ঢাকা ১১:২৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইশরাকের বক্তব্যের প্রতিবাদে ছেংগারচর পৌর ছাত্রলীগের বিক্ষোভ

বিএনপির প্রয়াত সাদেক হোসেন খোকার পুত্র ইশরাক হোসেন কর্তৃক যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিলের বিরুদ্ধে ঔদ্ধত্য ও ধৃষ্টতাপূর্ণ বক্তব্যের প্রতিবাদে প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Model Hospital

শুক্রবার বিকেলে মতলব উত্তর উপজেলার ছেংগারচর পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মো. রাজিব মিয়ার নেতৃত্বে ছেংগারচর বাজারে এ প্রতিবাদ সভা, বিক্ষোভ মিছিল ও ইশরাকের কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, যুবলীগের প্রতিটি নেতাকর্মী যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশের আত্মার আত্মীয়।

প্রতিটি নেতাকর্মীর প্রতি রয়েছে তার আলাদা দরদ। তাই যুবলীগের প্রতিটি নেতাকর্মীর প্রতি যদি ইশরাকের মতো কুলাঙ্গার কটুক্তি করে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিল দীর্ঘ চার দশকের বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক যাত্রা। দীর্ঘ এই পথপরিক্রমায় তিনি হামলা-মামলা ও নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। বিএনপির প্রয়াত নেতা সাদেক হোসেন খোকার পুত্র ইশরাক হোসেন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদককে নিয়ে যে ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য প্রদান করেছেন, সেই বক্তব্যের যুবলীগের প্রত্যেকটি নেতাকর্মী ধিক্কার জানায়।

বক্তরা আরো বলেন, দেশবিরোধীরা আজ বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। রাজপথেই এ সকল ষড়যন্ত্রের মোকাবেলা করবে যুবলীগ। বিএনপির নেতাকর্মীরা যদি সাধারণ জনগণের ওপর হামলা করে তাহলে সাধারণ জনগণকে সাথে নিয়ে রাজপথেই তার সমুচিত জবাব দেওয়া হবে। রাজপথ কাউকে ইজারা দেওয়া হয়নি। রাজপথ সর্বদা আওয়ামী লীগ ও মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তির দখলে থাকবে।

ছেংগারচর পৌর ছাত্রলীগ ও ছেংগারচর সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ট্যাগস :

ইশরাকের বক্তব্যের প্রতিবাদে ছেংগারচর পৌর ছাত্রলীগের বিক্ষোভ

আপডেট সময় : ০৪:১১:২৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ এপ্রিল ২০২৩

বিএনপির প্রয়াত সাদেক হোসেন খোকার পুত্র ইশরাক হোসেন কর্তৃক যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিলের বিরুদ্ধে ঔদ্ধত্য ও ধৃষ্টতাপূর্ণ বক্তব্যের প্রতিবাদে প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Model Hospital

শুক্রবার বিকেলে মতলব উত্তর উপজেলার ছেংগারচর পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মো. রাজিব মিয়ার নেতৃত্বে ছেংগারচর বাজারে এ প্রতিবাদ সভা, বিক্ষোভ মিছিল ও ইশরাকের কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, যুবলীগের প্রতিটি নেতাকর্মী যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশের আত্মার আত্মীয়।

প্রতিটি নেতাকর্মীর প্রতি রয়েছে তার আলাদা দরদ। তাই যুবলীগের প্রতিটি নেতাকর্মীর প্রতি যদি ইশরাকের মতো কুলাঙ্গার কটুক্তি করে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিল দীর্ঘ চার দশকের বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক যাত্রা। দীর্ঘ এই পথপরিক্রমায় তিনি হামলা-মামলা ও নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। বিএনপির প্রয়াত নেতা সাদেক হোসেন খোকার পুত্র ইশরাক হোসেন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদককে নিয়ে যে ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য প্রদান করেছেন, সেই বক্তব্যের যুবলীগের প্রত্যেকটি নেতাকর্মী ধিক্কার জানায়।

বক্তরা আরো বলেন, দেশবিরোধীরা আজ বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। রাজপথেই এ সকল ষড়যন্ত্রের মোকাবেলা করবে যুবলীগ। বিএনপির নেতাকর্মীরা যদি সাধারণ জনগণের ওপর হামলা করে তাহলে সাধারণ জনগণকে সাথে নিয়ে রাজপথেই তার সমুচিত জবাব দেওয়া হবে। রাজপথ কাউকে ইজারা দেওয়া হয়নি। রাজপথ সর্বদা আওয়ামী লীগ ও মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তির দখলে থাকবে।

ছেংগারচর পৌর ছাত্রলীগ ও ছেংগারচর সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।