ঢাকা ০৫:২৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শাহরাস্তির ডাকাতিয়ায় অভিযানে চায়না রিং, কারেন্ট ও ভেসালজাল জব্দ

শাহরাস্তিতে ডাকাতিয়ায় প্রশাসনের অভিযানে ৩লক্ষ ২০ হাজার টাকার নিষিদ্ধ কারেন্ট, চায়না রিং ও ভেসাল (ভেল) জাল জব্দ শেষে বিনষ্ট করা হয়েছে।
বুধবার বিকেলে থেকে রাত ৯টা অবধি শাহরাস্তি উপজেলার ডাকাতিয়ার সূচীপাড়া- ছিখুটিয়া নদী অংশে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা মৎস্য অফিসের যৌথ অভিযানে এটি পরিচালনা করা হয়।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সম্প্রতি এক শ্রেণীর অসাধু মৎস্য শিকারি রাত বিরাতে বিভিন্ন নিষিদ্ধ চায়না রিং, কারেন্ট, ভেসাল জাল এবং ইলেকট্রিক শক ডিভাইস ব্যবহার করে মৎস্য আহরণ করে আসছিল। যা সরকার ঘোষিত মৎস্য আইনের পরিপন্থী। ওই হিসেবে ডাকাতিয়ার নাব্যতাকাজে লাগিয়ে এ জলাধারে মাছের প্রজনন ব্যবস্থা বৃদ্ধির লক্ষে উপজেলা প্রশাসন এ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে।
এতে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিসেট্রট (এসি ল্যান্ড) রেজওয়ানা চৌধুরী অভিযানটি পরিচালনা করেন।
ওই সময় মৎস্য সম্পদ রক্ষন আইনে ৩৩ টি চায়না রিং, স্থাপনাজাল সহ ৩টা ভেসাল (বেয়াল) জাল এবং বেড় জাল ৫টা যার আনুমানিক মূল্য ৩লক্ষ ২০ হাজার টাকার জব্দ শেষে আগুনে পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়।
এ সময় এই কাজে সহযোগিতা করেন উপজেলা মৎস অফিসার মো. তৌসিব  উদ্দিন, উপজেলা মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মোহাম্মদ ফারুক আহমেদ, শাহরাস্তি উপজেলা পুলিশ প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও সঙ্গীয় ফোর্স।উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি এক্সিকিউটি ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা চৌধুরী এবং  উপজেলার মৎস্য অফিসার তৌসিব উদ্দিনের এমন অভিযানকে নদীর পাড়ের বাসিন্দা এবং বিশিষ্ট জনরা সাধুবাদ জানিয়েছেন।
প্রশাসনের তরফ থেকেও এমন অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানা গেছে।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

শাহরাস্তির ডাকাতিয়ায় অভিযানে চায়না রিং, কারেন্ট ও ভেসালজাল জব্দ

আপডেট সময় : ০৯:৪৭:২৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৬ জুলাই ২০২৩
শাহরাস্তিতে ডাকাতিয়ায় প্রশাসনের অভিযানে ৩লক্ষ ২০ হাজার টাকার নিষিদ্ধ কারেন্ট, চায়না রিং ও ভেসাল (ভেল) জাল জব্দ শেষে বিনষ্ট করা হয়েছে।
বুধবার বিকেলে থেকে রাত ৯টা অবধি শাহরাস্তি উপজেলার ডাকাতিয়ার সূচীপাড়া- ছিখুটিয়া নদী অংশে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা মৎস্য অফিসের যৌথ অভিযানে এটি পরিচালনা করা হয়।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সম্প্রতি এক শ্রেণীর অসাধু মৎস্য শিকারি রাত বিরাতে বিভিন্ন নিষিদ্ধ চায়না রিং, কারেন্ট, ভেসাল জাল এবং ইলেকট্রিক শক ডিভাইস ব্যবহার করে মৎস্য আহরণ করে আসছিল। যা সরকার ঘোষিত মৎস্য আইনের পরিপন্থী। ওই হিসেবে ডাকাতিয়ার নাব্যতাকাজে লাগিয়ে এ জলাধারে মাছের প্রজনন ব্যবস্থা বৃদ্ধির লক্ষে উপজেলা প্রশাসন এ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে।
এতে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিসেট্রট (এসি ল্যান্ড) রেজওয়ানা চৌধুরী অভিযানটি পরিচালনা করেন।
ওই সময় মৎস্য সম্পদ রক্ষন আইনে ৩৩ টি চায়না রিং, স্থাপনাজাল সহ ৩টা ভেসাল (বেয়াল) জাল এবং বেড় জাল ৫টা যার আনুমানিক মূল্য ৩লক্ষ ২০ হাজার টাকার জব্দ শেষে আগুনে পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়।
এ সময় এই কাজে সহযোগিতা করেন উপজেলা মৎস অফিসার মো. তৌসিব  উদ্দিন, উপজেলা মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মোহাম্মদ ফারুক আহমেদ, শাহরাস্তি উপজেলা পুলিশ প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও সঙ্গীয় ফোর্স।উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি এক্সিকিউটি ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা চৌধুরী এবং  উপজেলার মৎস্য অফিসার তৌসিব উদ্দিনের এমন অভিযানকে নদীর পাড়ের বাসিন্দা এবং বিশিষ্ট জনরা সাধুবাদ জানিয়েছেন।
প্রশাসনের তরফ থেকেও এমন অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানা গেছে।