ঢাকা ০৩:৫৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
ফরিদগঞ্জে নারীদের ভোটদানে উদ্বুদ্ধকরণ অনুষ্ঠানে

নারীদের কুসংস্কার ভেঙ্গে আলোর পথে আসতে হবে : পিএসসি সদস্য মাকছুদুর রহমান

  • এস এম ইকবাল
  • আপডেট সময় : ০৭:১৪:১৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২৩
  • 130
চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার রূপসা দক্ষিণ ইউনিয়নে নারী ভোটারদের ভোটদানে উদ্বুদ্ধ করণ নিয়ে নারীদের অংশগ্রহণে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ ইউনিয়নে দেশ স্বাধীনের পর থেকে শুধু ভোট দিতে আসছেন না নারীরা। এ ইউনিয়নে নারী ইউপি সদস্য হচ্ছেন কিন্তু ভোট দিচ্ছেন না।
বৃহষ্পতিবার (৭ডিসেম্বর) বিকালে গৃদকালিন্দিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে চাঁদপুর জেলা প্রশাসক কামরুল হাসানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সাবেক সিনিয়র সচিব বাংলাদেশ কর্ম কমিশনের সদস্য(পিএসসি) মাকছুদুর রহমান পাটওয়ারী।
এসময় তিনি বলেন, আমাদের পবিত্র গ্রন্থ আল কোরআন ও হাদিসে নারী পুরুষের সমাধিকার কথা বলায় হয়েছে। সেখানে ভোটকে পবিত্র আমানত হিসেবে উল্লেখ করে তা সঠিক নেতা নির্বাচনের জন্য প্রয়োগের কথাও বলা হয়েছে। কোথাও নারীরা ভোট দিতে পারবে না একথা নেই। তাই এতদিন ধরে আপনারা যেই কুসংস্কারের মধ্যে আবদ্ধ রয়েছেন, তা ভুল।
তিনি আরো বলেন, বিগত ইউপি নির্বাচনেও কিছু নারী ভোট দিয়েছেন। আমাদের জানামতে কারো কোন ক্ষতি হয়নি। তাই আপনারা পর্দার মধ্যে থেকেই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোট প্রদানের মাধ্যমে সঠিক নেতৃত্ব নির্বাচনে অংশীদার হবেন। কারণ দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। যাতে পুরুষদের পাশপাশি নারীদেরও ভুমিকা রয়েছে। নারীদের কুসংস্কার ভেঙ্গে আলোর পথে আসতে হবে।
সভাপতির বক্তব্য রাখতে গিয়ে জেলা প্রশাসক কামরুল ইসলাম বলেন, ‘পত্রিকার মাধ্যমে আমি জানতে পেরেছি রুপসা দক্ষিণ ইউনিয়নের নারীরা কোনো নির্বাচনেই তাদের ভোট প্রয়োগ করেন না। আমি গভীরভাবে বিশ্বাস করি কোনো আলেম নারীদের ভোট দেওয়া থেকে বিরত থাকতে পরামর্শ দেন নাই। পর্দা রক্ষা করে নারীদের ভোট দেওয়া ধর্মের সঙ্গে সাংঘর্ষিক নয়। নারীরা ভোট দেওয়া থেকে বিরত থাকলে যোগ্য প্রার্থী নির্বাচনে বিরূপ প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা থাকে। অযোগ্য প্রার্থী নির্বাচিত হলে ধর্মীয়ভাবে নারীরাও দায় এড়াতে পারবেন না। দেশের উন্নয়নের স্বার্থে নারীদের ভোট দিতে হবে।
মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয়, জাতীয় মহিলা সংস্থা ও উপজেলা তথ্য কেন্দ্রের আয়োজনে এই উঠান বৈঠকে উপজেলা শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) জহিরুল ইসলামের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম বিপিএম পিপিএম।
এসময় আরো বক্তব্য রাখেন জেলা নিার্বচন কর্মকর্তা তোফায়েল আহমেদ, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) জি এস তছলিম আহমেদ, উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মৌলি মন্ডল, সহকারি কমিশনার (ভূমি) আজিজুন্নাহার, থানা অফিসার ইনচার্জ মো: সাইদুল ইসলাম, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শরীফ হোসেন খান, বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা খন্দকার মোস্তফা কামাল, গৃদকালিন্দিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর হোসেন ও মাও. মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম। এসময় সভায় বিপুল সংখ্যক নারী উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, পুরুষের পাশপাশি সকল কাজ করলেও স্বাধীনতার পর থেকে উপজেলার রূপসা দক্ষিণ ইউনিয়নের নারীরা ওই এলাকার জৈনপুরের পীরের একটি অনুরোধকে ভুল ব্যাখা করে জাতীয় ও স্থানীয় নির্বাচনগুলোতে ভোট প্রদান করছে না। তবে গত এক দশক ধরে প্রশাসনসহ সর্বমহলের প্রচেষ্টায় নামমাত্র সংখ্যক নারী ভোট দিলেও বাকীরা আতংকে ভোট কেন্দ্র আসছে না।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুর শহরে আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পাশে দাঁড়ালো অ্যাড. হুমায়ুন কবির সুমন

