ঢাকা ০৯:৪৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মালয়েশিয়ার মাহসা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদে বাংলাদেশী শিক্ষার্থী ফাইয়াজ নির্বাচিত

  • মুছা তপদার
  • আপডেট সময় : ০৮:২৫:০২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ মে ২০২৩
  • 580
মালয়েশিয়ার স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয় মাহসা ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট রিপ্রেজেন্টেটিভ কাউন্সিল-২০২৩ নির্বাচনে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশী শিক্ষার্থী নির্বাচিত হয়েছেন এস এম ফাইয়াজ আলম।
প্রায় সাত হাজার শিক্ষার্থীকে নিয়ে অনুষ্ঠিত এই নির্বাচনে ‘হেড অব ইন্টারন্যাশনাল ব্যুরো’ পদে জয়লাভ করেন বিশ্ববিদ্যালয়টির আইটি বিভাগে অধ্যয়নরত এই বাংলাদেশী শিক্ষার্থী।
গত সোমবার (১৫ মে) বিশ্ববিদ্যালয়ের হিউম্যানিটি বিল্ডিংয়ে স্পাইন লেভেলের ২য় তলায় স্টুডেন্টস সেন্ট্রাল মিলনায়তনে বিশ্ববিদ্যালয়টির হেড অব স্টুডেন্ট সেন্ট্রাল মিস হেমা এবং অ্যাসিস্ট্যান্ট হেড মিস ফাতিহা ইরা নির্বাচিত ক্যান্ডিডেটদের নাম ঘোষনা করেন।
মালয়েশিয়ার মাহসা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট বশির ইবনে জাফর নব নির্বাচিত ফাইয়াজের বিষয়ে মন্তব্য করে বলেন, আমার নিজের অভিজ্ঞতা থেকে অত্যন্ত দৃঢ়তার সাথে বলতে পারি, ফাইয়াজের এই অর্জনটি তার নিজের জন্য অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে কর্মজীবনে এখানকার অর্জিত অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা তাকে অনেক বেশি এগিয়ে রাখবে।
তাছাড়া নিঃসন্দেহে তার এই অর্জন পুরো বাংলাদেশের মানুষের জন্য একটি গর্বের বিষয় যে সে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে তার নিজের দেশকে বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরার সুযোগ পাচ্ছে তার নেতৃত্বের দ্বারা। বিদেশে পড়তে এলে শিক্ষার্থীদের এমনই হওয়া উচিত। তারা নিজের দেশকে যেমন বিশ্ববাসীর কাছে এগিয়ে রাখবে তেমনই নিজেকেও প্রতিষ্ঠানের সেরা জায়গাটিতে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করবে।
উল্লেখ্য, এস এম ফাইয়াজ আলম ২০২১ সালে বাংলাদেশের চাঁদপুর আলামিন একাডেমি স্কুল এন্ড কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাসের পর উচ্চশিক্ষায় মালয়েশিয়ায় আসেন। তার বাবা মুহা. খাইরুল আলম একজন সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা।
উল্লেখ্য, এক্সট্রাকারিকুলার এক্টিভিটিস এবং আগামীর যোগ্য নেতৃত্ব গড়ার লক্ষে মালয়েশিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে সকল দেশের শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে প্রতি বছর এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে।
এ বছর মোট ১২টি ভিন্ন ভিন্ন পদের জন্য ৫০ জন প্রতিদ্বন্দ্বী নির্বাচনে অংশ নেন। এর মধ্য থেকে অনলাইন এবং সশরীরে ভোটগ্রহণের মাধ্যমে সর্বোচ্চ প্রাপ্ত ভোটের ভিত্তিতে ১২টি পদের জন্য ১২ জনকে নির্বাচিত ঘোষণা করে ইলেকটোরাল কমিটি। আগামী এক বছর বিশ্ববিদ্যালয়টির বিভিন্ন কাজে শিক্ষার্থীদের হয়ে কাজ করবে এই কমিটি।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

