ঢাকা ০৬:০৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ফরিদগঞ্জে ইউপি নির্বাচনে নৌকার ঠাঁই হলো চারে, আনারসের জয়

এস এম ইকবাল : ফরিদগঞ্জের পাইপাড়া দক্ষিন ইউপি নির্বাচনে নৌকার ঠাঁই হলো চারে। স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীক নৌকার চেয়ে ২১৮১ ভোট বেশি পেয়ে নির্বাচি হয়েছেন।

Model Hospital

২৮ নভেম্বর সোমবার সকাল ৮ থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত ওই ইউনিয়নের ১২৭৭৬ জন ভোটর ভোট প্রয়োগ করেন। পাইকপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অবশেষে স্বতন্ত্র প্রার্থী রাজন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। প্রতীক বরাদ্ধের দিন দুই ধপা তার উপর হামলা করে তরুণ এই প্রার্থীকে আলোচনায় এনে দিয়েছেন নৌকা প্রার্থীর অতি উৎসাহি সমর্থকরা। সকল প্রতিবন্ধকতা এড়িয়ে সর্বকনিষ্ট এই প্রার্থী পেলেন সর্বোচ্ছ ভোট। তিনি ৩৫৬৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদন্ধী স্বতন্ত্র প্রার্থী (বিএনপি) মো.হুমায়ুন কবির পেয়েছেন ২৬৩৪ ভোট।

এটাই ফরিদগঞ্জে প্রথম ইভিএম ভোট। ইউনিয়নের ৯টি ভোট কেন্দ্রে ২০ হাজার ৩শ ৩০টি ভোট। এর মধ্যে কাস্টিং ভোট হয়েছে ১২ হাজার ৭শ ৭৬ টি, বাতিল হয়েছে ৪১ টি। এখানে শতকরা প্রায় ৬৩ পার্সেন্ট ভোট পড়েছে।

৭ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে নৌক প্রতীকের প্রার্থী মোহাম্মদ হোসেন মিন্টু পেয়েছেন ১৩৮৮ টি, স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মধ্যে সাবেক চেয়ারম্যান মো. হুমায়ুন কবির কাজী (ঘোড়া) ২৬৩৪ টি, মো. ফারুক আহমেদ (টেলিফোন) ২৫৩৩, হোসাইন আহমেদ রাজন শেখ (আনারস) ৩৫৬৯ ভোট, সাবেক চেয়ারম্যান রমজান আলী খান (চশমা) ৩০৫ ভোট, ইসালামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী মো. হেলাল উদ্দিন (হাতপাখা) ১২৫০ ভোট, কাজী ইকবাল হোসেন পিন্টু (মটর সাইকেল) ১০৫৬ ভোট পেয়েছেন।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

ক্যাব চাঁদপুরের আয়োজনে বাজার পরিস্থিতি ও নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক মত বিনিময় সভা

ফরিদগঞ্জে ইউপি নির্বাচনে নৌকার ঠাঁই হলো চারে, আনারসের জয়

আপডেট সময় : ০২:১৪:৫০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২

এস এম ইকবাল : ফরিদগঞ্জের পাইপাড়া দক্ষিন ইউপি নির্বাচনে নৌকার ঠাঁই হলো চারে। স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীক নৌকার চেয়ে ২১৮১ ভোট বেশি পেয়ে নির্বাচি হয়েছেন।

Model Hospital

২৮ নভেম্বর সোমবার সকাল ৮ থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত ওই ইউনিয়নের ১২৭৭৬ জন ভোটর ভোট প্রয়োগ করেন। পাইকপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অবশেষে স্বতন্ত্র প্রার্থী রাজন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। প্রতীক বরাদ্ধের দিন দুই ধপা তার উপর হামলা করে তরুণ এই প্রার্থীকে আলোচনায় এনে দিয়েছেন নৌকা প্রার্থীর অতি উৎসাহি সমর্থকরা। সকল প্রতিবন্ধকতা এড়িয়ে সর্বকনিষ্ট এই প্রার্থী পেলেন সর্বোচ্ছ ভোট। তিনি ৩৫৬৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদন্ধী স্বতন্ত্র প্রার্থী (বিএনপি) মো.হুমায়ুন কবির পেয়েছেন ২৬৩৪ ভোট।

এটাই ফরিদগঞ্জে প্রথম ইভিএম ভোট। ইউনিয়নের ৯টি ভোট কেন্দ্রে ২০ হাজার ৩শ ৩০টি ভোট। এর মধ্যে কাস্টিং ভোট হয়েছে ১২ হাজার ৭শ ৭৬ টি, বাতিল হয়েছে ৪১ টি। এখানে শতকরা প্রায় ৬৩ পার্সেন্ট ভোট পড়েছে।

৭ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে নৌক প্রতীকের প্রার্থী মোহাম্মদ হোসেন মিন্টু পেয়েছেন ১৩৮৮ টি, স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মধ্যে সাবেক চেয়ারম্যান মো. হুমায়ুন কবির কাজী (ঘোড়া) ২৬৩৪ টি, মো. ফারুক আহমেদ (টেলিফোন) ২৫৩৩, হোসাইন আহমেদ রাজন শেখ (আনারস) ৩৫৬৯ ভোট, সাবেক চেয়ারম্যান রমজান আলী খান (চশমা) ৩০৫ ভোট, ইসালামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী মো. হেলাল উদ্দিন (হাতপাখা) ১২৫০ ভোট, কাজী ইকবাল হোসেন পিন্টু (মটর সাইকেল) ১০৫৬ ভোট পেয়েছেন।