ঢাকা ১১:২৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মধ্য শাহতলী কাদেরিয়া সপ্রাবি’র উদ্যোগে মা সমাবেশ অনুষ্ঠিত

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর সদর উপজেলার ৪নং শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ৩০নং মধ্য শাহ্তলী কাদেরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আয়োজনে ভর্তিযোগ্য শতভাগ শিশুকে বিদ্যালয়ে ভর্তি, নিয়মিত উপস্থিতি, ঝরেপড়া রোধ, শতভাগ পাশ ও মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিতকরণে মা সমাবেশ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Model Hospital

২২জুন (বুধবার) বিদ্যালয় মিলনায়তনে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মোসা: তহমিনা আক্তারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক সোহেল রুশদী।

প্রধান অতিথি বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক সোহেল রুশদী বক্তব্যে বলেন, মা সমাবেশ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। শিক্ষার্থী ঝরে পড়া রোধ করতে হবে। এজন্য শিক্ষক-অভিভাবকগণ কাউন্সিলিং করতে হবে। বাচ্চাদের যথাযথ ভাবে পরিচর্যা করতে হবে। অভিভাবকরারা যদি চায় তাহলে, বাচ্চারা সঠিক শিক্ষা লাভ করতে পারবে। মায়েরা হচ্ছে সন্তানের প্রথম শিক্ষক। তাদের চেয়ে বাচ্চাদের ভালো পরিচর্চা কেউ করতে পারেনা। আপনারা মায়েরা সমাবেশে আসছেন, তাই আপনাদের অনেক ধন্যবাদ।

তিনি বলেন, করোনার দু বছর আমরা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনির বলিষ্ঠ উদ্যোগে জোরালোভাবে শিক্ষাকার্যক্রম পুনরায় চালু হয়েছে। এখানে অনেক মেধাবী শিক্ষক রয়েছে। অনেক হাই কোয়ালিটি শিক্ষক আছে এ বিদ্যালয়ে। আপনারা বাড়িতে সন্তানদের খেয়াল রাখবেন।আর্থিক সমস্যার জন্য যেন, কারও পড়ালেখা বন্ধ না হয়। সরকার চাচ্ছে শতভাগ পড়ালেখা নিশ্চিত করতে। বাচ্চারা অসুস্থ্য হলে আপনারা শিক্ষকদের জানাবেন। এখন আইটির যুগ। সরকার প্রাথমিক স্তর থেকেই এগুলো নিশ্চিত করছেন। বতমান সরকার শিক্ষার জন্য সব্বোর্চ্চ গুরুত্ব দিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, এ বিদ্যালয়ের কোন শিক্ষার্থী যদি আর্থিক সমস্যার জন্য পড়াশুনা বিঘ্ন না ঘটে। আমরা তাদের পড়াশুনার বিষয়টি দেখব। কোন শিক্ষার্থী অসুস্থ্য হলে আমাকে জানাবে। আমরা সাধ্যমত ব্যবস্থা গ্রহন করব।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, শাহতলী জিলানী চিশতী কলেজের অধ্যক্ষ মো: হারুন-অর রশিদ, উত্তর শাহতলী জোবাইদা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নয়ন চন্দ্র দাস, জিলানী চিশতী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: মোহসিন উদ্দিন, ২৯নং উত্তর শাহতলী যোবাইদা বালক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: আবুল কালাম আজাদ, ৪নং শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের মহিলা মেম্বার মিসেস ফিরোজা বেগম।

এ সময় বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সহকারি শিক্ষিকা আয়শা আক্তার, সহকারি শিক্ষক মো: নজরুল ইসলাম মিজি, সহকারি শিক্ষিকা মোহসিনা আক্তার, সহকারি শিক্ষিকা রুকাইয়া খাতুন, সহকারি শিক্ষিকা তানজিনা খানম।

এসময় অন্যান্য অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মো: নুর মোহাম্মদ মুন্সি, অভিভাবক কল্পনা রানী, কুলছুমা বেগম, কুহিনুর বেগম, সুরাইয়া বেগম, নাছিমা বেগম, নাজমা বেগম, হাসিনা বেগম, লাখি বেগম, রৌশনারা বেগম, ফারজানা বেগম, নয়ন বেগম, লাভলী বেগমসহ শতাধিক অভিভাবকবৃন্দ।

সমাবেশ শেষে বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক সোহেল রুশদী ও বিদ্যালয়ের যৌথ অর্থায়নে অত্র বিদ্যালয়ের দিনব্যাপী প্রায় ১শ ২জন শিক্ষার্থীর ব্লাডগ্রুপ নির্নয় করা হয়েছে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