ফরিদগঞ্জে নারীদের ভোটদানে উদ্বুদ্ধকরণ অনুষ্ঠানে

নারীদের কুসংস্কার ভেঙ্গে আলোর পথে আসতে হবে : পিএসসি সদস্য মাকছুদুর রহমান

আপডেট সময় : ০৭:১৪:১৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২৩
চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার রূপসা দক্ষিণ ইউনিয়নে নারী ভোটারদের ভোটদানে উদ্বুদ্ধ করণ নিয়ে নারীদের অংশগ্রহণে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ ইউনিয়নে দেশ স্বাধীনের পর থেকে শুধু ভোট দিতে আসছেন না নারীরা। এ ইউনিয়নে নারী ইউপি সদস্য হচ্ছেন কিন্তু ভোট দিচ্ছেন না।
বৃহষ্পতিবার (৭ডিসেম্বর) বিকালে গৃদকালিন্দিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে চাঁদপুর জেলা প্রশাসক কামরুল হাসানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সাবেক সিনিয়র সচিব বাংলাদেশ কর্ম কমিশনের সদস্য(পিএসসি) মাকছুদুর রহমান পাটওয়ারী।
এসময় তিনি বলেন, আমাদের পবিত্র গ্রন্থ আল কোরআন ও হাদিসে নারী পুরুষের সমাধিকার কথা বলায় হয়েছে। সেখানে ভোটকে পবিত্র আমানত হিসেবে উল্লেখ করে তা সঠিক নেতা নির্বাচনের জন্য প্রয়োগের কথাও বলা হয়েছে। কোথাও নারীরা ভোট দিতে পারবে না একথা নেই। তাই এতদিন ধরে আপনারা যেই কুসংস্কারের মধ্যে আবদ্ধ রয়েছেন, তা ভুল।
তিনি আরো বলেন, বিগত ইউপি নির্বাচনেও কিছু নারী ভোট দিয়েছেন। আমাদের জানামতে কারো কোন ক্ষতি হয়নি। তাই আপনারা পর্দার মধ্যে থেকেই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোট প্রদানের মাধ্যমে সঠিক নেতৃত্ব নির্বাচনে অংশীদার হবেন। কারণ দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। যাতে পুরুষদের পাশপাশি নারীদেরও ভুমিকা রয়েছে। নারীদের কুসংস্কার ভেঙ্গে আলোর পথে আসতে হবে।
সভাপতির বক্তব্য রাখতে গিয়ে জেলা প্রশাসক কামরুল ইসলাম বলেন, ‘পত্রিকার মাধ্যমে আমি জানতে পেরেছি রুপসা দক্ষিণ ইউনিয়নের নারীরা কোনো নির্বাচনেই তাদের ভোট প্রয়োগ করেন না। আমি গভীরভাবে বিশ্বাস করি কোনো আলেম নারীদের ভোট দেওয়া থেকে বিরত থাকতে পরামর্শ দেন নাই। পর্দা রক্ষা করে নারীদের ভোট দেওয়া ধর্মের সঙ্গে সাংঘর্ষিক নয়। নারীরা ভোট দেওয়া থেকে বিরত থাকলে যোগ্য প্রার্থী নির্বাচনে বিরূপ প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা থাকে। অযোগ্য প্রার্থী নির্বাচিত হলে ধর্মীয়ভাবে নারীরাও দায় এড়াতে পারবেন না। দেশের উন্নয়নের স্বার্থে নারীদের ভোট দিতে হবে।
মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয়, জাতীয় মহিলা সংস্থা ও উপজেলা তথ্য কেন্দ্রের আয়োজনে এই উঠান বৈঠকে উপজেলা শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) জহিরুল ইসলামের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম বিপিএম পিপিএম।
এসময় আরো বক্তব্য রাখেন জেলা নিার্বচন কর্মকর্তা তোফায়েল আহমেদ, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) জি এস তছলিম আহমেদ, উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মৌলি মন্ডল, সহকারি কমিশনার (ভূমি) আজিজুন্নাহার, থানা অফিসার ইনচার্জ মো: সাইদুল ইসলাম, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শরীফ হোসেন খান, বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা খন্দকার মোস্তফা কামাল, গৃদকালিন্দিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর হোসেন ও মাও. মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম। এসময় সভায় বিপুল সংখ্যক নারী উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, পুরুষের পাশপাশি সকল কাজ করলেও স্বাধীনতার পর থেকে উপজেলার রূপসা দক্ষিণ ইউনিয়নের নারীরা ওই এলাকার জৈনপুরের পীরের একটি অনুরোধকে ভুল ব্যাখা করে জাতীয় ও স্থানীয় নির্বাচনগুলোতে ভোট প্রদান করছে না। তবে গত এক দশক ধরে প্রশাসনসহ সর্বমহলের প্রচেষ্টায় নামমাত্র সংখ্যক নারী ভোট দিলেও বাকীরা আতংকে ভোট কেন্দ্র আসছে না।