ঢাকা ০৩:২৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নীলকমল উচ্চ বিদ্যালয়ের ঘটনাকে কেন্দ্র করে

হাইমচরে বহিরাগত লোক দিয়ে মানববন্ধন, শিক্ষার্থীদের ঘটনা রাজনৈতিক দিকে প্রবাহিত করার পায়তারা

হাইমচর উপজেলার নীলকমল ওচমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের মাঝে ঘটে যাওয়া ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক ভাবে প্রবাহিত করার পায়তারা করছেন একটি রাজনৈতিক মহল। এতে করে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের শিকার হচ্ছেন বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন চেয়ারম্যান প্রার্থী এস এম আল মামুন সুমন। উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক ভাবে সম্মানহানী করার লক্ষে বহিরাগত লোক দিয়ে মানববন্ধন করান রাজনৈতিকমহলটি। মানববন্ধনে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী,  শিক্ষক, অভিভাবক বিহীন, বহিরাগত লোক দিয়ে মানববন্ধন করানোর হয় বলেও অভিযোগ করেছেন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও স্থানীয় লোকজন।
এবিষয়ে বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী মিলন, ১০ম শ্রেনীর ছাত্র মারুফ, ৭ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী জাহিদসহ কয়েকজন শিক্ষার্থী  জানান, আমাদের স্কুলে কয়েকদিন আগে প্রাক্তন শিক্ষার্থী নাসির মাস্টার সহ কয়েকজন বহিরাগত লোক প্রধান শিক্ষককে গালমন্দ করায় আমাদের কয়েকজন শিক্ষার্থী প্রতিবাদ করেন। তখন নাসির মাস্টার ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে ধাক্কা ধাক্কি হয়।
বিদ্যালয়ের সভাপতির মধ্যস্থতায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে। সেখানে সভাপতির সাথে কারও সাথে কোন মারামারি তো দুরের কথা কথাকাটাকটি হয়না। কিন্তু আজ নাসির মাস্টার বহিরাগত লোকজন এনে বিদ্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করেন। এখানে তিনি গন্ডামারা, রামপুর, বিশকাঠালি এলাকা থেকে ভারাটে লোক এনে মানববন্ধন করিয়েছেন।  যা বিদ্যালয়ে ঘটেনি ওনি ত উপাস্থাপন করে সভাপতিকে হেয় করাতে চাইছেন। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।
স্থানীয় গাছ ব্যবসায়ী নজির গাজী জানান, আমি এখানে গাছের কাজ করি দুজন লোক এসে আমাকে টেনে নিয়ে লাইনে দাড় করিয়ে ছবি তুলেন। কিসের মানববন্ধন, কি জন্য মানববন্ধন আমি কিছুই জানি না।
বিদ্যালয়ের ব্যবস্থােনা কমিটির সভাপতি এসএম আল মামুন সুমন জানান, ঐদিন বিদ্যালয়ে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায় ধাক্কা ধাক্কি হয়। সেই ঘটনাকে কিছু সংখ্যক রাজনৈতিক নেতা ভিন্নদিকে প্রবাহিত করার পায়তারা করছেন।
বিষয়টি নিয়ে যেহেতু মামলা হয়েছে আইনগত ভাবে তদন্তের মাধ্যমে সঠিকটা বের হয়ে আসবে। কিন্তু আজ তারা আমাকে হেয় করার জন্য যে মানববন্ধন করেছে এটি সম্পূর্ণ উদ্দেশ্য প্রনিত।
যাদের নিয়ে মানববন্ধন করেছে এরা সব বাহিরের বহিরাগত লোক। বহিরাগত লোক দিয়ে মানববন্ধন করিয়ে আমার সম্মানহানী করার জন্য কাজ করছে একটি রাজনৈতিক মহল।
ট্যাগস :

মতলব উত্তর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নির্বাচিতদের গেজেট প্রকাশ

নীলকমল উচ্চ বিদ্যালয়ের ঘটনাকে কেন্দ্র করে

হাইমচরে বহিরাগত লোক দিয়ে মানববন্ধন, শিক্ষার্থীদের ঘটনা রাজনৈতিক দিকে প্রবাহিত করার পায়তারা

আপডেট সময় : ০৫:০৯:১৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৮ এপ্রিল ২০২৪
হাইমচর উপজেলার নীলকমল ওচমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের মাঝে ঘটে যাওয়া ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক ভাবে প্রবাহিত করার পায়তারা করছেন একটি রাজনৈতিক মহল। এতে করে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের শিকার হচ্ছেন বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন চেয়ারম্যান প্রার্থী এস এম আল মামুন সুমন। উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক ভাবে সম্মানহানী করার লক্ষে বহিরাগত লোক দিয়ে মানববন্ধন করান রাজনৈতিকমহলটি। মানববন্ধনে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী,  শিক্ষক, অভিভাবক বিহীন, বহিরাগত লোক দিয়ে মানববন্ধন করানোর হয় বলেও অভিযোগ করেছেন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও স্থানীয় লোকজন।
এবিষয়ে বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী মিলন, ১০ম শ্রেনীর ছাত্র মারুফ, ৭ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী জাহিদসহ কয়েকজন শিক্ষার্থী  জানান, আমাদের স্কুলে কয়েকদিন আগে প্রাক্তন শিক্ষার্থী নাসির মাস্টার সহ কয়েকজন বহিরাগত লোক প্রধান শিক্ষককে গালমন্দ করায় আমাদের কয়েকজন শিক্ষার্থী প্রতিবাদ করেন। তখন নাসির মাস্টার ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে ধাক্কা ধাক্কি হয়।
বিদ্যালয়ের সভাপতির মধ্যস্থতায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে। সেখানে সভাপতির সাথে কারও সাথে কোন মারামারি তো দুরের কথা কথাকাটাকটি হয়না। কিন্তু আজ নাসির মাস্টার বহিরাগত লোকজন এনে বিদ্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করেন। এখানে তিনি গন্ডামারা, রামপুর, বিশকাঠালি এলাকা থেকে ভারাটে লোক এনে মানববন্ধন করিয়েছেন।  যা বিদ্যালয়ে ঘটেনি ওনি ত উপাস্থাপন করে সভাপতিকে হেয় করাতে চাইছেন। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।
স্থানীয় গাছ ব্যবসায়ী নজির গাজী জানান, আমি এখানে গাছের কাজ করি দুজন লোক এসে আমাকে টেনে নিয়ে লাইনে দাড় করিয়ে ছবি তুলেন। কিসের মানববন্ধন, কি জন্য মানববন্ধন আমি কিছুই জানি না।
বিদ্যালয়ের ব্যবস্থােনা কমিটির সভাপতি এসএম আল মামুন সুমন জানান, ঐদিন বিদ্যালয়ে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায় ধাক্কা ধাক্কি হয়। সেই ঘটনাকে কিছু সংখ্যক রাজনৈতিক নেতা ভিন্নদিকে প্রবাহিত করার পায়তারা করছেন।
বিষয়টি নিয়ে যেহেতু মামলা হয়েছে আইনগত ভাবে তদন্তের মাধ্যমে সঠিকটা বের হয়ে আসবে। কিন্তু আজ তারা আমাকে হেয় করার জন্য যে মানববন্ধন করেছে এটি সম্পূর্ণ উদ্দেশ্য প্রনিত।
যাদের নিয়ে মানববন্ধন করেছে এরা সব বাহিরের বহিরাগত লোক। বহিরাগত লোক দিয়ে মানববন্ধন করিয়ে আমার সম্মানহানী করার জন্য কাজ করছে একটি রাজনৈতিক মহল।