ঢাকা ০৭:৫২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
৬নং কচুয়া উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের ৪নং ওয়ার্ড

কচুয়ায় উপ-নির্বাচনে সাধারণ সদস্য পদে ইউনুছ বিজয়ী

কচুয়া উপজেলার ৬নং কচুয়া উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের ৪নং ওয়ার্ডের সাধারণ সদস্য পদে উপ-নির্বাচনে ইউনুছ (মোরগ প্রতীকে) বিজয়ী হয়েছে। ১৭ জুলাই সোমবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত তেতৈয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে সাধারণ সদস্য পদে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

Model Hospital

নির্বাচনে সাধারণ সদস্য পদে ৬জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করে। ৪নং ওয়ার্ডের মোট ভোটার সংখ্যা ২হাজার ৬শত ৬৫জন। তন্মধ্যে ১হাজার ৬শত ৪৫ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার গ্রয়োগ করেন। কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিজাইডিং অফিসার উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার কেএম সোহেল রানা জানান, নির্বাচনে ইউনুছ (মোরগ) প্রতীকে ৬শত২৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হানিফ মজুমদার (তালা) প্রতীকে পেয়েছে ৫শত৮৯ ভোট। তাছাড়া আবুল হোসেন খান (টিউবওয়েল) প্রতীকে ২শত ৭৭, মো. জামাল হোসেন (ফুটবল) প্রতীকে ১শত১১, মো. শফিকুল ইসলাম (বৈদ্যুতিক পাখা) প্রতীকে ৯, ফজলুর রহমান (ঘুড়ি) প্রতীকে ৫ ভোট পায়। বাতিল ভোট সংখ্যা-২৫।

অবাধ সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন গ্রহণের লক্ষ্যে সার্বক্ষণিকভাবে দায়িত্ব পালন করেন, কচুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. নাজমুল হাসান।

নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করেন, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কাজী আবু বকর সিদ্দিক ও প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্ব পালন উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার কেএম সোহেল রানা। আইন শৃংখলার দায়িত্ব পালন করেন, কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. ইব্রাহীম খলিল ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) হারুন অর রশিদের নেতৃত্বে কচুয়া থানা পুলিশের সদস্যবৃন্দ, আনসার ও গ্রাম পুলিশ।

ফলাফল ঘোষণার পর এক প্রতিক্রিয়ায় বিজয়ী প্রার্থী ইউনুছ বলেন, অবাধ সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহণের ফলে আজ আমি বিজয়ী হয়েছি। এই বিজয় আমার একার নয়, এ বিজয় ৪নং ওয়ার্ডের সকল জনগনের। আমি এই ওয়ার্ডের অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করতে আপনাদের সকলের সহযোগীতা কামনা করছি। সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দেওয়ায় আমি উপজেলা প্রশাসন, থানা প্রশাসন ও সাংবাদিকবৃন্দকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আমি ইউপি চেয়ারম্যান এম. আখতার হোসাইনের নেতৃত্বে আমার ৪নং ওয়ার্ডকে আধুনিক ওয়ার্ডে রূপান্তরিত করতে চাই। আমি চাই এই ওয়ার্ডে কোন অন্যায়, অনিয়ম ও মাদক এর কোন ছোবল না থাকুক।

উল্লেখ্য গত ২০ মার্চ কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন ইউপি সদস্য জসীম উদ্দীন মজুমদার। তার মৃত্যুর পর আসনটি শূণ্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুরে রিমালে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান সুমন

৬নং কচুয়া উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের ৪নং ওয়ার্ড

কচুয়ায় উপ-নির্বাচনে সাধারণ সদস্য পদে ইউনুছ বিজয়ী

আপডেট সময় : ০৯:০০:৪৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুলাই ২০২৩

কচুয়া উপজেলার ৬নং কচুয়া উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের ৪নং ওয়ার্ডের সাধারণ সদস্য পদে উপ-নির্বাচনে ইউনুছ (মোরগ প্রতীকে) বিজয়ী হয়েছে। ১৭ জুলাই সোমবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত তেতৈয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে সাধারণ সদস্য পদে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

Model Hospital

নির্বাচনে সাধারণ সদস্য পদে ৬জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করে। ৪নং ওয়ার্ডের মোট ভোটার সংখ্যা ২হাজার ৬শত ৬৫জন। তন্মধ্যে ১হাজার ৬শত ৪৫ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার গ্রয়োগ করেন। কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিজাইডিং অফিসার উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার কেএম সোহেল রানা জানান, নির্বাচনে ইউনুছ (মোরগ) প্রতীকে ৬শত২৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হানিফ মজুমদার (তালা) প্রতীকে পেয়েছে ৫শত৮৯ ভোট। তাছাড়া আবুল হোসেন খান (টিউবওয়েল) প্রতীকে ২শত ৭৭, মো. জামাল হোসেন (ফুটবল) প্রতীকে ১শত১১, মো. শফিকুল ইসলাম (বৈদ্যুতিক পাখা) প্রতীকে ৯, ফজলুর রহমান (ঘুড়ি) প্রতীকে ৫ ভোট পায়। বাতিল ভোট সংখ্যা-২৫।

অবাধ সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন গ্রহণের লক্ষ্যে সার্বক্ষণিকভাবে দায়িত্ব পালন করেন, কচুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. নাজমুল হাসান।

নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করেন, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কাজী আবু বকর সিদ্দিক ও প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্ব পালন উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার কেএম সোহেল রানা। আইন শৃংখলার দায়িত্ব পালন করেন, কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. ইব্রাহীম খলিল ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) হারুন অর রশিদের নেতৃত্বে কচুয়া থানা পুলিশের সদস্যবৃন্দ, আনসার ও গ্রাম পুলিশ।

ফলাফল ঘোষণার পর এক প্রতিক্রিয়ায় বিজয়ী প্রার্থী ইউনুছ বলেন, অবাধ সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহণের ফলে আজ আমি বিজয়ী হয়েছি। এই বিজয় আমার একার নয়, এ বিজয় ৪নং ওয়ার্ডের সকল জনগনের। আমি এই ওয়ার্ডের অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করতে আপনাদের সকলের সহযোগীতা কামনা করছি। সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দেওয়ায় আমি উপজেলা প্রশাসন, থানা প্রশাসন ও সাংবাদিকবৃন্দকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আমি ইউপি চেয়ারম্যান এম. আখতার হোসাইনের নেতৃত্বে আমার ৪নং ওয়ার্ডকে আধুনিক ওয়ার্ডে রূপান্তরিত করতে চাই। আমি চাই এই ওয়ার্ডে কোন অন্যায়, অনিয়ম ও মাদক এর কোন ছোবল না থাকুক।

উল্লেখ্য গত ২০ মার্চ কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন ইউপি সদস্য জসীম উদ্দীন মজুমদার। তার মৃত্যুর পর আসনটি শূণ্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।