ঢাকা ০৪:২৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

জেলহাজতে কচুয়ার কয়েদির মৃত্যু

চাঁদপুর জেলহাজতে কচুয়ার নুরুল ইসলাম (৭০) নামের এক কয়েদির মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

Model Hospital

গত ২৮ নভেম্বর দুপুরে উপজেলার পাথৈর ইউনিয়নের আটোমোড় গ্রামের নুরুল ইসলাম মৃত্যবরণ করে।

নিহত নুরুল ইসলামের ছেলে মনির হোসেন জানান- আমার বাবা চাঁদপুর জেলহাজতে থাকা অবস্থায় ৭ নভেম্বর স্ট্রোক করলে জেল কর্তৃপক্ষ চাঁদপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। অবস্থার অবনতি দেখে জেল কর্তৃপক্ষ কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতাল রেফার করলে কতর্ব্যরত ডাঃ উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার জাতীয় হৃদরোগ হাসপাতালে ভর্তি করলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

বৃহস্পতিবার নিহত নুরুল ইসলামের মৃতদেহ তাঁর আটোমোড় গ্রামের বাড়ি নিয়ে আসলে স্বজন ও প্রতিবেশিদের আহাজারিতে শোকের মাতম বিরাজ করে। ওইদিন সকালে আটোমোড় গায়েবি মসজিদ প্রাঙ্গনে জানাজা শেষে তার মৃতদেহ পারিবারিক কবরস্থনে দাফন করা হয়।

নিহত নুরুল ইসলামের মেয়ে শেফালি ও সাহিদা দাবী করেন জানান, আমাদের সম্পত্তি জোরপূর্বক দখল করার জন্য ষড়যন্ত্রভাবে মিথ্যা মামলা দিয়ে আমার বৃদ্ধ বাবাকে জেলহাজতে প্রেরন করে। এঘটনায় সহ্য করতে না পেরে আমার বাবা স্ট্রোক করে মারা যান।

এলাকার সমাজ সেবক কামাল হোসেন মিয়াজী, মাওলানা নুরুল হক ও ফজলুল হক জানান, নিহত নুরুল ইসলাম একজন সৎ ও নিষ্ঠাবান এবং ধার্মিক লোক ছিলেন, তাকে মিথ্যা মামলা দিয়ে নুরুল ইসলামকে ফাঁসানো হয়েছে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুর শহরে আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পাশে দাঁড়ালো অ্যাড. হুমায়ুন কবির সুমন

জেলহাজতে কচুয়ার কয়েদির মৃত্যু

আপডেট সময় : ১১:২৮:৩৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ নভেম্বর ২০২৩

চাঁদপুর জেলহাজতে কচুয়ার নুরুল ইসলাম (৭০) নামের এক কয়েদির মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

Model Hospital

গত ২৮ নভেম্বর দুপুরে উপজেলার পাথৈর ইউনিয়নের আটোমোড় গ্রামের নুরুল ইসলাম মৃত্যবরণ করে।

নিহত নুরুল ইসলামের ছেলে মনির হোসেন জানান- আমার বাবা চাঁদপুর জেলহাজতে থাকা অবস্থায় ৭ নভেম্বর স্ট্রোক করলে জেল কর্তৃপক্ষ চাঁদপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। অবস্থার অবনতি দেখে জেল কর্তৃপক্ষ কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতাল রেফার করলে কতর্ব্যরত ডাঃ উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার জাতীয় হৃদরোগ হাসপাতালে ভর্তি করলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

বৃহস্পতিবার নিহত নুরুল ইসলামের মৃতদেহ তাঁর আটোমোড় গ্রামের বাড়ি নিয়ে আসলে স্বজন ও প্রতিবেশিদের আহাজারিতে শোকের মাতম বিরাজ করে। ওইদিন সকালে আটোমোড় গায়েবি মসজিদ প্রাঙ্গনে জানাজা শেষে তার মৃতদেহ পারিবারিক কবরস্থনে দাফন করা হয়।

নিহত নুরুল ইসলামের মেয়ে শেফালি ও সাহিদা দাবী করেন জানান, আমাদের সম্পত্তি জোরপূর্বক দখল করার জন্য ষড়যন্ত্রভাবে মিথ্যা মামলা দিয়ে আমার বৃদ্ধ বাবাকে জেলহাজতে প্রেরন করে। এঘটনায় সহ্য করতে না পেরে আমার বাবা স্ট্রোক করে মারা যান।

এলাকার সমাজ সেবক কামাল হোসেন মিয়াজী, মাওলানা নুরুল হক ও ফজলুল হক জানান, নিহত নুরুল ইসলাম একজন সৎ ও নিষ্ঠাবান এবং ধার্মিক লোক ছিলেন, তাকে মিথ্যা মামলা দিয়ে নুরুল ইসলামকে ফাঁসানো হয়েছে।