ঢাকা ০৬:২৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

হাইমচরে সর্ব কনিষ্ঠ ইউপি চেয়ারম্যান হলেন শাহাদাত হোসেন সবুজ

মোঃ সাজ্জাদ হোসেন রনি : হাইমচরে এই প্রথম সবচেয়ে কম বয়সে ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন হাইমচর উপজেলার ১নং গাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী শাহাদাত হোসেন সবুজ।
তিনি অল্প বয়সেই জনসমর্থন অর্জন করে নৌকা প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থীকে পরাজিত করে গত ২৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ১০৭ ভোটে জয়লাভ করেন। তার জন্ম ১৯৯৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর ১নং গাজীপুর ইউনিয়নে। তার পিতা মোঃ বাচ্চু পেদা, মাতা জাহানারা বেগম। তিনি পারিবারিকভাবে আওয়ামী পরিবারের সন্তান। তার জেঠা মোঃ শাহজাহান মিয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি।
জানা গেছে, ছোট বেলা থেকেই শাহাদাত হোসেন সবুজ জনকল্যাণে কাজ করার স্বপ্ন দেখতেন। মাদকমুক্ত সমাজ গড়তে তার প্রচারনা অন্যরকম ছিল, মাদকমুক্ত সমাজ গড়ার লক্ষ্যে প্রতিটা এলাকায় যুব সমাজের মধ্যে খেলাধুলার আয়োজন, সামাজিক ভাবে প্রতিরোধ গড়ে তোলা, স্থানীয় মুরব্বিদের সাথে আলোচনা করে কিভাবে সমাজ থেকে মাদক দূর করা যায় সে বিষয়ে সজাগ দৃষ্টি রেখে কাজ করে যাওয়া তার নিত্য দিনের অভ্যাস ছিল। করোনাকালীন সময় থেকে তার এলাকায় অসাধারণ পরিকল্পনায় মানুষকে সচেতন করেন।
অসহায়, হতদরিদ্র মানুষের সহযোগিতা করা, চিকিৎসা সেবায় সহযোগিতা করা তার যেন দৈনিক কর্ম রুটিন হয়ে যায়। আর তারই ধারাবাহিকতায় গাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন চেয়ে ব্যর্থ হলে স্বতন্ত্র প্রার্থী হন তিনি। জনগণের ভালোবাসায় নৌকা প্রতিকের প্রার্থী হাবিবুর রহমান গাজীকে ১০৭ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে চাঁদপুরের দক্ষিণে সর্ব কনিষ্ঠ চেয়ারম্যান মনোনীত হন তিনি।
নেতৃত্বের দিক থেকেও শাহাদাত হোসেন সবুজের ছিল অসাধারণ দক্ষতা। যা স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ সহ অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। উপজেলা পরিষদ সাবেক চেয়ারম্যান শাহজাহান মিয়ার অনুপ্রেরণা ও সহযোগিতায় রাজনীতিতে পদার্পণ করে গাজীপুর ইউনিয়নবাসীকে ভালোবাসায় আবদ্ধ করেছেন শাহাদাত হোসেন সবুজ। আর সে ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়ে গাজীপুরবাসী তাদের প্রিয় নেতৃত্বকে ৫ বছরের জন্য অভিভাবকরূপে গ্রহণ করে নিয়েছে।
নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান শাহাদাত হোসেন সবুজ বলেন, আমার জেঠা শাহজাহান মিয়ার অনুপ্রেরণায় আমি রাজনীতিতে এসে জনগণকে ভালোবাসায় আবদ্ধ করার চেষ্টা করেছি। আজ গাজীপুরবাসী আমার ভালোবাসার মূল্য দিয়েছে। আগামী ৫ টি বছর তাদের সেবক হয়ে ইউনিয়ন পরিষদের সেবা প্রতিটি ভোটারের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিবো- ইনশাআল্লাহ।
আমি কম বয়সী একজন চেয়ারম্যান। খুব কম বয়সেই গাজীপুর ইউনিয়নবাসী আমাকে অনেক বড় দায়িত্ব দিয়েছে। আমি তাদের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। গাজীপুর ইউনিয়নটি নদী ভাঙ্গন কবলিত একটি ইউনিয়ন।
এ ইউনিয়নের সকল নাগরিকের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠিত করতে সর্বদা সচেষ্ট থাকবো।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

ক্যাব চাঁদপুরের আয়োজনে বাজার পরিস্থিতি ও নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক মত বিনিময় সভা

