ঢাকা ০১:৩৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

চরকালিয়া হাই স্কুলের সাবেক শিক্ষক শতবর্শী গাজী আমির হামজার মৃত্যু

মতলব উত্তর ব্যুরো : মতলব উত্তর উপজেলার চরকালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক সিনিয়র শিক্ষক শতবর্শী গাজী আমির হামজা আর বেঁচে নেই। ২৮ জানুয়ারী শনিবার বেলা ১২টা ৫০ মিনিটে তিনি ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন (ইন্নানিল্লাহ….রাজেউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ১০৫ বছর। তিনি স্ত্রী, ৪ পুত্র ও ৩ কন্যা সন্তানসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।
শনিবার বাদ এশা আমিরাবাদ বাজার মসজিদ মাঠে মরহুমের জানাযা শেষে পরিবারিক কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হয়।

Model Hospital

গাজী আমির হামজা ১৯৬৬ সালের ৫ই মার্চ এই চরকালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষকতায় যোগদান করেন। তখন ছিল স্কুলটির দুঃসময়। তিনি বেতন না নিয়েও শিক্ষকতা চালিয়ে গেছেন। অত্র এলাকায় শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দেয়ার নেশা থেকেই তিনি একাজ করে গেছেন। অবশেষে ১৯৯৪ সালের ডিসেম্বর মাসে তিনি এই স্কুল থেকেই চাকুরী জীবন থেকে অবসর নেন। এই মানুষ গড়ার কারিগরের অসংখ্য ছাত্র আজ দেশের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে রয়েছেন।

গাজী আমির হামজা যখন এই চরকালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষকতায় যোগদান করেন তখন ৯ম শ্রেনীর ছাত্র পরবর্তীতে অত্র স্কুলে প্রধান শিক্ষক হিসাবে যোগদান করা বাবু মনতোষ মজুমদার বলেন, আমির হামজা স্যার ছিলেন অত্যন্ত কোমল হৃদযন্ত্রের এবং ভদ্র-শান্তস্বভাবের মানুষ। শিক্ষক হিসাবে উনি ছিলেন খুবই ধৈর্যশীল ও পরিশ্রমী।

চরকালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দলিল উদ্দিন জানায়, আমি নিজেও স্যারের ছাত্র। স্যার হাসপাতালে ভর্তি আছে জেনে স্যারের সুস্থ্যতার জন্য আজ শনিবার সকালেই আমরা সকল শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিয়ে দোয়ার আয়োজন করেছিলাম। আল্লাহ কাছে দোয়া করি আল্লাহ যেনো মানবিক গুনাবালী সম্পন্ন আমাদের প্রিয় আমির হামজা স্যারকে বেহেস্তবাসী করেন।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

শাহরাস্তিতে নিজের পায়ুপথে ৬ ইঞ্চি ডাব প্রবেশ করিয়ে বিপাকে যুবক

চরকালিয়া হাই স্কুলের সাবেক শিক্ষক শতবর্শী গাজী আমির হামজার মৃত্যু

আপডেট সময় : ০৩:২১:২৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২

মতলব উত্তর ব্যুরো : মতলব উত্তর উপজেলার চরকালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক সিনিয়র শিক্ষক শতবর্শী গাজী আমির হামজা আর বেঁচে নেই। ২৮ জানুয়ারী শনিবার বেলা ১২টা ৫০ মিনিটে তিনি ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন (ইন্নানিল্লাহ….রাজেউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ১০৫ বছর। তিনি স্ত্রী, ৪ পুত্র ও ৩ কন্যা সন্তানসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।
শনিবার বাদ এশা আমিরাবাদ বাজার মসজিদ মাঠে মরহুমের জানাযা শেষে পরিবারিক কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হয়।

Model Hospital

গাজী আমির হামজা ১৯৬৬ সালের ৫ই মার্চ এই চরকালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষকতায় যোগদান করেন। তখন ছিল স্কুলটির দুঃসময়। তিনি বেতন না নিয়েও শিক্ষকতা চালিয়ে গেছেন। অত্র এলাকায় শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দেয়ার নেশা থেকেই তিনি একাজ করে গেছেন। অবশেষে ১৯৯৪ সালের ডিসেম্বর মাসে তিনি এই স্কুল থেকেই চাকুরী জীবন থেকে অবসর নেন। এই মানুষ গড়ার কারিগরের অসংখ্য ছাত্র আজ দেশের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে রয়েছেন।

গাজী আমির হামজা যখন এই চরকালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষকতায় যোগদান করেন তখন ৯ম শ্রেনীর ছাত্র পরবর্তীতে অত্র স্কুলে প্রধান শিক্ষক হিসাবে যোগদান করা বাবু মনতোষ মজুমদার বলেন, আমির হামজা স্যার ছিলেন অত্যন্ত কোমল হৃদযন্ত্রের এবং ভদ্র-শান্তস্বভাবের মানুষ। শিক্ষক হিসাবে উনি ছিলেন খুবই ধৈর্যশীল ও পরিশ্রমী।

চরকালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দলিল উদ্দিন জানায়, আমি নিজেও স্যারের ছাত্র। স্যার হাসপাতালে ভর্তি আছে জেনে স্যারের সুস্থ্যতার জন্য আজ শনিবার সকালেই আমরা সকল শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিয়ে দোয়ার আয়োজন করেছিলাম। আল্লাহ কাছে দোয়া করি আল্লাহ যেনো মানবিক গুনাবালী সম্পন্ন আমাদের প্রিয় আমির হামজা স্যারকে বেহেস্তবাসী করেন।