ঢাকা ০৫:৫৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
৫২ এ’ ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে

শহীদ মিনারে শিশু-কিশোরা, শহীদদের ফুলেল শ্রদ্ধায় হৃদয়ে জাগরন সৃষ্টি

১৯৫২ সালে আমাদের মায়ের ভাষা’বাংলা ভাষার জন্য রাজপথে মিছিল করতে গিয়ে তৎকালীন পাকিস্তানি শাসকদের নির্দেশে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হায়নাদের বুলেটের গুলিতে অসংখ্য তাজা প্রান শহীদ হয়েছিল। সেই শহীদ ভাষা সৈনিকদের রক্তের বিনিময়ে এ দেশে বাংলা ভাষা প্রতিষ্ঠা লাভকরে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

Model Hospital

সেই সময় বাংলা ভাষার জন্য ঢাকার রাজপথে আন্দোলন করতে গিয়ে, প্রথম দিনের আন্দোলনে ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের শিক্ষাথীদের মধ্যে সালাম,কালাম,জব্বর,বরকতসহ নাম না’জানা অনেকেই তাজা প্রান দিতে হয়েছিল।

গত ৭৩ বছর পূর্বে এ বাংলা ভাষার জন্য আন্দোলন করেছে এ দেশের অসংখ্য শিক্ষার্থী,যুব সমাজসহ অনেকেই। সেই সময়কার শহীদদের রেখে যাওয়া প্রজন্ম থেকে প্রজন্মরা স্বাধীন বাংলাদেশ নামে একটি ভূখন্ড ও লাল-সবুজের পতাকা উপহার পেয়েছে। তাইতো’তারা স্বাধীন বাংলাদেশের নাগরিক। এ ভাষা শহীদদেরকে শ্রদ্ধা নিবেদন করে যাচ্ছে এ দেশের সর্বস্তরের মানুষ।

এখন আবার এক সময়কার প্রজন্ম থেকে নতুন করে প্রজন্ম সৃষ্টি হয়েছে। তারা এখন শিশু-কিশোর। তাদের মধ্যে এখন ২১ শের চেতনা কি তা’জানতে এক জাগরন সুষ্টি হতে দেখা গেছে। তাইতো এ সব শিশু-কিশোররা ফুলেল শ্রদ্ধায় হৃদয়ে জাগরন সৃষ্টি হওয়ায় তারা ছুটে এসেছে ২১ ফেব্রুয়ারী রাতের প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করতে।

নবপ্রজন্মের এ সব শিশু-কিশোরদের ২১ শের প্রথম প্রহরে ৫২ সালের ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন,তাদের প্রতি ভালবাসা জানাতে নবপ্রজন্মের শিশুদের হৃদয়ে জাগরন সৃষ্টি হতে দেখা গেছে।
তারা মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ছুটে এসেছে চাঁদপুর শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে।

২১ শের প্রথম প্রহরে ‘মহান শহীদ দিবস’ ও ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে’ ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন চাঁদপুরের সরকারি বিভিন্ন দপ্তর, রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনসহ সর্বস্তরের জনসাধারণ। সেই সময় শিশু-কিশোদের মধ্য থেকে অনেকেই তাদের অভিভাবকদের সাথে শহীদ মিণারে ছুটে এসেছেন। শহীদ মিনারে দেখা গেছে অসংখ্য শিশু ও কিশোরদের। তারাও বড়দের মত করে নিজেরা ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন।

এ সময় দেখা যায়,বঙ্গবন্ধু সড়কের ব্যবসায়ী মো: হাসান আলীর ছেলে শহরের হাসান আলী মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেনীর শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ্ আল-হায়াম শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন। শিশু শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ্ আল-হায়াম এর হাতে হাত রেখে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন,জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো: মজিবুর রহমান ভ’ঁইয়া। এতে ধারনা করে বুঝা যায় ও দেখা যায় শিশু আবদুল্লাহ্র মধ্যে অনুপ্রেরনা জেগেছে,ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধার নিবেদনের মাধ্যমে স্মরন করতে।

উল্লেখ্য, শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো শিশু শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ্ আল-হায়াম হচ্ছে,চাঁদপুর প্রেস ক্লাবের সিনিয়র যুগ্ন সাধারন সম্পাদক ও দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশ পত্রিকার চাঁদপুর প্রতিনিধি, সাংবাদিক মোহাম্মদ শওকত আলীর ছোট ভাই (নাতি)।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