হাইমচরে সর্ব কনিষ্ঠ ইউপি চেয়ারম্যান হলেন শাহাদাত হোসেন সবুজ

আপডেট সময় : ০৪:২৭:৫৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০২২
মোঃ সাজ্জাদ হোসেন রনি : হাইমচরে এই প্রথম সবচেয়ে কম বয়সে ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন হাইমচর উপজেলার ১নং গাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী শাহাদাত হোসেন সবুজ।
তিনি অল্প বয়সেই জনসমর্থন অর্জন করে নৌকা প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থীকে পরাজিত করে গত ২৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ১০৭ ভোটে জয়লাভ করেন। তার জন্ম ১৯৯৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর ১নং গাজীপুর ইউনিয়নে। তার পিতা মোঃ বাচ্চু পেদা, মাতা জাহানারা বেগম। তিনি পারিবারিকভাবে আওয়ামী পরিবারের সন্তান। তার জেঠা মোঃ শাহজাহান মিয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি।
জানা গেছে, ছোট বেলা থেকেই শাহাদাত হোসেন সবুজ জনকল্যাণে কাজ করার স্বপ্ন দেখতেন। মাদকমুক্ত সমাজ গড়তে তার প্রচারনা অন্যরকম ছিল, মাদকমুক্ত সমাজ গড়ার লক্ষ্যে প্রতিটা এলাকায় যুব সমাজের মধ্যে খেলাধুলার আয়োজন, সামাজিক ভাবে প্রতিরোধ গড়ে তোলা, স্থানীয় মুরব্বিদের সাথে আলোচনা করে কিভাবে সমাজ থেকে মাদক দূর করা যায় সে বিষয়ে সজাগ দৃষ্টি রেখে কাজ করে যাওয়া তার নিত্য দিনের অভ্যাস ছিল। করোনাকালীন সময় থেকে তার এলাকায় অসাধারণ পরিকল্পনায় মানুষকে সচেতন করেন।
অসহায়, হতদরিদ্র মানুষের সহযোগিতা করা, চিকিৎসা সেবায় সহযোগিতা করা তার যেন দৈনিক কর্ম রুটিন হয়ে যায়। আর তারই ধারাবাহিকতায় গাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন চেয়ে ব্যর্থ হলে স্বতন্ত্র প্রার্থী হন তিনি। জনগণের ভালোবাসায় নৌকা প্রতিকের প্রার্থী হাবিবুর রহমান গাজীকে ১০৭ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে চাঁদপুরের দক্ষিণে সর্ব কনিষ্ঠ চেয়ারম্যান মনোনীত হন তিনি।
নেতৃত্বের দিক থেকেও শাহাদাত হোসেন সবুজের ছিল অসাধারণ দক্ষতা। যা স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ সহ অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। উপজেলা পরিষদ সাবেক চেয়ারম্যান শাহজাহান মিয়ার অনুপ্রেরণা ও সহযোগিতায় রাজনীতিতে পদার্পণ করে গাজীপুর ইউনিয়নবাসীকে ভালোবাসায় আবদ্ধ করেছেন শাহাদাত হোসেন সবুজ। আর সে ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়ে গাজীপুরবাসী তাদের প্রিয় নেতৃত্বকে ৫ বছরের জন্য অভিভাবকরূপে গ্রহণ করে নিয়েছে।
নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান শাহাদাত হোসেন সবুজ বলেন, আমার জেঠা শাহজাহান মিয়ার অনুপ্রেরণায় আমি রাজনীতিতে এসে জনগণকে ভালোবাসায় আবদ্ধ করার চেষ্টা করেছি। আজ গাজীপুরবাসী আমার ভালোবাসার মূল্য দিয়েছে। আগামী ৫ টি বছর তাদের সেবক হয়ে ইউনিয়ন পরিষদের সেবা প্রতিটি ভোটারের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিবো- ইনশাআল্লাহ।
আমি কম বয়সী একজন চেয়ারম্যান। খুব কম বয়সেই গাজীপুর ইউনিয়নবাসী আমাকে অনেক বড় দায়িত্ব দিয়েছে। আমি তাদের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। গাজীপুর ইউনিয়নটি নদী ভাঙ্গন কবলিত একটি ইউনিয়ন।
এ ইউনিয়নের সকল নাগরিকের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠিত করতে সর্বদা সচেষ্ট থাকবো।