ঢাকা ০৭:৫০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফরিদগঞ্জে সন্তানকে মাদক থেকে পেরাতে না পেরে ত্যাজ্য করলেন মুক্তিযোদ্ধা বাবা

  • এস. এম ইকবাল
  • আপডেট সময় : ০৮:৪৯:৩১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুলাই ২০২৩
  • 762

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে মাদক আসক্ত ছেলে আরিফ হোসেন (৩৮)কে মাদক থেকে পেরাতে না পেরে সংবাদ সম্মেলন করে ছেলেকে ত্যাজ্য ঘোষনা করলেন মুক্তিযোদ্ধা পিতা। ২২ জুলাই শনিবার বিকেলে ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

Model Hospital

মাদক আসক্ত ছেলেকে মাদক থেকে পেরাতে ব্যর্থ হয়ে ফরিদগঞ্জ প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. সহিদ উল্লা তপাদার বলেন, আমার চার ছেলে ও এক মেয়ের মধ্যে ছোট ছেলে গত ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে দূর্ঘটনায় মৃত্যুবরণ করে। উপজেলার সরখাল কমিউনিটি ক্লিনিকে কর্মরত আমরা মেঝ ছেলে মাদক আসক্ত আরিফ হোসেন। সে এলাকার কিছু বখাটে এবং আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষদের সংস্পর্শে আসিয়া মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে। এলাকায় আমার রাজনৈতিক ও সামাজিকভাবে মান সম্মান ক্ষুন্ন করার জন্য এলাকার কিছু কুচক্রীমহল এবং আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের লোকজন আরিফ হোসেনকে তাদের দলে ভিড়িয়ে মাদকাসক্ত করাসহ আমার পিছনে লেলিয়ে দেয়। আরিফকে মাদক সেবন হইতে সরানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হই।

ফলে বাধ্য হয়ে তাকে আমার পরিবারের সকলের সাথে আলোচনা করে আমার পরিবার হইতে পৃথক করে দেই। তাকে আমার স্থাবর অস্থাবর সম্পদ হতে কোন হিস্যা না দিয়া মৌখিক ভাবে বাড়ির সকলের সামনে ত্যাজ্যপুত্র হিসেবে ঘোষনা করি। সর্বশেষ সে ১৯ জুলাই আবারো ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশের হাতে মাদকসহ আটক হওয়ার পর আমি বাধ্য হয়ে আজকে(২২ জুলাই) সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সকলকে জানিয়ে ( আরিফ হোসেনকে) ত্যাজ্য করলাম।

তিনি আরো বলেন, শুধু তাই, আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ ও প্রতিহিংসা পরায়ন লোকজন আমাকে এবং মুক্তিযোদ্ধা সংসদকে জড়িয়ে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচার করছে। সর্বশেষ অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের নিকট দায়ের করা একটি অভিযোগ মিথ্যা ও উদ্দেশ্য প্রনোদিত বলে প্রমানিত হয়।

একই সাথে ত্যাজ্য করা ছেলের দুরাবস্থার জন্য রাজনৈতিক প্রতিপক্ষদের প্রতিহিংসাকে দায়ী করেন তিনি।

এসময় ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. মামুনুর রশিদ পাঠান’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম ফরহাদের পরিচালনায় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. সারোয়ার হোসেন, সহকারি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. সফর আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হামিদ, আওয়ামী লীগনেতা নজরুল ইসলাম পাটওয়ারী।

উল্লেখ্য, সহিদ উল্ল্যা তপাদার টানা কয়েকবার মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমাণ্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

ট্যাগস :

ফরিদগঞ্জে সন্তানকে মাদক থেকে পেরাতে না পেরে ত্যাজ্য করলেন মুক্তিযোদ্ধা বাবা

আপডেট সময় : ০৮:৪৯:৩১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুলাই ২০২৩

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে মাদক আসক্ত ছেলে আরিফ হোসেন (৩৮)কে মাদক থেকে পেরাতে না পেরে সংবাদ সম্মেলন করে ছেলেকে ত্যাজ্য ঘোষনা করলেন মুক্তিযোদ্ধা পিতা। ২২ জুলাই শনিবার বিকেলে ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

Model Hospital

মাদক আসক্ত ছেলেকে মাদক থেকে পেরাতে ব্যর্থ হয়ে ফরিদগঞ্জ প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. সহিদ উল্লা তপাদার বলেন, আমার চার ছেলে ও এক মেয়ের মধ্যে ছোট ছেলে গত ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে দূর্ঘটনায় মৃত্যুবরণ করে। উপজেলার সরখাল কমিউনিটি ক্লিনিকে কর্মরত আমরা মেঝ ছেলে মাদক আসক্ত আরিফ হোসেন। সে এলাকার কিছু বখাটে এবং আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষদের সংস্পর্শে আসিয়া মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে। এলাকায় আমার রাজনৈতিক ও সামাজিকভাবে মান সম্মান ক্ষুন্ন করার জন্য এলাকার কিছু কুচক্রীমহল এবং আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের লোকজন আরিফ হোসেনকে তাদের দলে ভিড়িয়ে মাদকাসক্ত করাসহ আমার পিছনে লেলিয়ে দেয়। আরিফকে মাদক সেবন হইতে সরানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হই।

ফলে বাধ্য হয়ে তাকে আমার পরিবারের সকলের সাথে আলোচনা করে আমার পরিবার হইতে পৃথক করে দেই। তাকে আমার স্থাবর অস্থাবর সম্পদ হতে কোন হিস্যা না দিয়া মৌখিক ভাবে বাড়ির সকলের সামনে ত্যাজ্যপুত্র হিসেবে ঘোষনা করি। সর্বশেষ সে ১৯ জুলাই আবারো ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশের হাতে মাদকসহ আটক হওয়ার পর আমি বাধ্য হয়ে আজকে(২২ জুলাই) সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সকলকে জানিয়ে ( আরিফ হোসেনকে) ত্যাজ্য করলাম।

তিনি আরো বলেন, শুধু তাই, আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ ও প্রতিহিংসা পরায়ন লোকজন আমাকে এবং মুক্তিযোদ্ধা সংসদকে জড়িয়ে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচার করছে। সর্বশেষ অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের নিকট দায়ের করা একটি অভিযোগ মিথ্যা ও উদ্দেশ্য প্রনোদিত বলে প্রমানিত হয়।

একই সাথে ত্যাজ্য করা ছেলের দুরাবস্থার জন্য রাজনৈতিক প্রতিপক্ষদের প্রতিহিংসাকে দায়ী করেন তিনি।

এসময় ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. মামুনুর রশিদ পাঠান’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম ফরহাদের পরিচালনায় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. সারোয়ার হোসেন, সহকারি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. সফর আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হামিদ, আওয়ামী লীগনেতা নজরুল ইসলাম পাটওয়ারী।

উল্লেখ্য, সহিদ উল্ল্যা তপাদার টানা কয়েকবার মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমাণ্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।