ঢাকা ০৩:৪২ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

হারুন অর রশিদ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী

সজীব খান : আসন্ন চাঁদপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রী-বার্ষিক সম্মেলনে যুবনেতা মোঃ হারুন অর রশিদ হাওলাদার সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদ প্রার্থী। ইতিমধ্যে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে তিনি তৃনমূলের নেতাকর্মীদের বিষয়টি জানান দিয়েছেন, প্রচার প্রচারনা অব্যাহত রেখেছেন, আওয়ামী লীগ সমর্থীত সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের কাছে যাচ্ছেন।
হারুন অর রশিদ হাওলাদার ১৯৭৫  সাল থেকেই সদর উপজেলা ছাত্রলীগের নের্তৃত্বে ছিলেন, ১৯৮৬ থেকে তিনি সদর থানা যু্বলীগের রাজনীতি করেন, তিনি ১৯৯৩ সালে জেলা যুবলীগের  কার্যকরী কমিটির সদস্য ছিলেন, ২০০৪ সালে জেলা যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন, এবং দীর্ঘদিন জেলা যু্বলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন বলে তিনি জানিয়েছেন।
হারুন অর রশিদ হাওলাদার ৯০ এর স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের সময় মামলা ও হামলা স্বীকার হন, ২০০৪ সালে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে গ্রেনেড হামলার স্বীকার হয়ে অনেক দিন অসুস্থ্য ছিলেন।
দলের বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে তার দীর্ঘ বর্ণাঢ্য রাজনীতিক জীবনে কখনোই দল থেকে বিচ্যুতি হননি, দলের বাহিরে গিয়ে কাজ করেনি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আর্দশ থেকেই আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে আসছেন, দলের বিগত দিনে দুঃসময় রাজপথে থেকে সংগ্রাম করেছেন।
হারুন অর রশিদ বঙ্গবন্ধুর একজন আর্দশ কর্মী হিসেবে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নের্তৃবৃন্দ তাকে মূল্যায়ন করবে বলে তিনি প্রত্যাশা করছেন। হারুন অর রশিদ হাওলাদার, তার রাজনৈতিক জীবনে বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচন থেকে শুরু করে স্থানীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করে বিজয়ী হওয়া পর্যন্ত মাঠে ছিলেন।
হারুন অর রশিদ হালদার বলেন, দীর্ঘদিন রাজনীতি করে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, বাঙালি রাখাল রাজা, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে বিচ্যুতি হইনি, দলের প্রয়োজনে সবসময় আন্দোলন সংগ্রামে অংশগ্রহণ করেছি, নেতৃত্ব দিয়েছি, ছাত্র রাজনীতি থেকে বেড়ে ওঠে এখন পর্যন্ত আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে ওত পথ ভাবে জড়িয়ে আছি, আশা করি আমার দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবন বিচার-বিশ্লেষণ করে নেতৃবৃন্দ আমাকে মূল্যায়ন করবেন, আমি সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হলে, তৃনমূল আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী করে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীকে বিজয়ী করার জন্য নিরলস ভাবে কাজ করবো, বিজয় ছিনিয়ে আনবো ইনশাল্লাহ।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

প্রধানমন্ত্রীর বিজয়ের গান গাইলেন সুনামগঞ্জের সাংবাদিক রাজু

হারুন অর রশিদ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী

আপডেট সময় : ১২:৪৬:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ নভেম্বর ২০২২
সজীব খান : আসন্ন চাঁদপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রী-বার্ষিক সম্মেলনে যুবনেতা মোঃ হারুন অর রশিদ হাওলাদার সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদ প্রার্থী। ইতিমধ্যে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে তিনি তৃনমূলের নেতাকর্মীদের বিষয়টি জানান দিয়েছেন, প্রচার প্রচারনা অব্যাহত রেখেছেন, আওয়ামী লীগ সমর্থীত সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের কাছে যাচ্ছেন।
হারুন অর রশিদ হাওলাদার ১৯৭৫  সাল থেকেই সদর উপজেলা ছাত্রলীগের নের্তৃত্বে ছিলেন, ১৯৮৬ থেকে তিনি সদর থানা যু্বলীগের রাজনীতি করেন, তিনি ১৯৯৩ সালে জেলা যুবলীগের  কার্যকরী কমিটির সদস্য ছিলেন, ২০০৪ সালে জেলা যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন, এবং দীর্ঘদিন জেলা যু্বলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন বলে তিনি জানিয়েছেন।
হারুন অর রশিদ হাওলাদার ৯০ এর স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের সময় মামলা ও হামলা স্বীকার হন, ২০০৪ সালে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে গ্রেনেড হামলার স্বীকার হয়ে অনেক দিন অসুস্থ্য ছিলেন।
দলের বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে তার দীর্ঘ বর্ণাঢ্য রাজনীতিক জীবনে কখনোই দল থেকে বিচ্যুতি হননি, দলের বাহিরে গিয়ে কাজ করেনি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আর্দশ থেকেই আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে আসছেন, দলের বিগত দিনে দুঃসময় রাজপথে থেকে সংগ্রাম করেছেন।
হারুন অর রশিদ বঙ্গবন্ধুর একজন আর্দশ কর্মী হিসেবে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নের্তৃবৃন্দ তাকে মূল্যায়ন করবে বলে তিনি প্রত্যাশা করছেন। হারুন অর রশিদ হাওলাদার, তার রাজনৈতিক জীবনে বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচন থেকে শুরু করে স্থানীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করে বিজয়ী হওয়া পর্যন্ত মাঠে ছিলেন।
হারুন অর রশিদ হালদার বলেন, দীর্ঘদিন রাজনীতি করে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, বাঙালি রাখাল রাজা, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে বিচ্যুতি হইনি, দলের প্রয়োজনে সবসময় আন্দোলন সংগ্রামে অংশগ্রহণ করেছি, নেতৃত্ব দিয়েছি, ছাত্র রাজনীতি থেকে বেড়ে ওঠে এখন পর্যন্ত আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে ওত পথ ভাবে জড়িয়ে আছি, আশা করি আমার দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবন বিচার-বিশ্লেষণ করে নেতৃবৃন্দ আমাকে মূল্যায়ন করবেন, আমি সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হলে, তৃনমূল আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী করে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীকে বিজয়ী করার জন্য নিরলস ভাবে কাজ করবো, বিজয় ছিনিয়ে আনবো ইনশাল্লাহ।