ঢাকা ০৩:২০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পৌরসভার অব্যস্থাপনা নিয়ে কথা বলায় সাংবাদিক মহিউদ্দিনকে আক্রমণ, নিন্দা

ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি, দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার ফরিদগঞ্জ সংবাদদাতা, সহকারী অধ্যাপক মোঃ মহিউদ্দিন। পৌর এলাকার ভাটিরগাঁও গ্রামের চতুর্থ শ্রেণির ২জন শিক্ষার্থী ও তাদের বাবা-মাকে জুতা পেটার সংবাদ তিনি প্রেরণ করেছেন দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায়। সংবাদ ছাপা হয়েছে সেপ্টেম্বর মাসের ৩ তারিখ সোমবার। এ ছাড়া, পৌরসভার নানান সমস্যা তুলে ধরে সেগুলো সমাধান করার আহ্বান জানিয়ে জনসমাবেশে বক্তব্য রাখেন।
এ সব ঘটনা কেন্দ্র করে সাংবাদিক মহিউদ্দিন এর ওপর চড়াও হন পৌর মেয়র, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটওয়ারী ওতার অনুগতরা। সাংবাদিকের নাম তুলে ৬ই সেপ্টেম্বর বুধবার ও পরদিন বৃহস্পতিবার ফরিদগঞ্জ বাজার ও মহিউদ্দিনের বাড়ি এলাকায় মিছিল করানো হয়েছে। ওই সব মিছিলে ফরিদগঞ্জ পৌরসভার চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী (পরচ্ছিন্নতা কর্মী) নেতৃত্ব দিতে ও অংশ গ্রহণ করতে দেখা গেছে। এর বাইরে কয়েকজন ব্যক্তি ছিলেন।
তারা বলেছেন, আমরা নিরীহ মানুষ মিছিলে আসতে বলেছে, এসেছি। মিছিলে, সাংবাদিকের নাম উচ্চারণ করে অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ গালাগাল করা হয়। তাকে রাজাকার আখ্যা দিয়ে “জয়বাংলা” স্লোগান দেওয়া হয় ও বঙ্গবন্ধুর নাম ব্যবহার করা হয়। মিছিল বের হয় ফরিদগঞ্জ পৌরসভা থেকে, শেষ হয় সেখানে।
সাংবাদিক মোঃ মহিউদ্দিন পৌর  এলাকার ১নং ওয়ার্ডের কেরোয়া মাওলানা আব্দুল মজিদ বাড়ির বাসিন্দা। তিনিসহ পৌর এলাকার শতাধিক লোক পৌরসভার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড নিয়ে চারদিন আগে সভা ও বুধবার বিকালে মানবন্ধন করেন।
এরপর, পৌর মেয়র ক্ষুব্ধ হয়ে সাংবাদিক মোঃ মহিউদ্দিনকে রাজাকার আখ্যা দিয়ে পৌরসভার বিভিন্ন কর্মচারী ও উপকারভোগীদের এনে ফরিদগঞ্জ বাজারে ওই মিছিল করানো হয়। বিক্ষোভ মিছিলে সাংবাদিক মোঃ মহিউদ্দিনের ফাঁসির দাবী জানানো হয়।
মিছিলে অংশ গ্রহণকারী ও পৌরসভার চতুর্থ কর্মচারী মো. শরীফ বলেছেন, আমরা পৌরসভায় চাকরি করি। মেয়র সাহেব উন্নয়ন অনেক করছেন। অথচ, সাংবাদিক মহিউদ্দিন মিথ্যা বক্তব্য দিয়েছেন। তাই, পৌরসভার পক্ষে আমরা মিছিল করেছি।
সাংবদিক মো. মহিউদ্দিন সংবাদ করে ও পৌরসভার উন্নয়নের আহ্বান জানিয়ে সঠিক কাজ করেছেন উল্লেখ করে পৌর এলাকার মো. ছলেমান (৬০), নুরুল আমিন (৫৫), আবদুর রশিদ (৫৮), আলাউদ্দিন (৬২), ছিদ্দিকুর রহমান (৪৮), আবদুল বারেক(৩০), মোতালেব (৬৩), রশিদ (২৫), আমির হোসেন (৬২), সাবেক কা্উন্সিলর ইসমাইল হোসেন শেখ (৪০) প্রমুখ পৌর নাগরিকগণ  সাংবাদিককে নিয়ে কথিত মিছিল ও গালাগাল করার ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুরে লঞ্চে শুরু হয়েছে নাড়ির টানে বাড়ি ফেরা