উদয়ন প্রিমিয়ার লীগ ফুটবল টুর্নামেন্ট ফাইনাল খেলা ও পুরস্কার বিতরণ সম্পূর্ণ

মালয়েশিয়ার মাহসা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদে বাংলাদেশী শিক্ষার্থী ফাইয়াজ নির্বাচিত

আপডেট সময় : ০৮:২৫:০২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ মে ২০২৩
মালয়েশিয়ার স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয় মাহসা ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট রিপ্রেজেন্টেটিভ কাউন্সিল-২০২৩ নির্বাচনে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশী শিক্ষার্থী নির্বাচিত হয়েছেন এস এম ফাইয়াজ আলম।
প্রায় সাত হাজার শিক্ষার্থীকে নিয়ে অনুষ্ঠিত এই নির্বাচনে ‘হেড অব ইন্টারন্যাশনাল ব্যুরো’ পদে জয়লাভ করেন বিশ্ববিদ্যালয়টির আইটি বিভাগে অধ্যয়নরত এই বাংলাদেশী শিক্ষার্থী।
গত সোমবার (১৫ মে) বিশ্ববিদ্যালয়ের হিউম্যানিটি বিল্ডিংয়ে স্পাইন লেভেলের ২য় তলায় স্টুডেন্টস সেন্ট্রাল মিলনায়তনে বিশ্ববিদ্যালয়টির হেড অব স্টুডেন্ট সেন্ট্রাল মিস হেমা এবং অ্যাসিস্ট্যান্ট হেড মিস ফাতিহা ইরা নির্বাচিত ক্যান্ডিডেটদের নাম ঘোষনা করেন।
মালয়েশিয়ার মাহসা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট বশির ইবনে জাফর নব নির্বাচিত ফাইয়াজের বিষয়ে মন্তব্য করে বলেন, আমার নিজের অভিজ্ঞতা থেকে অত্যন্ত দৃঢ়তার সাথে বলতে পারি, ফাইয়াজের এই অর্জনটি তার নিজের জন্য অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে কর্মজীবনে এখানকার অর্জিত অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা তাকে অনেক বেশি এগিয়ে রাখবে।
তাছাড়া নিঃসন্দেহে তার এই অর্জন পুরো বাংলাদেশের মানুষের জন্য একটি গর্বের বিষয় যে সে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে তার নিজের দেশকে বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরার সুযোগ পাচ্ছে তার নেতৃত্বের দ্বারা। বিদেশে পড়তে এলে শিক্ষার্থীদের এমনই হওয়া উচিত। তারা নিজের দেশকে যেমন বিশ্ববাসীর কাছে এগিয়ে রাখবে তেমনই নিজেকেও প্রতিষ্ঠানের সেরা জায়গাটিতে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করবে।
উল্লেখ্য, এস এম ফাইয়াজ আলম ২০২১ সালে বাংলাদেশের চাঁদপুর আলামিন একাডেমি স্কুল এন্ড কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাসের পর উচ্চশিক্ষায় মালয়েশিয়ায় আসেন। তার বাবা মুহা. খাইরুল আলম একজন সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা।
উল্লেখ্য, এক্সট্রাকারিকুলার এক্টিভিটিস এবং আগামীর যোগ্য নেতৃত্ব গড়ার লক্ষে মালয়েশিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে সকল দেশের শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে প্রতি বছর এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে।
এ বছর মোট ১২টি ভিন্ন ভিন্ন পদের জন্য ৫০ জন প্রতিদ্বন্দ্বী নির্বাচনে অংশ নেন। এর মধ্য থেকে অনলাইন এবং সশরীরে ভোটগ্রহণের মাধ্যমে সর্বোচ্চ প্রাপ্ত ভোটের ভিত্তিতে ১২টি পদের জন্য ১২ জনকে নির্বাচিত ঘোষণা করে ইলেকটোরাল কমিটি। আগামী এক বছর বিশ্ববিদ্যালয়টির বিভিন্ন কাজে শিক্ষার্থীদের হয়ে কাজ করবে এই কমিটি।