নিয়েছেন।

উল্লেখ্য ১০টি ইউনিয়নে ৫৫ জন চেয়ারম্যান, সংরক্ষিত ও সাধারণ সদস্য প্রার্থীসহ সর্ব মোট ৫৪৫ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মাঠে রয়েছে।

ট্যাগস :

মতলব উত্তর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নির্বাচিতদের গেজেট প্রকাশ

শাহরাস্তি ১০ ইউপি নির্বাচনে প্রচারণার শেষ মুহুর্তে প্রার্থীরা বিরামহীন মাঠ চষে বেড়াচ্ছে

আপডেট সময় : ০৩:৪৩:২৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০২১

স্বপন কর্মকার মিঠুন : নির্বাচনের দিন যত ঘনিয়ে আসছে ততই নির্বাচনী উৎসহর সঙ্গে সঙ্গে উৎকন্টাও বাড়ছে।

Model Hospital

শাহরাস্তি উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন আগামী ২৬ ডিসেম্বর আর চেয়ারম্যান ও সদস্য প্রার্থীরা বিরামহীন ভাবে নির্বাচনী মাঠ চষে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ভোট ভিক্ষা প্রার্থনা করছে। এবার আওয়ামীলীগ দলিয় মনোনীত হয়ে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করলেও বিএনপি মনোনীত ধানের শীর্ষ প্রতীক না দিলেও কৌশল অবলম্বন করে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছে। উভয় দলের প্রার্থীরা সমান ভাবে প্রচার চালাচ্ছে।

উপজেলার মোট ১০টি ইউনিয়নে ঘুরে জানাযায়, এবার ১০ ইউনিয়নের মধ্যে টামটা উত্তর ও দক্ষিন ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ বনাম যুবলীগ প্রার্থীর মধ্যে মুল প্রতিন্দ্বিতা হবে। ওই ইউনিয়ন গুলোতে বিএনপির উল্লেখযোগ্য কোন প্রার্থী না থাকায় নৌকাকে কোনঠাসা করতে যুবলীগ নেতারাই স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছে বলে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতারা দাবি করছেন।

অপর দিকে ১০টি ইউনিয়নের সূচীপাড়া উত্তরে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. মোস্তফা কামাল মজুমদার আর বিএনপির উপজেলার সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মো. হাবিবুর রহমান পাটওয়ারী স্বতন্ত্র, রায়শ্রী উত্তরে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মোশারফ হোসেন আর বিএনপি উপজেলা সাধারন সম্পাদক বর্তমান চেয়ারম্যান মো. সেলিম হোসেন পাটওয়ারী স্বতন্ত্র, রায়শ্রী দক্ষিনে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ডাক্তার আব্দুর রাজ্জাক আওয়ামলীগের একক প্রার্থী আর ইউনিয়ন বিএনপির নেতা মো. মাহবুব আলম স্বতন্ত্র, মেহার উত্তরে বর্তমান চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী মো. মনির হোসেন আর সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপির নেতা সাইফুল ইসলাম রনি স্বতন্ত্র, মেহার দক্ষিনে আওয়ামীলীগে একক প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. রুহুল আমিন আর বিএনপি নেতা মো. কাজি জাহাঙ্গির আলম স্বতন্ত্র, সূচীপাড়া দক্ষিনে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী মো. মাহতাব উদ্দিন হেলাল, বিএনপি উপজেলা নেতা বর্তমান চেয়াম্যান মো. আব্দুর রশিদ স্বতন্ত্র, চিতোষী পশ্চিমে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর মোহাম্মদ আদেল আর বিএনপির নেতা বর্তমান চেয়াম্যান মো. যোবায়ের কবির বাহাদুর, চিতোষী পূর্ব ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী ইউপি আ’লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আবু ইউসুফ পাটোয়ারী আর বিএনপির নেতা আলম বেলাল স্বতন্ত্র, টামটা উত্তর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী মো. আলমগীর কবির মজুমদার (পলাশ) আর উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. ফারুক হোসেন দর্জ্জি স্বতন্ত্র এবং টামটা দক্ষিনে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী ইউপি আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শফিকুর রহমান মজুমদার আর উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. জহিরুল ইসলাম মানিক স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মাঠে রয়েছে।

তবে ১০ ইউনিয়নের মধ্যে ৮টি ইউনিয়নে নৌকার একক প্রার্থীদের সঙ্গে স্বতন্ত্রের আদলে অঘোষিত বিএনপির প্রার্থীদের মুল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে। আর টামটা উত্তর ও দক্ষিণে আওয়ামীলীগ বনাম যুবলীগের স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে বলে কেউ কেউ ধারণা করছে। অপর দিকে ভোটাররা বলছে, শেয়ানে শেয়ানে লড়াইয়ের নির্বাচনী মাঠ দিন দিন উত্তাপ্ত হয়ে উঠছে।

অন্য দিকে স্থানী আওয়ামীলীগের কর্মী ও সমর্থকদের সাথে কথা বলে জানাযায়, আ’লীগ প্রার্থী ও তার অনুসারিরা বিএনপির ভোটার ও প্রার্থীদের নিয়ে যতটুকো টেনশ নয় তার চেয়ে বেশি টেনশনে রয়েছেন নিজ দলীয় নেতা-কর্মীদের আচরণ বিপরীত মুখী হওয়া নিয়ে। নেতা-কর্মীরা বিপরীত মুখ থেকে বেরিয়ে আসলে আওয়ামীলীগ প্রার্থীদের বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী নৌকা প্রতীক না পাওয়ায় তারা ও তাদের অনুসারীরা মনে চাপা ক্ষোভ রেখে বর্তমান নৌকা প্রতীক প্রার্থীর সমর্থনে কাজ না করে বিজয় হতে পারে এমন স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রতি গোপন সমর্থন জানিয়ে ঘরে বসে রয়েছে বলে একাধিক সূত্রে জানিয়েছে। অপর দিকে স্বতন্ত্রের আদলে বিএনপির প্রার্থীর সমর্থকরা বলছে, সুষ্ঠু ও কেন্দ্রে অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটলে তাদের প্রার্থীদের বিজয় সুনিশ্চিত বলে দাবি করেন। অপর দিকে সংশ্লিষ্ঠ প্রশাসন সুষ্ঠু নির্বাচন নিতে সকল ধরণের প্রস্তুতি নিয়েছেন।

উল্লেখ্য ১০টি ইউনিয়নে ৫৫ জন চেয়ারম্যান, সংরক্ষিত ও সাধারণ সদস্য প্রার্থীসহ সর্ব মোট ৫৪৫ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মাঠে রয়েছে।