ঢাকা ১১:১২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হাজীগঞ্জে রুটি সেকতে গিয়ে আগুনে পুড়ে মরলো প্রতিবন্ধী কিশোরী

স্টাফ রিপোর্টার : নিজ রান্না ঘরে আগুনে পুড়ে মরলো প্রতিবন্ধী মেরিনা কাজী নামের এক ষোড়সী। তিন বোনের মধ্যে বড় দুই বোন প্রতিবন্ধী আর মেরিনা সবার বড়। সে হাজীগঞ্জের বাকিলা ইউনিয়নের পশ্চিম রাধাসার গ্রামের কাজি বাড়ির মৃত ইউসুফ কাজীর মেয়ে।

Model Hospital

সোমবার চাঁদপুর সদর হাসপাতাল থেকে ঢাকা নেয়ার পথে মারা যায় মেরিনা। রাতেই মেয়েটিকে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী কাজী বাড়ির হাবিব কাজী চাঁদপুর খবরকে জানান, সকাল বেলা মেরিনাদের রান্না ঘরে আগুন লেগেছে দেখে আমরা সবাই আগুন নেভাতে শুরু করি। ঘরের আগুন অর্ধেক নিভানোর পর দেখি ঘরের ভিতরেই মেরিনার গায়ে আগুন জ্বলছে। তারপরেই সবাই মিলে আগে তাকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে পাঠাই। সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল রেফার দিলে পথিমধ্যে মারা যায় মেয়েটি।

হাবিব কাজী আরো জানান, পরে শুনলাম মেয়েটি একা একা রুটি বানাতে গিয়ে তার গায়ে আগুন ধরে।
স্থানীয় ইউপি সদস্য রবিউল আলম অরুন জানান, আগুনে পুড়ে মেরিনা কাজীর মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মেয়েরা তিন বোনের মধ্য এই মেয়েটিসহ অপর আরেক বোন প্রতিবন্ধী। আমরা দুই বোনকে প্রতিবন্ধী ভাতা দিয়েছি। তাদের বাবা মারা গেছে অনেক আগে।

এ বিষয়ে হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ জুবায়ের সৈয়দ জানান, এ বিষয়ে ঐ বাড়িতে লোক পাঠানো হয়েছে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

হাজীগঞ্জে রুটি সেকতে গিয়ে আগুনে পুড়ে মরলো প্রতিবন্ধী কিশোরী

আপডেট সময় : ০৩:২৪:০৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৮ মার্চ ২০২২

স্টাফ রিপোর্টার : নিজ রান্না ঘরে আগুনে পুড়ে মরলো প্রতিবন্ধী মেরিনা কাজী নামের এক ষোড়সী। তিন বোনের মধ্যে বড় দুই বোন প্রতিবন্ধী আর মেরিনা সবার বড়। সে হাজীগঞ্জের বাকিলা ইউনিয়নের পশ্চিম রাধাসার গ্রামের কাজি বাড়ির মৃত ইউসুফ কাজীর মেয়ে।

Model Hospital

সোমবার চাঁদপুর সদর হাসপাতাল থেকে ঢাকা নেয়ার পথে মারা যায় মেরিনা। রাতেই মেয়েটিকে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী কাজী বাড়ির হাবিব কাজী চাঁদপুর খবরকে জানান, সকাল বেলা মেরিনাদের রান্না ঘরে আগুন লেগেছে দেখে আমরা সবাই আগুন নেভাতে শুরু করি। ঘরের আগুন অর্ধেক নিভানোর পর দেখি ঘরের ভিতরেই মেরিনার গায়ে আগুন জ্বলছে। তারপরেই সবাই মিলে আগে তাকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে পাঠাই। সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল রেফার দিলে পথিমধ্যে মারা যায় মেয়েটি।

হাবিব কাজী আরো জানান, পরে শুনলাম মেয়েটি একা একা রুটি বানাতে গিয়ে তার গায়ে আগুন ধরে।
স্থানীয় ইউপি সদস্য রবিউল আলম অরুন জানান, আগুনে পুড়ে মেরিনা কাজীর মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মেয়েরা তিন বোনের মধ্য এই মেয়েটিসহ অপর আরেক বোন প্রতিবন্ধী। আমরা দুই বোনকে প্রতিবন্ধী ভাতা দিয়েছি। তাদের বাবা মারা গেছে অনেক আগে।

এ বিষয়ে হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ জুবায়ের সৈয়দ জানান, এ বিষয়ে ঐ বাড়িতে লোক পাঠানো হয়েছে।