পৌরসভার অব্যস্থাপনা নিয়ে কথা বলায় সাংবাদিক মহিউদ্দিনকে আক্রমণ, নিন্দা

আপডেট সময় : ১১:১৪:২৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩
ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি, দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার ফরিদগঞ্জ সংবাদদাতা, সহকারী অধ্যাপক মোঃ মহিউদ্দিন। পৌর এলাকার ভাটিরগাঁও গ্রামের চতুর্থ শ্রেণির ২জন শিক্ষার্থী ও তাদের বাবা-মাকে জুতা পেটার সংবাদ তিনি প্রেরণ করেছেন দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকায়। সংবাদ ছাপা হয়েছে সেপ্টেম্বর মাসের ৩ তারিখ সোমবার। এ ছাড়া, পৌরসভার নানান সমস্যা তুলে ধরে সেগুলো সমাধান করার আহ্বান জানিয়ে জনসমাবেশে বক্তব্য রাখেন।
এ সব ঘটনা কেন্দ্র করে সাংবাদিক মহিউদ্দিন এর ওপর চড়াও হন পৌর মেয়র, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটওয়ারী ওতার অনুগতরা। সাংবাদিকের নাম তুলে ৬ই সেপ্টেম্বর বুধবার ও পরদিন বৃহস্পতিবার ফরিদগঞ্জ বাজার ও মহিউদ্দিনের বাড়ি এলাকায় মিছিল করানো হয়েছে। ওই সব মিছিলে ফরিদগঞ্জ পৌরসভার চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী (পরচ্ছিন্নতা কর্মী) নেতৃত্ব দিতে ও অংশ গ্রহণ করতে দেখা গেছে। এর বাইরে কয়েকজন ব্যক্তি ছিলেন।
তারা বলেছেন, আমরা নিরীহ মানুষ মিছিলে আসতে বলেছে, এসেছি। মিছিলে, সাংবাদিকের নাম উচ্চারণ করে অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ গালাগাল করা হয়। তাকে রাজাকার আখ্যা দিয়ে “জয়বাংলা” স্লোগান দেওয়া হয় ও বঙ্গবন্ধুর নাম ব্যবহার করা হয়। মিছিল বের হয় ফরিদগঞ্জ পৌরসভা থেকে, শেষ হয় সেখানে।
সাংবাদিক মোঃ মহিউদ্দিন পৌর  এলাকার ১নং ওয়ার্ডের কেরোয়া মাওলানা আব্দুল মজিদ বাড়ির বাসিন্দা। তিনিসহ পৌর এলাকার শতাধিক লোক পৌরসভার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড নিয়ে চারদিন আগে সভা ও বুধবার বিকালে মানবন্ধন করেন।
এরপর, পৌর মেয়র ক্ষুব্ধ হয়ে সাংবাদিক মোঃ মহিউদ্দিনকে রাজাকার আখ্যা দিয়ে পৌরসভার বিভিন্ন কর্মচারী ও উপকারভোগীদের এনে ফরিদগঞ্জ বাজারে ওই মিছিল করানো হয়। বিক্ষোভ মিছিলে সাংবাদিক মোঃ মহিউদ্দিনের ফাঁসির দাবী জানানো হয়।
মিছিলে অংশ গ্রহণকারী ও পৌরসভার চতুর্থ কর্মচারী মো. শরীফ বলেছেন, আমরা পৌরসভায় চাকরি করি। মেয়র সাহেব উন্নয়ন অনেক করছেন। অথচ, সাংবাদিক মহিউদ্দিন মিথ্যা বক্তব্য দিয়েছেন। তাই, পৌরসভার পক্ষে আমরা মিছিল করেছি।
সাংবদিক মো. মহিউদ্দিন সংবাদ করে ও পৌরসভার উন্নয়নের আহ্বান জানিয়ে সঠিক কাজ করেছেন উল্লেখ করে পৌর এলাকার মো. ছলেমান (৬০), নুরুল আমিন (৫৫), আবদুর রশিদ (৫৮), আলাউদ্দিন (৬২), ছিদ্দিকুর রহমান (৪৮), আবদুল বারেক(৩০), মোতালেব (৬৩), রশিদ (২৫), আমির হোসেন (৬২), সাবেক কা্উন্সিলর ইসমাইল হোসেন শেখ (৪০) প্রমুখ পৌর নাগরিকগণ  সাংবাদিককে নিয়ে কথিত মিছিল ও গালাগাল করার ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।