ঢাকা ০৫:০০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মতলব উত্তরে কলাকান্দা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দুই কার্যালয়ে অগ্নিকান্ড ও ভাংচুর

মতলব উত্তর ব্যুরো : চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার কলাকান্দা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে ফেলেছে দুর্বিত্তরা। এর দুইশ’ গজ দুরে চেয়ারম্যান সোবহান সরকার সুভা কর্তৃক নির্মিত আরেকটি কার্যালয় ভাংচুর করা হয়েছে।

Model Hospital

বুধবার দিনগত রাতে এই ঘটনা ঘটলে এলাকায় দুই গ্রুপের মাঝে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ এসে নিয়ন্ত্রণ করে।

পরদিন বৃহস্পতিবার সকালে চাঁদপুর জেলা পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ বিপিএম (বার) ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ঘটনার পর থেকে দশানী এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে। তবে সাধারণ জনগণের মাঝে আতংক সৃষ্টি হয়েছে।

আরও পড়ুন… মতলব উত্তরে আ.লীগ নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

মতলব উত্তর থানার ওসি মুহাম্মদ শাহজাহান কামাল বলেন, রাত ২ টার সময় খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে আধিপত্য বিস্তার কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। পরে অতিরিক্ত পুলিশ ফোর্স মোতায়েন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে।

এদিকে বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয় ইব্রাহিম ছৈয়াল বলেন, আমি ঘাট পাহাড়ার কাজ শেষ করে রাত ২ টার সময় বাড়ি যাওয়ার সময় দেখি আওয়ামী লীগ অফিসের ভিতরে আগুন জ্বলছে। একটু এগিয়ে দেখি সুভা চেয়ারম্যানের লোকজন রাসেল, রাজিব, শামীম, সেন্টু, করিম, ফরহাদ, টিপু ছৈয়াল, বাদল সরকার তারা অফিসে আগুন দিয়েছে। আমি ডাকচিৎকার দিলে তারা দৌড়ে পালিয়ে যায়।

আরও পড়ুন… কলাকান্দা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যালয় পুড়িয়ে দেওয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা রবিউল সরকার, যুবলীগের আহ্বায়ক এসএম মনির, লিটন ভুইয়া, যুবলীগ নেতা রিপন ছৈয়াল সহ এলাকার আরো কয়েকজন বলেন, আমরা এই কলাকান্দা ইউনিয়নবাসী খুবই অত্যাচারীত হচ্ছি। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়ে চেয়ারম্যান সোবহান সরকার সুভা আমাদের উপর অন্যায় ভাবে অত্যাচার করছে। জ্বালাও পোড়াও এবং মামলা হামলা করে নেতাকর্মীদের হয়রানি করছে। আমাদের ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে বসে মিটিং করি সেই অফিসটি জ্বালিয়ে দিয়েছে।

চেয়ারম্যান সোবহান সরকার সুভার অনুসারী আঃ করিম বলেন, চেয়ারম্যানের কোন লোক তাদের অফিস জ্বালায় নি। বরং তারা আমাদের লোকদের মারধর করেছে এবং এসে আমাদের পার্টি অফিস ভাংচুর করেছে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুর শহরে আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পাশে দাঁড়ালো অ্যাড. হুমায়ুন কবির সুমন

মতলব উত্তরে কলাকান্দা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দুই কার্যালয়ে অগ্নিকান্ড ও ভাংচুর

আপডেট সময় : ০২:১৯:৪৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৮ জুলাই ২০২২

মতলব উত্তর ব্যুরো : চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার কলাকান্দা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে ফেলেছে দুর্বিত্তরা। এর দুইশ’ গজ দুরে চেয়ারম্যান সোবহান সরকার সুভা কর্তৃক নির্মিত আরেকটি কার্যালয় ভাংচুর করা হয়েছে।

Model Hospital

বুধবার দিনগত রাতে এই ঘটনা ঘটলে এলাকায় দুই গ্রুপের মাঝে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ এসে নিয়ন্ত্রণ করে।

পরদিন বৃহস্পতিবার সকালে চাঁদপুর জেলা পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ বিপিএম (বার) ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ঘটনার পর থেকে দশানী এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে। তবে সাধারণ জনগণের মাঝে আতংক সৃষ্টি হয়েছে।

আরও পড়ুন… মতলব উত্তরে আ.লীগ নেতার উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

মতলব উত্তর থানার ওসি মুহাম্মদ শাহজাহান কামাল বলেন, রাত ২ টার সময় খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে আধিপত্য বিস্তার কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। পরে অতিরিক্ত পুলিশ ফোর্স মোতায়েন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে।

এদিকে বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয় ইব্রাহিম ছৈয়াল বলেন, আমি ঘাট পাহাড়ার কাজ শেষ করে রাত ২ টার সময় বাড়ি যাওয়ার সময় দেখি আওয়ামী লীগ অফিসের ভিতরে আগুন জ্বলছে। একটু এগিয়ে দেখি সুভা চেয়ারম্যানের লোকজন রাসেল, রাজিব, শামীম, সেন্টু, করিম, ফরহাদ, টিপু ছৈয়াল, বাদল সরকার তারা অফিসে আগুন দিয়েছে। আমি ডাকচিৎকার দিলে তারা দৌড়ে পালিয়ে যায়।

আরও পড়ুন… কলাকান্দা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যালয় পুড়িয়ে দেওয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা রবিউল সরকার, যুবলীগের আহ্বায়ক এসএম মনির, লিটন ভুইয়া, যুবলীগ নেতা রিপন ছৈয়াল সহ এলাকার আরো কয়েকজন বলেন, আমরা এই কলাকান্দা ইউনিয়নবাসী খুবই অত্যাচারীত হচ্ছি। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়ে চেয়ারম্যান সোবহান সরকার সুভা আমাদের উপর অন্যায় ভাবে অত্যাচার করছে। জ্বালাও পোড়াও এবং মামলা হামলা করে নেতাকর্মীদের হয়রানি করছে। আমাদের ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে বসে মিটিং করি সেই অফিসটি জ্বালিয়ে দিয়েছে।

চেয়ারম্যান সোবহান সরকার সুভার অনুসারী আঃ করিম বলেন, চেয়ারম্যানের কোন লোক তাদের অফিস জ্বালায় নি। বরং তারা আমাদের লোকদের মারধর করেছে এবং এসে আমাদের পার্টি অফিস ভাংচুর করেছে।