ঢাকা ০৩:৩৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

জয় বাংলার মিছিলে এক সাহসী কর্মীর নাম সুজিত রায় নন্দী

সাইদ হোসেন অপু চৌধুরী : জামাত বিএনপির দুঃশাসনের বিরুদ্ধে লড়াই  সংগ্রামে একটি ত্যাগী ও আদর্শিক কর্মী, বারবার পুলিশ ও বিএনপি হাতে নির্যাতনের স্বীকার হওয়া থেকে শুরু করে আজ অবধি ছাত্র রাজনীতি থেকে আওয়ামী লীগের সকল আন্দোলন সংগ্রামে জয় বাংলার মিছিলে এক সাহসী কর্মীর নাম সুজিত রায় নন্দী।
যিনি চাঁদপুরের কৃতি সন্তান, ছাত্রলীগের সাবেক নেতা ও বর্তমান কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক। দলের দুঃসময়সহ প্রতিক্ষণেই তিনি সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার অগ্রগামী সকল বানী নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে সবার কাছে পৌঁছে দেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলাদেশ বিনির্মাণে সুজিত রায় নন্দী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছেন। ব্যাক্তি পরোপকারী এই মানুষটি নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে হলেও দলের হয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নে সর্বত্র ছুটে চলেছেন মাঠে ময়দানে। আর তাই যোগ্য ও পরীক্ষিত নেতা হিসেবেই তিনি ছাত্রনেতা হতে এখন নেতৃত্ব দিচ্ছেন আওয়ামীলীগের।
সুজিত রায় নন্দীৱ পুরো পরিবার জড়িয়ে আছেন আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে। চাঁদপুর জেলা ও উপজেলার পাশ্ববর্তি এলাকাগুলোতে রয়েছে তার পরিবারের ব্যাপক পরিচিতি ও স্বচ্ছ ভাবমুর্তি।
সুজিত রায় নন্দী এলাকার মানবসেবার এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। তিনি এলাকায় দলীয় লোকজন ছাড়াও জনসাধারণ, শিক্ষক, ছাত্র ও সাধারণ মানুষসহ সবার কাছে গ্রহণযোগ্য ব্যক্তি। অত্যন্ত নম্রভদ্র বিনয়ী ও সেবাকর্মী বান্ধব এই আওয়ামীলীগ নেতা।
আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতা কর্মীরা জানান, তার মধ্যে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র জন্য রয়েছে অফুরন্ত ভালোবাসা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে দলের পক্ষে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের হাসপাতালসহ নানা প্রতিষ্ঠানে করোনা সুরক্ষা সামগ্রী, পিপিই, অক্সিজেন কনসেনট্রেটর, অক্সিজেন সিলিন্ডার, উন্নতমানের মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, অ্যান্টিসেপটিক সাবান, হ্যান্ডওয়াস এবং খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন। এমনকি করোনায় মৃতরোগীর দাফন ও সৎকারে অনেকে এগিয়ে না এলেও তিনি সক্রিয়ভাবে ভূমিকা রেখেছেন। এছাড়াও মাস্ক পরা এবং করোনা ও ডেঙ্গু প্রতিরোধে করণীয় নিয়ে সচেতনতামূলক লিফলেটও নেতাকর্মীদের নিয়ে বিলিয়েছেন সারাদেশে।
সুজিত রায় নন্দী খালেদা জিয়ার দুঃশাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে গিয়ে অগনিত বার পুলিশ ও বিএনপি’র হাতে নির্যাতনের স্বীকার হয়েছেন। মামলা হামলা নির্যাতন সত্বেও এ সাহসী যোদ্ধা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হিসেবে দলীয় সভাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করার লক্ষ্যে তিনি প্রতিনিয়ত রাজনৈতিক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছেন।
সুজিত রায় নন্দী সারাদেশের বিভাগ, জেলা, উপজেলা পর্যায়ে দলের সাংগঠনিক দায়িত্ব পালনে ছুটে গেছেন। নানা গ্রুপিং হটিয়ে তৃণমূলে সম্মেলনের মাধ্যমে তুলে এনেছেন বিতর্কমুক্ত নেতৃত্ব। দলীয় শৃঙ্খলা রক্ষায় সর্বোচ্চ সজাগ ছিলেন। তাই জাতীয় সম্মেলনে দলের এমন সাহসী কর্মীকে মাননীয় প্ৰধানমন্ত্ৰী শেখ হাসিনা সাংগঠনিক মূল্যায়ন করবে এমনটাই সবার প্রত্যাশা।
দৈনিক বাংলাদেশের আলো’র সাথে আলাচকালে সুজিত রায় নন্দী বলেন আমি একজন রাজনৈতিক কর্মি। ১৯৭৭ সাল থেকে ছাত্র রাজনীতির মধ্য দিয়ে আমার রাজনৈতিক পথচলা শুরু হয়। জিয়া ও এরশাদের সামরিক দুঃশাসনের বিরুদ্ধে রাজপথে থেকে আন্দোলন সংগ্রাম পরিচালনা করেছি। পারিবারিক ভাবেই মানুষের সেবা করার শিক্ষা পেয়েছি।
তিনি আরো বলেন, আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে ও বর্তমান আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মানে দলের জন্য কাজ করে যাচ্ছি।’ রাজনীতিতে বঙ্গবন্ধু আদর্শ বুকে ধারণ করে মানুষের বিপদে আপদে জনপ্রতিনিধি হিসেবে পাশে থেকেছি। কখনো নিজেকে নেতা হিসাবে মনে করিনি। কখনও ক্ষমতার অপব্যবহার করিনি। আওয়ামীলীগ মানেই অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফোটানো, আওয়ামী লীগ মানেই আর্ত-মানবতার সেবায় সকলের পাশে থেকে কাজ করা। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ মানেই দেশপ্রেম। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল একটি উন্নত সমৃদ্ধ সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করা। কিন্তু আজ সেই মহান নেতা বঙ্গবন্ধু আমাদের মাঝে বেঁচে নেই। কিন্তু তার সুযোগ্য কন্যা উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বিনির্মাণে গৃহীত পদক্ষেপগুলো বাস্তব করে যাচ্ছে। আমি একজন তৃণমূলের জনপ্রতিনিধি হিসেবে নির্দেশনা অনুযায়ী আমার প্রিয় নেত্রী নির্দেশনা ও চাহিদা অনুযায়ী আমার কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছি। জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতেই উন্নয়ন, অগ্রগতি, সমৃদ্ধি দেশ ও দেশের সার্বভৌমত্ত নিরাপদ।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

