ঢাকা ০২:০৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

জেলা পরিষদ নির্বাচনে সদর উপজেলায় সদস্য পদে প্রার্থী মুকবুল হোসেন মিয়াজী

গাজী মোঃ ইমাম হাসান : আসন্ন চাঁদপুর জেলা পরিষদ নির্বাচন ২০২২ এর তফসিল ঘোষণার পর থেকেই চেয়ারম্যান, সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদের প্রার্থীদের নিয়ে নির্বাচনী মাঠ বেশ সরব হয়ে উঠেছে। বিভিন্ন প্রার্থীরা জানান দিচ্ছেন নিজের পরিচিতি, ইশতেহার ও কর্মপরিকল্পনা ও বিগত দিনের উন্নয়ন চিত্র।

Model Hospital

এর ধারাবাহিকতায় এবারও প্রার্থী হয়েছেন বিগত জেলা পরিষদের সদস্য মোঃ মুকবুল হোসেন মিয়াজী।চাঁদপুর পৌরসভা, সদর উপজেলা পরিষদ ও ১৪ টি ইউনিয়নের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের ভোটেই জেলা পরিষদ সদস্য পদে নির্বাচনে লড়বেন তিনি।

রাজনৈতিক জীবনে মোঃ মুকবুল হোসেন মিয়াজী সদর থানা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন।দীর্ঘ সময় যুবলীগের নেতৃত্ব প্রদান ও বিগত সময়ে পরিষদের দায়িত্ব পালনের কারনে উপজেলা পরিষদ,পৌরসভা, ও ইউনিয়নের ভোটার ও নেতৃত্বের কাছে বেশ পরিচিত ও জনপ্রিয় প্রার্থী তিনি।

আসছে অক্টোবরের নির্বাচনে জেলা পরিষদের সদস্য পদে আবার ও প্রার্থী হওয়ার ব্যাপারে মোঃ মুকবুল হোসেন মিয়াজী বলেন আমি আওয়ামী লীগের একজন একনিষ্ঠ কর্মী,বঙ্গবন্ধু আদর্শের সৈনিক।সেই আদর্শকেই ধারণ করে সদর থানা যুবলীগ করে জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েছি। আমি বিগত জেলা পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর আমার ওয়ার্ডে প্রায় ৫০ লক্ষ টাকার অধিক কাজ করেছি।

এগুলোর মধ্যে রয়েছে ৪ টি বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মান,বিভিন্ন স্কুল, মাদ্রাসা ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চেয়ার,টেবিলসহ বিভিন্ন শিক্ষা সামগ্রী বিতরন ও সংস্কারের কাজ করেছি।জনগুরুত্বপূর্ণ কালবার্ট,একাধিক মসজিদ, গন সৌচাগাড়,পাকা ঘাটলা,স্ট্রীট লাইট,গন কবরস্থানসহ পরিষদের অর্থায়নে অনেক কাজ করেছি। বিভিন্ন অসহায় মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে শিক্ষা উপকরন প্রদান করেছি।

তিনি আরোও বলেন বিগত বছরে সদস্য হিসাবে আমার কাজগুলো চেষ্টা করেছি শতভাগ সচ্ছতার সাথে করার জন্য।আমার কাজের মূল্যায়ন, সাধারণ মানুষের ভালোবাসা ও নেতাকর্মীদের প্রত্যাশায় আমি আগামী নির্বাচনে আবারও প্রার্থী হয়েছি।আমি জনগণের সেবক হিসেবে থাকতে চাই। মানুষের কল্যাণে জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত কাজ করতে চাই। প্রতিটি মানুষেরই জনপ্রতিনিধিদের কাছে চাওয়া পাওয়া বা অনেক দাবী থাকে।

যেমন সুখে, দুঃখে পাশে থাকা, মানুষের খোঁজ খবর নেয়া। সেই স্থান থেকে আমি বলবো সকলের দোয়া ও ভোটে আমি যদি পুণরায় নির্বাচিত হই তাহলে ভোটার ও সাধারণ জনগণের পাশে থেকে অবশিষ্ট উন্নয়ন কাজ সমাপ্ত করবো। ইনশাআল্লাহ।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