নিজের বলার মতো একটা গল্প ফাউন্ডেশন’র চাঁদপুর জেলা শাখার উদ্যোক্তা মিটআপ

মধ্য শাহতলী কাদেরিয়া সপ্রাবি’র উদ্যোগে মা সমাবেশ অনুষ্ঠিত

আপডেট সময় : ০৩:৫৪:২৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ জুন ২০২২

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর সদর উপজেলার ৪নং শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ৩০নং মধ্য শাহ্তলী কাদেরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আয়োজনে ভর্তিযোগ্য শতভাগ শিশুকে বিদ্যালয়ে ভর্তি, নিয়মিত উপস্থিতি, ঝরেপড়া রোধ, শতভাগ পাশ ও মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিতকরণে মা সমাবেশ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Model Hospital

২২জুন (বুধবার) বিদ্যালয় মিলনায়তনে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মোসা: তহমিনা আক্তারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক সোহেল রুশদী।

প্রধান অতিথি বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক সোহেল রুশদী বক্তব্যে বলেন, মা সমাবেশ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। শিক্ষার্থী ঝরে পড়া রোধ করতে হবে। এজন্য শিক্ষক-অভিভাবকগণ কাউন্সিলিং করতে হবে। বাচ্চাদের যথাযথ ভাবে পরিচর্যা করতে হবে। অভিভাবকরারা যদি চায় তাহলে, বাচ্চারা সঠিক শিক্ষা লাভ করতে পারবে। মায়েরা হচ্ছে সন্তানের প্রথম শিক্ষক। তাদের চেয়ে বাচ্চাদের ভালো পরিচর্চা কেউ করতে পারেনা। আপনারা মায়েরা সমাবেশে আসছেন, তাই আপনাদের অনেক ধন্যবাদ।

তিনি বলেন, করোনার দু বছর আমরা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনির বলিষ্ঠ উদ্যোগে জোরালোভাবে শিক্ষাকার্যক্রম পুনরায় চালু হয়েছে। এখানে অনেক মেধাবী শিক্ষক রয়েছে। অনেক হাই কোয়ালিটি শিক্ষক আছে এ বিদ্যালয়ে। আপনারা বাড়িতে সন্তানদের খেয়াল রাখবেন।আর্থিক সমস্যার জন্য যেন, কারও পড়ালেখা বন্ধ না হয়। সরকার চাচ্ছে শতভাগ পড়ালেখা নিশ্চিত করতে। বাচ্চারা অসুস্থ্য হলে আপনারা শিক্ষকদের জানাবেন। এখন আইটির যুগ। সরকার প্রাথমিক স্তর থেকেই এগুলো নিশ্চিত করছেন। বতমান সরকার শিক্ষার জন্য সব্বোর্চ্চ গুরুত্ব দিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, এ বিদ্যালয়ের কোন শিক্ষার্থী যদি আর্থিক সমস্যার জন্য পড়াশুনা বিঘ্ন না ঘটে। আমরা তাদের পড়াশুনার বিষয়টি দেখব। কোন শিক্ষার্থী অসুস্থ্য হলে আমাকে জানাবে। আমরা সাধ্যমত ব্যবস্থা গ্রহন করব।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, শাহতলী জিলানী চিশতী কলেজের অধ্যক্ষ মো: হারুন-অর রশিদ, উত্তর শাহতলী জোবাইদা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নয়ন চন্দ্র দাস, জিলানী চিশতী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: মোহসিন উদ্দিন, ২৯নং উত্তর শাহতলী যোবাইদা বালক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: আবুল কালাম আজাদ, ৪নং শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের মহিলা মেম্বার মিসেস ফিরোজা বেগম।

এ সময় বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সহকারি শিক্ষিকা আয়শা আক্তার, সহকারি শিক্ষক মো: নজরুল ইসলাম মিজি, সহকারি শিক্ষিকা মোহসিনা আক্তার, সহকারি শিক্ষিকা রুকাইয়া খাতুন, সহকারি শিক্ষিকা তানজিনা খানম।

এসময় অন্যান্য অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মো: নুর মোহাম্মদ মুন্সি, অভিভাবক কল্পনা রানী, কুলছুমা বেগম, কুহিনুর বেগম, সুরাইয়া বেগম, নাছিমা বেগম, নাজমা বেগম, হাসিনা বেগম, লাখি বেগম, রৌশনারা বেগম, ফারজানা বেগম, নয়ন বেগম, লাভলী বেগমসহ শতাধিক অভিভাবকবৃন্দ।

সমাবেশ শেষে বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও দৈনিক চাঁদপুর খবর পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক সোহেল রুশদী ও বিদ্যালয়ের যৌথ অর্থায়নে অত্র বিদ্যালয়ের দিনব্যাপী প্রায় ১শ ২জন শিক্ষার্থীর ব্লাডগ্রুপ নির্নয় করা হয়েছে।