প্রধানমন্ত্রীর বিজয়ের গান গাইলেন সুনামগঞ্জের সাংবাদিক রাজু

জয় বাংলার মিছিলে এক সাহসী কর্মীর নাম সুজিত রায় নন্দী

আপডেট সময় : ০১:৪৫:৪৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ডিসেম্বর ২০২২
সাইদ হোসেন অপু চৌধুরী : জামাত বিএনপির দুঃশাসনের বিরুদ্ধে লড়াই  সংগ্রামে একটি ত্যাগী ও আদর্শিক কর্মী, বারবার পুলিশ ও বিএনপি হাতে নির্যাতনের স্বীকার হওয়া থেকে শুরু করে আজ অবধি ছাত্র রাজনীতি থেকে আওয়ামী লীগের সকল আন্দোলন সংগ্রামে জয় বাংলার মিছিলে এক সাহসী কর্মীর নাম সুজিত রায় নন্দী।
যিনি চাঁদপুরের কৃতি সন্তান, ছাত্রলীগের সাবেক নেতা ও বর্তমান কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক। দলের দুঃসময়সহ প্রতিক্ষণেই তিনি সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার অগ্রগামী সকল বানী নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে সবার কাছে পৌঁছে দেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলাদেশ বিনির্মাণে সুজিত রায় নন্দী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছেন। ব্যাক্তি পরোপকারী এই মানুষটি নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে হলেও দলের হয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নে সর্বত্র ছুটে চলেছেন মাঠে ময়দানে। আর তাই যোগ্য ও পরীক্ষিত নেতা হিসেবেই তিনি ছাত্রনেতা হতে এখন নেতৃত্ব দিচ্ছেন আওয়ামীলীগের।
সুজিত রায় নন্দীৱ পুরো পরিবার জড়িয়ে আছেন আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে। চাঁদপুর জেলা ও উপজেলার পাশ্ববর্তি এলাকাগুলোতে রয়েছে তার পরিবারের ব্যাপক পরিচিতি ও স্বচ্ছ ভাবমুর্তি।
সুজিত রায় নন্দী এলাকার মানবসেবার এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। তিনি এলাকায় দলীয় লোকজন ছাড়াও জনসাধারণ, শিক্ষক, ছাত্র ও সাধারণ মানুষসহ সবার কাছে গ্রহণযোগ্য ব্যক্তি। অত্যন্ত নম্রভদ্র বিনয়ী ও সেবাকর্মী বান্ধব এই আওয়ামীলীগ নেতা।
আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতা কর্মীরা জানান, তার মধ্যে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র জন্য রয়েছে অফুরন্ত ভালোবাসা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে দলের পক্ষে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের হাসপাতালসহ নানা প্রতিষ্ঠানে করোনা সুরক্ষা সামগ্রী, পিপিই, অক্সিজেন কনসেনট্রেটর, অক্সিজেন সিলিন্ডার, উন্নতমানের মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, অ্যান্টিসেপটিক সাবান, হ্যান্ডওয়াস এবং খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন। এমনকি করোনায় মৃতরোগীর দাফন ও সৎকারে অনেকে এগিয়ে না এলেও তিনি সক্রিয়ভাবে ভূমিকা রেখেছেন। এছাড়াও মাস্ক পরা এবং করোনা ও ডেঙ্গু প্রতিরোধে করণীয় নিয়ে সচেতনতামূলক লিফলেটও নেতাকর্মীদের নিয়ে বিলিয়েছেন সারাদেশে।