ঈদে স্ত্রীকে মাংস কিনে খাওয়াতে না পেরে চিরকুট লিখে আত্মহত্যা

৫২ এ’ ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে

শহীদ মিনারে শিশু-কিশোরা, শহীদদের ফুলেল শ্রদ্ধায় হৃদয়ে জাগরন সৃষ্টি

আপডেট সময় : ০৬:১০:৫০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

১৯৫২ সালে আমাদের মায়ের ভাষা’বাংলা ভাষার জন্য রাজপথে মিছিল করতে গিয়ে তৎকালীন পাকিস্তানি শাসকদের নির্দেশে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হায়নাদের বুলেটের গুলিতে অসংখ্য তাজা প্রান শহীদ হয়েছিল। সেই শহীদ ভাষা সৈনিকদের রক্তের বিনিময়ে এ দেশে বাংলা ভাষা প্রতিষ্ঠা লাভকরে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

Model Hospital

সেই সময় বাংলা ভাষার জন্য ঢাকার রাজপথে আন্দোলন করতে গিয়ে, প্রথম দিনের আন্দোলনে ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের শিক্ষাথীদের মধ্যে সালাম,কালাম,জব্বর,বরকতসহ নাম না’জানা অনেকেই তাজা প্রান দিতে হয়েছিল।

গত ৭৩ বছর পূর্বে এ বাংলা ভাষার জন্য আন্দোলন করেছে এ দেশের অসংখ্য শিক্ষার্থী,যুব সমাজসহ অনেকেই। সেই সময়কার শহীদদের রেখে যাওয়া প্রজন্ম থেকে প্রজন্মরা স্বাধীন বাংলাদেশ নামে একটি ভূখন্ড ও লাল-সবুজের পতাকা উপহার পেয়েছে। তাইতো’তারা স্বাধীন বাংলাদেশের নাগরিক। এ ভাষা শহীদদেরকে শ্রদ্ধা নিবেদন করে যাচ্ছে এ দেশের সর্বস্তরের মানুষ।

এখন আবার এক সময়কার প্রজন্ম থেকে নতুন করে প্রজন্ম সৃষ্টি হয়েছে। তারা এখন শিশু-কিশোর। তাদের মধ্যে এখন ২১ শের চেতনা কি তা’জানতে এক জাগরন সুষ্টি হতে দেখা গেছে। তাইতো এ সব শিশু-কিশোররা ফুলেল শ্রদ্ধায় হৃদয়ে জাগরন সৃষ্টি হওয়ায় তারা ছুটে এসেছে ২১ ফেব্রুয়ারী রাতের প্রথম প্রহরে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করতে।

নবপ্রজন্মের এ সব শিশু-কিশোরদের ২১ শের প্রথম প্রহরে ৫২ সালের ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন,তাদের প্রতি ভালবাসা জানাতে নবপ্রজন্মের শিশুদের হৃদয়ে জাগরন সৃষ্টি হতে দেখা গেছে।
তারা মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ছুটে এসেছে চাঁদপুর শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে।

২১ শের প্রথম প্রহরে ‘মহান শহীদ দিবস’ ও ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে’ ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন চাঁদপুরের সরকারি বিভিন্ন দপ্তর, রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনসহ সর্বস্তরের জনসাধারণ। সেই সময় শিশু-কিশোদের মধ্য থেকে অনেকেই তাদের অভিভাবকদের সাথে শহীদ মিণারে ছুটে এসেছেন। শহীদ মিনারে দেখা গেছে অসংখ্য শিশু ও কিশোরদের। তারাও বড়দের মত করে নিজেরা ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন।

এ সময় দেখা যায়,বঙ্গবন্ধু সড়কের ব্যবসায়ী মো: হাসান আলীর ছেলে শহরের হাসান আলী মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেনীর শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ্ আল-হায়াম শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন। শিশু শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ্ আল-হায়াম এর হাতে হাত রেখে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন,জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো: মজিবুর রহমান ভ’ঁইয়া। এতে ধারনা করে বুঝা যায় ও দেখা যায় শিশু আবদুল্লাহ্র মধ্যে অনুপ্রেরনা জেগেছে,ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধার নিবেদনের মাধ্যমে স্মরন করতে।

উল্লেখ্য, শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো শিশু শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ্ আল-হায়াম হচ্ছে,চাঁদপুর প্রেস ক্লাবের সিনিয়র যুগ্ন সাধারন সম্পাদক ও দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশ পত্রিকার চাঁদপুর প্রতিনিধি, সাংবাদিক মোহাম্মদ শওকত আলীর ছোট ভাই (নাতি)।