প্রধানমন্ত্রীর বিজয়ের গান গাইলেন সুনামগঞ্জের সাংবাদিক রাজু

জেলা পরিষদ নির্বাচনে সদর উপজেলায় সদস্য পদে প্রার্থী মুকবুল হোসেন মিয়াজী

আপডেট সময় : ০২:২০:২৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ অগাস্ট ২০২২

গাজী মোঃ ইমাম হাসান : আসন্ন চাঁদপুর জেলা পরিষদ নির্বাচন ২০২২ এর তফসিল ঘোষণার পর থেকেই চেয়ারম্যান, সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদের প্রার্থীদের নিয়ে নির্বাচনী মাঠ বেশ সরব হয়ে উঠেছে। বিভিন্ন প্রার্থীরা জানান দিচ্ছেন নিজের পরিচিতি, ইশতেহার ও কর্মপরিকল্পনা ও বিগত দিনের উন্নয়ন চিত্র।

Model Hospital

এর ধারাবাহিকতায় এবারও প্রার্থী হয়েছেন বিগত জেলা পরিষদের সদস্য মোঃ মুকবুল হোসেন মিয়াজী।চাঁদপুর পৌরসভা, সদর উপজেলা পরিষদ ও ১৪ টি ইউনিয়নের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের ভোটেই জেলা পরিষদ সদস্য পদে নির্বাচনে লড়বেন তিনি।

রাজনৈতিক জীবনে মোঃ মুকবুল হোসেন মিয়াজী সদর থানা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন।দীর্ঘ সময় যুবলীগের নেতৃত্ব প্রদান ও বিগত সময়ে পরিষদের দায়িত্ব পালনের কারনে উপজেলা পরিষদ,পৌরসভা, ও ইউনিয়নের ভোটার ও নেতৃত্বের কাছে বেশ পরিচিত ও জনপ্রিয় প্রার্থী তিনি।

আসছে অক্টোবরের নির্বাচনে জেলা পরিষদের সদস্য পদে আবার ও প্রার্থী হওয়ার ব্যাপারে মোঃ মুকবুল হোসেন মিয়াজী বলেন আমি আওয়ামী লীগের একজন একনিষ্ঠ কর্মী,বঙ্গবন্ধু আদর্শের সৈনিক।সেই আদর্শকেই ধারণ করে সদর থানা যুবলীগ করে জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েছি। আমি বিগত জেলা পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর আমার ওয়ার্ডে প্রায় ৫০ লক্ষ টাকার অধিক কাজ করেছি।

এগুলোর মধ্যে রয়েছে ৪ টি বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মান,বিভিন্ন স্কুল, মাদ্রাসা ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চেয়ার,টেবিলসহ বিভিন্ন শিক্ষা সামগ্রী বিতরন ও সংস্কারের কাজ করেছি।জনগুরুত্বপূর্ণ কালবার্ট,একাধিক মসজিদ, গন সৌচাগাড়,পাকা ঘাটলা,স্ট্রীট লাইট,গন কবরস্থানসহ পরিষদের অর্থায়নে অনেক কাজ করেছি। বিভিন্ন অসহায় মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে শিক্ষা উপকরন প্রদান করেছি।

তিনি আরোও বলেন বিগত বছরে সদস্য হিসাবে আমার কাজগুলো চেষ্টা করেছি শতভাগ সচ্ছতার সাথে করার জন্য।আমার কাজের মূল্যায়ন, সাধারণ মানুষের ভালোবাসা ও নেতাকর্মীদের প্রত্যাশায় আমি আগামী নির্বাচনে আবারও প্রার্থী হয়েছি।আমি জনগণের সেবক হিসেবে থাকতে চাই। মানুষের কল্যাণে জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত কাজ করতে চাই। প্রতিটি মানুষেরই জনপ্রতিনিধিদের কাছে চাওয়া পাওয়া বা অনেক দাবী থাকে।

যেমন সুখে, দুঃখে পাশে থাকা, মানুষের খোঁজ খবর নেয়া। সেই স্থান থেকে আমি বলবো সকলের দোয়া ও ভোটে আমি যদি পুণরায় নির্বাচিত হই তাহলে ভোটার ও সাধারণ জনগণের পাশে থেকে অবশিষ্ট উন্নয়ন কাজ সমাপ্ত করবো। ইনশাআল্লাহ।