ঢাকা ০৪:৩৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মতলবে মুফতী হজ্ব গ্রুপের প্রায় ৩৩৯ জন হজ্ব যাত্রীদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা

সরকার কর্তৃক অনুমোদিত হজ্ব এজেন্সি ‘মুফতী হজ্ব গ্রুপ’ এর হজ্ব যাত্রীদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Model Hospital

৬ মে শনিবার সকাল থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত মতলব দক্ষিণের কচিকাঁচা স্কুলে এই কর্মশালায় মতলব উত্তর ও দক্ষিণ উপজেলার প্রায় ৩৩৯ জন হজ্ব যাত্রী অংশগ্রহণ করেন।

‘মুফতী হজ্ব গ্রুপ এর মালিক মাওলানা মো. মুহসিন এর ব্যবস্থাপনায় প্রশিক্ষণ কর্মশালায় বক্তৃতা দেন, আলহাজ্ব হযরত মাওলানা মো. খোরশেদ আলম সিরাজী, মুফতী মাওলানা ফেরদাউস আহমেদ, মুফতী মো. এমদাদ হোসেন, রাজনৈতিক নেতা মোঃ কাইয়ুম খান প্রমুখ। মিলাদ ও মুনাজাত পরিচালনা করেন মুফতী নূর মোহাম্মদ কাশেমী।

বক্তারা বলেন, হজ্ব আল্লাহর প্রদত্ত একটা ফরজ আমল। যাদের উপর আল্লাহর তৌফিক আছে তাদের হজ্ব পালন করা ফরজ। তাই যাদের তৌফিক আছে তারা হজ্ব পালন করবেন। হজ্ব পালনের মাধ্যমে আল্লাহর দিদার ও তার রাসূল হজরত মুহাম্মদ স. এর পথ পাওয়া যায়। বক্তারা উপস্থিত সকল হজ্ব যাত্রীদের হজ্বের প্রশিক্ষণ দেন এবং বিভিন্ন বিষয়ে মৌখিক পরামর্শ প্রদান করেন।

প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, প্রশিক্ষণে হজের নিয়ম-কানুন, আবাসন, পরিবহন, চিকিৎসা, কুরবানি ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো অবহিত করা হয়। প্রশিক্ষণ গ্রহণের মাধ্যমে হজ গমণেচ্ছু ব্যক্তিরা সমৃদ্ধ হবেন এবং সফলভাবে হজ পালনে সক্ষম হবেন।

বক্তারা আরো বলেন, হাজিদের কল্যাণে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে। ইসলামের পাঁচটি স্তম্ভের মধ্যে হজ গুরুত্বপূর্ণ। আর্থিকভাবে সামর্থ্য ব্যক্তিকে হজ করা প্রয়োজন। ইসলাম সবসময় শান্তির কথা বলে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

মতলবে মুফতী হজ্ব গ্রুপের প্রায় ৩৩৯ জন হজ্ব যাত্রীদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা

আপডেট সময় : ০৭:৪৬:৪২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ মে ২০২৩

সরকার কর্তৃক অনুমোদিত হজ্ব এজেন্সি ‘মুফতী হজ্ব গ্রুপ’ এর হজ্ব যাত্রীদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Model Hospital

৬ মে শনিবার সকাল থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত মতলব দক্ষিণের কচিকাঁচা স্কুলে এই কর্মশালায় মতলব উত্তর ও দক্ষিণ উপজেলার প্রায় ৩৩৯ জন হজ্ব যাত্রী অংশগ্রহণ করেন।

‘মুফতী হজ্ব গ্রুপ এর মালিক মাওলানা মো. মুহসিন এর ব্যবস্থাপনায় প্রশিক্ষণ কর্মশালায় বক্তৃতা দেন, আলহাজ্ব হযরত মাওলানা মো. খোরশেদ আলম সিরাজী, মুফতী মাওলানা ফেরদাউস আহমেদ, মুফতী মো. এমদাদ হোসেন, রাজনৈতিক নেতা মোঃ কাইয়ুম খান প্রমুখ। মিলাদ ও মুনাজাত পরিচালনা করেন মুফতী নূর মোহাম্মদ কাশেমী।

বক্তারা বলেন, হজ্ব আল্লাহর প্রদত্ত একটা ফরজ আমল। যাদের উপর আল্লাহর তৌফিক আছে তাদের হজ্ব পালন করা ফরজ। তাই যাদের তৌফিক আছে তারা হজ্ব পালন করবেন। হজ্ব পালনের মাধ্যমে আল্লাহর দিদার ও তার রাসূল হজরত মুহাম্মদ স. এর পথ পাওয়া যায়। বক্তারা উপস্থিত সকল হজ্ব যাত্রীদের হজ্বের প্রশিক্ষণ দেন এবং বিভিন্ন বিষয়ে মৌখিক পরামর্শ প্রদান করেন।

প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, প্রশিক্ষণে হজের নিয়ম-কানুন, আবাসন, পরিবহন, চিকিৎসা, কুরবানি ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো অবহিত করা হয়। প্রশিক্ষণ গ্রহণের মাধ্যমে হজ গমণেচ্ছু ব্যক্তিরা সমৃদ্ধ হবেন এবং সফলভাবে হজ পালনে সক্ষম হবেন।

বক্তারা আরো বলেন, হাজিদের কল্যাণে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে। ইসলামের পাঁচটি স্তম্ভের মধ্যে হজ গুরুত্বপূর্ণ। আর্থিকভাবে সামর্থ্য ব্যক্তিকে হজ করা প্রয়োজন। ইসলাম সবসময় শান্তির কথা বলে।