ঢাকা ০১:৫০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় মতলব দক্ষিণের তুষার মজুমদার নিহত 

সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ উপজেলার তুষার মজুমদার (২৫) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। নিহত তুষার উপজেলার ৩নং খাদেরগাঁও ইউনিয়নের ঘিলাতলী গ্রামের মনির মজুমদারের ছেলে।
গতকাল (২৯ মার্চ) বুধবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ৩নং খাদেরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন হাওলাদার।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ১১ মাস আগে সৌদি আরবের একটি কোম্পানির ভিসায় শ্রমিক হিসেবে বিদেশে পাড়ি জমায় তুষার। গেল ২৭ মার্চ ওই কোম্পানির মাধ্যমেই ওমরাহ করতে মদিনা যাচ্ছিলেন তুষার মজুমদার। পথে মধ্যে সৌদি আরবের আসির প্রদেশের আবহা এলাকায় ওমরাহ যাত্রী বহনকারী একটি বাস উল্টে গিয়ে তাতে আগুন ধরে যায়। এতে তুষার মজুমদারসহ ১৮ জন বাংলাদেশী নিহত হয়। নিহত তুষার দুই ভাই, এক বোনের মধ্যে সবার বড় ছিল।
তুষারের সাবেক কর্মস্থলের মালিক ও ঘিলাতলী এলাকার মহন ঢালী জানান, গত ১১ মাস আগে তুষার আমার দোকান থেকে চাকরি ছেড়ে কাজের জন্য সৌদি আরব যায়। সেখান থেকেই সে ওমরা করতে যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়। ইতিমধ্যেই আমরা তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হতে পেরেছি।
স্থানীয়রা বাসিন্দারা জানান, তুষারের বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করার পর থেকে তার পরিবারের একমাত্র উপার্জকারি ছিলেন তুষার। সৌদি আরবে যাওয়ার আগে সে নারায়ণপুর বাজারের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কাজ করতেন। পরে তার মা এনজিও থেকে টাকা তুলে তাকে সৌদি আরবে পাঠায়। আর এ দুর্ঘটনায় একমাত্র উপার্জনকারিকে হারিয়ে পুরো পরিবারটি এখন নিঃস্ব।
৩নং খাদেরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন হাওলাদার বলেন, তুষারের মৃত্যুর খবর শুনে তার বাড়িতে গিয়েছি এবং তার পরিবারের খোঁজ খবর নিয়েছি। তুষার খুবই ভালো ছেলে ছিল। আমি তুষারের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি।
ট্যাগস :

মতলব উত্তর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নির্বাচিতদের গেজেট প্রকাশ

সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় মতলব দক্ষিণের তুষার মজুমদার নিহত 

আপডেট সময় : ০৫:০২:১৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ মার্চ ২০২৩
সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ উপজেলার তুষার মজুমদার (২৫) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। নিহত তুষার উপজেলার ৩নং খাদেরগাঁও ইউনিয়নের ঘিলাতলী গ্রামের মনির মজুমদারের ছেলে।
গতকাল (২৯ মার্চ) বুধবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ৩নং খাদেরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন হাওলাদার।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ১১ মাস আগে সৌদি আরবের একটি কোম্পানির ভিসায় শ্রমিক হিসেবে বিদেশে পাড়ি জমায় তুষার। গেল ২৭ মার্চ ওই কোম্পানির মাধ্যমেই ওমরাহ করতে মদিনা যাচ্ছিলেন তুষার মজুমদার। পথে মধ্যে সৌদি আরবের আসির প্রদেশের আবহা এলাকায় ওমরাহ যাত্রী বহনকারী একটি বাস উল্টে গিয়ে তাতে আগুন ধরে যায়। এতে তুষার মজুমদারসহ ১৮ জন বাংলাদেশী নিহত হয়। নিহত তুষার দুই ভাই, এক বোনের মধ্যে সবার বড় ছিল।
তুষারের সাবেক কর্মস্থলের মালিক ও ঘিলাতলী এলাকার মহন ঢালী জানান, গত ১১ মাস আগে তুষার আমার দোকান থেকে চাকরি ছেড়ে কাজের জন্য সৌদি আরব যায়। সেখান থেকেই সে ওমরা করতে যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়। ইতিমধ্যেই আমরা তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হতে পেরেছি।
স্থানীয়রা বাসিন্দারা জানান, তুষারের বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করার পর থেকে তার পরিবারের একমাত্র উপার্জকারি ছিলেন তুষার। সৌদি আরবে যাওয়ার আগে সে নারায়ণপুর বাজারের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কাজ করতেন। পরে তার মা এনজিও থেকে টাকা তুলে তাকে সৌদি আরবে পাঠায়। আর এ দুর্ঘটনায় একমাত্র উপার্জনকারিকে হারিয়ে পুরো পরিবারটি এখন নিঃস্ব।
৩নং খাদেরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন হাওলাদার বলেন, তুষারের মৃত্যুর খবর শুনে তার বাড়িতে গিয়েছি এবং তার পরিবারের খোঁজ খবর নিয়েছি। তুষার খুবই ভালো ছেলে ছিল। আমি তুষারের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি।