ঢাকা ০৯:৫০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মতলব উত্তরে শিক্ষকের ওপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা

মনিরুল ইসলাম মনির : চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার রসুলপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের ওপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। বর্তমানে ওই শিক্ষক হুমায়ুন কবির ও তার মেয়ে উপজেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

Model Hospital

৬ নভেম্বর রবিবার সকালে উপজেলা ক্যাম্পাসে মানববন্ধন এবং বটতলায় প্রতিবাদসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৮২টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এই উপজেলায় স্কুলের কার্যক্রম স্বাভাবিক রেখেই প্রতিবাদে ৫ শতাধিক শিক্ষকের সমাগম ঘটে।

চাঁদপুর জেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি আব্দুল বাতেন প্রধানের সভাপতিত্বে এবং শিক্ষক নেতা আনোয়ারুল কবির ও মাহফুজুর রহমানের সঞ্চালনায় শিক্ষক নেতাদের মধ্যে বক্তবা রাখে-উপজেলা শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি মুজাফ্ফর হোসেন ও ছৈয়দ আহমেদ বুলবুল, মামুনুর রশিদ, নুরে আলম ছিদ্দিকী, কোহিনুর আক্তার, সুখরঞ্জন বিশ্বাস, সালমা পারভীন, কুলসুম আক্তার, খায়ের উদ্দিন, শাহ আলম, আশেকুজ্জামান, তাহমিনা আক্তার, ফরিদ উদ্দিন, মহসীন মিয়া, আব্দুল হালিম, প্রধান শিক্ষক আব্দুল হান্নান, রাজীব ঢালী, শ্যামল কুমার বাড়ৈ প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ৩ নভেম্বর স্কুলে প্রধান শিক্ষক ও পরিচালনা কমিটির সভাপতির দ্বন্ধের তদন্ত কার্যক্রম চলাকালীন সময়ে এসএমসি’র সভাপতি মহিউদ্দিম জামান ও তার সমর্থিত লোকজনরা প্রধান শিক্ষক হুমায়ুন কবির ও তার মেয়েকে বেধড়ক মারধর করে।

স্থানীয় লোকজন প্রধান শিক্ষক হুমায়ুন কবির ও তার মেয়েকে উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে এবং এখনো তারা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীতা ঘোষণা শ্যামলী খানের

মতলব উত্তরে শিক্ষকের ওপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা

আপডেট সময় : ০১:২৮:১১ অপরাহ্ন, রবিবার, ৬ নভেম্বর ২০২২
মনিরুল ইসলাম মনির : চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার রসুলপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের ওপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। বর্তমানে ওই শিক্ষক হুমায়ুন কবির ও তার মেয়ে উপজেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

Model Hospital

৬ নভেম্বর রবিবার সকালে উপজেলা ক্যাম্পাসে মানববন্ধন এবং বটতলায় প্রতিবাদসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৮২টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এই উপজেলায় স্কুলের কার্যক্রম স্বাভাবিক রেখেই প্রতিবাদে ৫ শতাধিক শিক্ষকের সমাগম ঘটে।

চাঁদপুর জেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি আব্দুল বাতেন প্রধানের সভাপতিত্বে এবং শিক্ষক নেতা আনোয়ারুল কবির ও মাহফুজুর রহমানের সঞ্চালনায় শিক্ষক নেতাদের মধ্যে বক্তবা রাখে-উপজেলা শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি মুজাফ্ফর হোসেন ও ছৈয়দ আহমেদ বুলবুল, মামুনুর রশিদ, নুরে আলম ছিদ্দিকী, কোহিনুর আক্তার, সুখরঞ্জন বিশ্বাস, সালমা পারভীন, কুলসুম আক্তার, খায়ের উদ্দিন, শাহ আলম, আশেকুজ্জামান, তাহমিনা আক্তার, ফরিদ উদ্দিন, মহসীন মিয়া, আব্দুল হালিম, প্রধান শিক্ষক আব্দুল হান্নান, রাজীব ঢালী, শ্যামল কুমার বাড়ৈ প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ৩ নভেম্বর স্কুলে প্রধান শিক্ষক ও পরিচালনা কমিটির সভাপতির দ্বন্ধের তদন্ত কার্যক্রম চলাকালীন সময়ে এসএমসি’র সভাপতি মহিউদ্দিম জামান ও তার সমর্থিত লোকজনরা প্রধান শিক্ষক হুমায়ুন কবির ও তার মেয়েকে বেধড়ক মারধর করে।

স্থানীয় লোকজন প্রধান শিক্ষক হুমায়ুন কবির ও তার মেয়েকে উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে এবং এখনো তারা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।