ঢাকা ০৯:৫০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মতলব উত্তরে শালিশদারের দু’হাত ভেঙ্গে দিলো বখাটে

মতলব উত্তর ব্যুরো : চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার খাগকান্দা গ্রামে শালিশদারের দু’হাত ভেঙ্গে দিয়েছে বখাটে যুবক। হামলায় আহত জুলহাস (৫২) ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ব্যাপারে জুলহাসের স্ত্রী মাকসুদা বেগম ডলি বাদি হয়ে খাগকান্দা গ্রামের তাজুল ইসলামের ছেলে আল-আমিন (৪০), মোজাম্মেল হক (৪৩)সহ ৪-৫জনকে আসামী করে একটি মামলা করেন।

Model Hospital

মামলা সূত্রে জানা যায়, খাগকান্দা গ্রামের আল-আমিন ও মোজাম্মেল হক প্রায় সময় তাদের পিতা-মাতার সাথে সাংসারিক বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে ঝগড়া বিবাদে লিপ্ত হয়। উক্ত ঝগড়া বিবাদকে কেন্দ্র করিয়া ১৮ এপ্রিল গন্যমান্য লোকজনদের নিয়ে শালিশ দরবারের আয়োজন করে। আল-আমিন ও মোজাম্মেল হক প্রকাশ্যে হুমকি ধমকি দেয় যে, শালিশে যারা আসবে তাদের হাত-পা ভেঙ্গে দিবে।

দরবারি জুলহাসকে হত্যার উদ্দেশ্যে দা, লোহার রড ও লাঠি-সোঠা নিয়ে বে-আইনী জনতাবদ্ধে তার বসত বাড়ীতে অনাধিকার প্রবেশ করে অতর্কিত আক্রমন করে। জুলহাসকে এলোপাথাড়ি পিটাইয়া ও কিল-ঘুষি, লাথি মারিয়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে নিলা-ফোলা জখম করে। এক পর্যায়ে মোজাম্মেল হক তার হাতে থাকা একটি ধারালো দা দিয়া জুলহাসকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথা লক্ষ্য করে কোপ মারিলে উক্ত কোপ মাথার বাম পার্শ্বে পড়ে গুরুতর কাঁটা রক্তাক্ত জখম হয়।

আল-আমিন তার হাতে থাকা লোহার রড দিয়া জুলহাসকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথা লক্ষ্য করিয়া উপুর্যপরি আঘাত করলে উক্ত আঘাত জুলহাস তার দুই হাতে ফিরাইলে উভয় হাতে গুরুতর হাড়ভাঙ্গা জখম হয়। মারধরের সময় আল-আমিন ১২আনা ওজনের একটি স্বর্ণের চেইন নিয়ে যায়।

মতলব উত্তর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ শাহজাহান কামাল বলেন, এ ব্যাপারে মামলা নেয়া হয়ে। আসামীদের আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

বাংলাদেশ আজ উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির পথে বিশ্বের বিস্ময় : মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম এমপি

মতলব উত্তরে শালিশদারের দু’হাত ভেঙ্গে দিলো বখাটে

আপডেট সময় : ০৫:১৩:৪৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ এপ্রিল ২০২২

মতলব উত্তর ব্যুরো : চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার খাগকান্দা গ্রামে শালিশদারের দু’হাত ভেঙ্গে দিয়েছে বখাটে যুবক। হামলায় আহত জুলহাস (৫২) ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ব্যাপারে জুলহাসের স্ত্রী মাকসুদা বেগম ডলি বাদি হয়ে খাগকান্দা গ্রামের তাজুল ইসলামের ছেলে আল-আমিন (৪০), মোজাম্মেল হক (৪৩)সহ ৪-৫জনকে আসামী করে একটি মামলা করেন।

Model Hospital

মামলা সূত্রে জানা যায়, খাগকান্দা গ্রামের আল-আমিন ও মোজাম্মেল হক প্রায় সময় তাদের পিতা-মাতার সাথে সাংসারিক বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে ঝগড়া বিবাদে লিপ্ত হয়। উক্ত ঝগড়া বিবাদকে কেন্দ্র করিয়া ১৮ এপ্রিল গন্যমান্য লোকজনদের নিয়ে শালিশ দরবারের আয়োজন করে। আল-আমিন ও মোজাম্মেল হক প্রকাশ্যে হুমকি ধমকি দেয় যে, শালিশে যারা আসবে তাদের হাত-পা ভেঙ্গে দিবে।

দরবারি জুলহাসকে হত্যার উদ্দেশ্যে দা, লোহার রড ও লাঠি-সোঠা নিয়ে বে-আইনী জনতাবদ্ধে তার বসত বাড়ীতে অনাধিকার প্রবেশ করে অতর্কিত আক্রমন করে। জুলহাসকে এলোপাথাড়ি পিটাইয়া ও কিল-ঘুষি, লাথি মারিয়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে নিলা-ফোলা জখম করে। এক পর্যায়ে মোজাম্মেল হক তার হাতে থাকা একটি ধারালো দা দিয়া জুলহাসকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথা লক্ষ্য করে কোপ মারিলে উক্ত কোপ মাথার বাম পার্শ্বে পড়ে গুরুতর কাঁটা রক্তাক্ত জখম হয়।

আল-আমিন তার হাতে থাকা লোহার রড দিয়া জুলহাসকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথা লক্ষ্য করিয়া উপুর্যপরি আঘাত করলে উক্ত আঘাত জুলহাস তার দুই হাতে ফিরাইলে উভয় হাতে গুরুতর হাড়ভাঙ্গা জখম হয়। মারধরের সময় আল-আমিন ১২আনা ওজনের একটি স্বর্ণের চেইন নিয়ে যায়।

মতলব উত্তর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ শাহজাহান কামাল বলেন, এ ব্যাপারে মামলা নেয়া হয়ে। আসামীদের আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।