ঢাকা ০৩:২০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মতলব উত্তরে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে দালান নির্মাণের অভিযোগ

মতলব উত্তর ব্যুরো : চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার পশ্চিম গালিম খাঁ গ্রামে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে দালান নির্মাণের চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

Model Hospital

গতবছরের ১০ আগস্ট সুলতান ভূঁইয়ার ছেলে লিয়াকত আলী বাদী হয়ে চাঁদপুর বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করেন। এর প্রেক্ষিতে ওই জায়গার উপর ১৪৫ ধারায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেন আদালত। আগামী ১৩ ফেব্রুয়ারি শোনানীর দিন ধার্য্য করে আদালত। কিন্তু প্রতিপক্ষ মো. ওয়াদুদ ভূঁইয়া আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে নির্মঠু কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। তাই লিয়াকত ভূঁইয়া এ ব্যাপারে মতলব উত্তর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

জানা গেছে, মতলব উত্তরের ২১নং সন্তোষপুর মৌজার সিএস ৩০৭নং এসএ ২৭১ বিএস ৮৮০নং ও খারিজী ১২০৯নং খতিয়ানভুক্ত সাবেক ১৯৬০ বিএস ৪২৭৭ দাগে নাল বর্তমানে ভিটি ৭ শতক জায়গা ক্রয় সুত্রে মালিক হন মৃত. সুলতান ভূঁইয়া। তার ছেলে লিয়াকত ভূঁইয়া ওয়ারিশ সূত্রে মালিক। ওই জায়গায় এই বাড়ির মৃত. গোলাম আলী ভূঁইয়ার ছেলে মোসলেম ভূঁইয়া অবৈধভাবে মালিকানা দাবি করে নির্মাণ করছে। পরবর্তীতে জায়গার প্রকৃত মালিক লিয়াকত ভূঁইয়া বাদী হয়ে মোসলেম ভূঁইয়া, মো. ওয়াদুদ ও মো. ছাদেক এর বিরুদ্ধে মামলা করেন।

বাদী লিয়াকত ভূঁইয়া বলেন, আমার বাবা জীবিত থাকতে এই জায়গা আশ্রাফ আলীর কাছ থেকে ক্রয় করেন। পরবর্তীতে আমি আমার ভাই মোহাম্মদ আলীর নামে বিএস রেকডভুক্ত হয়। দলিল এবং কাগজপত্র অনুযায়ী আমরাই প্রকৃত মালিক। আদালতের নির্দেশে ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার জায়গা পরিমাপ করে গেছেন। প্রতিপক্ষ মোসলেম ভূঁইয়ার এই দাগে কোন জায়গা নেই। আমি আইনের আশ্রয় নিয়েছি, প্রশাসনের কাছে সহায়তা কামনা করছি।

ওয়াদুদ ভূঁইয়া বলেন, আদালতের আদেশ মেনেই নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে যে জমি নিয়ে মামলা করা হয়েছে তার প্রকৃত মালিক আমরা। আমাদের হয়রানি করার জন্য এ মামলা করা হয়েছে। আমি আদালতে ন্যায় বিচার পাবো।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

রমজানের আগেই ‘দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ কমিশন’ দাবি নতুনধারার

মতলব উত্তরে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে দালান নির্মাণের অভিযোগ

আপডেট সময় : ০২:০২:৫৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ৬ ফেব্রুয়ারী ২০২২

মতলব উত্তর ব্যুরো : চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার পশ্চিম গালিম খাঁ গ্রামে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে দালান নির্মাণের চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

Model Hospital

গতবছরের ১০ আগস্ট সুলতান ভূঁইয়ার ছেলে লিয়াকত আলী বাদী হয়ে চাঁদপুর বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করেন। এর প্রেক্ষিতে ওই জায়গার উপর ১৪৫ ধারায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেন আদালত। আগামী ১৩ ফেব্রুয়ারি শোনানীর দিন ধার্য্য করে আদালত। কিন্তু প্রতিপক্ষ মো. ওয়াদুদ ভূঁইয়া আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে নির্মঠু কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। তাই লিয়াকত ভূঁইয়া এ ব্যাপারে মতলব উত্তর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

জানা গেছে, মতলব উত্তরের ২১নং সন্তোষপুর মৌজার সিএস ৩০৭নং এসএ ২৭১ বিএস ৮৮০নং ও খারিজী ১২০৯নং খতিয়ানভুক্ত সাবেক ১৯৬০ বিএস ৪২৭৭ দাগে নাল বর্তমানে ভিটি ৭ শতক জায়গা ক্রয় সুত্রে মালিক হন মৃত. সুলতান ভূঁইয়া। তার ছেলে লিয়াকত ভূঁইয়া ওয়ারিশ সূত্রে মালিক। ওই জায়গায় এই বাড়ির মৃত. গোলাম আলী ভূঁইয়ার ছেলে মোসলেম ভূঁইয়া অবৈধভাবে মালিকানা দাবি করে নির্মাণ করছে। পরবর্তীতে জায়গার প্রকৃত মালিক লিয়াকত ভূঁইয়া বাদী হয়ে মোসলেম ভূঁইয়া, মো. ওয়াদুদ ও মো. ছাদেক এর বিরুদ্ধে মামলা করেন।

বাদী লিয়াকত ভূঁইয়া বলেন, আমার বাবা জীবিত থাকতে এই জায়গা আশ্রাফ আলীর কাছ থেকে ক্রয় করেন। পরবর্তীতে আমি আমার ভাই মোহাম্মদ আলীর নামে বিএস রেকডভুক্ত হয়। দলিল এবং কাগজপত্র অনুযায়ী আমরাই প্রকৃত মালিক। আদালতের নির্দেশে ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার জায়গা পরিমাপ করে গেছেন। প্রতিপক্ষ মোসলেম ভূঁইয়ার এই দাগে কোন জায়গা নেই। আমি আইনের আশ্রয় নিয়েছি, প্রশাসনের কাছে সহায়তা কামনা করছি।

ওয়াদুদ ভূঁইয়া বলেন, আদালতের আদেশ মেনেই নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে যে জমি নিয়ে মামলা করা হয়েছে তার প্রকৃত মালিক আমরা। আমাদের হয়রানি করার জন্য এ মামলা করা হয়েছে। আমি আদালতে ন্যায় বিচার পাবো।