সুজিত রায় নন্দী খালেদা জিয়ার দুঃশাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে গিয়ে অগনিত বার পুলিশ ও বিএনপি’র হাতে নির্যাতনের স্বীকার হয়েছেন। মামলা হামলা নির্যাতন সত্বেও এ সাহসী যোদ্ধা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হিসেবে দলীয় সভাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করার লক্ষ্যে তিনি প্রতিনিয়ত রাজনৈতিক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছেন।
সুজিত রায় নন্দী সারাদেশের বিভাগ, জেলা, উপজেলা পর্যায়ে দলের সাংগঠনিক দায়িত্ব পালনে ছুটে গেছেন। নানা গ্রুপিং হটিয়ে তৃণমূলে সম্মেলনের মাধ্যমে তুলে এনেছেন বিতর্কমুক্ত নেতৃত্ব। দলীয় শৃঙ্খলা রক্ষায় সর্বোচ্চ সজাগ ছিলেন। তাই জাতীয় সম্মেলনে দলের এমন সাহসী কর্মীকে মাননীয় প্ৰধানমন্ত্ৰী শেখ হাসিনা সাংগঠনিক মূল্যায়ন করবে এমনটাই সবার প্রত্যাশা।
দৈনিক বাংলাদেশের আলো’র সাথে আলাচকালে সুজিত রায় নন্দী বলেন আমি একজন রাজনৈতিক কর্মি। ১৯৭৭ সাল থেকে ছাত্র রাজনীতির মধ্য দিয়ে আমার রাজনৈতিক পথচলা শুরু হয়। জিয়া ও এরশাদের সামরিক দুঃশাসনের বিরুদ্ধে রাজপথে থেকে আন্দোলন সংগ্রাম পরিচালনা করেছি। পারিবারিক ভাবেই মানুষের সেবা করার শিক্ষা পেয়েছি।
তিনি আরো বলেন, আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে ও বর্তমান আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মানে দলের জন্য কাজ করে যাচ্ছি।’ রাজনীতিতে বঙ্গবন্ধু আদর্শ বুকে ধারণ করে মানুষের বিপদে আপদে জনপ্রতিনিধি হিসেবে পাশে থেকেছি। কখনো নিজেকে নেতা হিসাবে মনে করিনি। কখনও ক্ষমতার অপব্যবহার করিনি। আওয়ামীলীগ মানেই অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফোটানো, আওয়ামী লীগ মানেই আর্ত-মানবতার সেবায় সকলের পাশে থেকে কাজ করা। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ মানেই দেশপ্রেম। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল একটি উন্নত সমৃদ্ধ সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করা। কিন্তু আজ সেই মহান নেতা বঙ্গবন্ধু আমাদের মাঝে বেঁচে নেই। কিন্তু তার সুযোগ্য কন্যা উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বিনির্মাণে গৃহীত পদক্ষেপগুলো বাস্তব করে যাচ্ছে। আমি একজন তৃণমূলের জনপ্রতিনিধি হিসেবে নির্দেশনা অনুযায়ী আমার প্রিয় নেত্রী নির্দেশনা ও চাহিদা অনুযায়ী আমার কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছি। জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতেই উন্নয়ন, অগ্রগতি, সমৃদ্ধি দেশ ও দেশের সার্বভৌমত্ত নিরাপদ।