ঢাকা ০৭:৪১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মধ্য তরপুচন্ডী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে শহীদ বৃদ্ধিজীবি দিবসে আলোচনা সভা

  • সজীব খান
  • আপডেট সময় : ১২:৫৬:১৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০২৩
  • 140

চাঁদপুর সদর উপজেলার মধ্য তরপুচন্ডী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Model Hospital

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় বিদ্যালয়ের হলরুমে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মিরাতুজ জাহানের সভাপতিত্বে সহকারী শিক্ষিকা মোসাৎ শওকত আরার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার, বীরমুক্তিযুদ্ধা সিরাজুল ইসলাম বরকন্দাজ।

এ সময় বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা মোসাম্মৎ খাদিজা আক্তার, পাপড়ি দেবনাথ, জোহরা আক্তার, উম্মে সালমা জান্নাতুল ফেরদৌস,ফারহানা আক্তার, দেবমানী সরকার,খাদিজা আক্তারসহ বিদ্যালয়ের অভিভাবক ও ছাত্র ছাত্রী উপস্থিত ছিলেন ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি তার বক্তব্য বলেন, ১৯৭১ সালের ১৪ই ডিসেম্বর বাংলাদেশে স্বাধীনতা যুদ্ধের চুড়ান্ত বিজয়ের প্রাক্কালে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী ও তাদের সাথে রাজাকার, আল বদর, আল শামস বাহিনী বাংলাদেশের অসংখ্য শিক্ষাবিদ, গবেষক, চিকিৎসক, প্রকৌশলী, সাংবাদিক, কবি ও সাহিত্যিকদের চোখ বেঁধে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে তাঁদের নির্যাতনের পর হত্যা করে।

বাংলাদেশের মুক্তিবাহিনীর চুড়ান্ত বিজয়ের প্রাক্কালে স্বাধীন বাংলাদেশকে মেধাশূন্য করতে পরিকল্পিতভাবে এ হত্যাযজ্ঞ সংগঠিত হয়। পরবর্তীতে ঢাকার মিরপুর, রায়ের বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে গণকবরে তাঁদের মৃতদেহ পাওয়া যায়।

১৬ই ডিসেম্বর মুক্তিযুদ্ধে বিজয় অর্জনের পর নিকটাত্মীয়রা মিরপুর ও রাজারবাগ বধ্যভূমিতে স্বজনের মৃতদেহ শনাক্ত করেন। তাদের ইতিহাস তোমাদের নতুন প্রজন্মকে ভাল ভাবে জানতে হবে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুরে মাদরাসাতু মুহাম্মদ সাঃ উদ্বোধন

মধ্য তরপুচন্ডী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে শহীদ বৃদ্ধিজীবি দিবসে আলোচনা সভা

আপডেট সময় : ১২:৫৬:১৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০২৩

চাঁদপুর সদর উপজেলার মধ্য তরপুচন্ডী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Model Hospital

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় বিদ্যালয়ের হলরুমে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মিরাতুজ জাহানের সভাপতিত্বে সহকারী শিক্ষিকা মোসাৎ শওকত আরার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার, বীরমুক্তিযুদ্ধা সিরাজুল ইসলাম বরকন্দাজ।

এ সময় বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা মোসাম্মৎ খাদিজা আক্তার, পাপড়ি দেবনাথ, জোহরা আক্তার, উম্মে সালমা জান্নাতুল ফেরদৌস,ফারহানা আক্তার, দেবমানী সরকার,খাদিজা আক্তারসহ বিদ্যালয়ের অভিভাবক ও ছাত্র ছাত্রী উপস্থিত ছিলেন ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি তার বক্তব্য বলেন, ১৯৭১ সালের ১৪ই ডিসেম্বর বাংলাদেশে স্বাধীনতা যুদ্ধের চুড়ান্ত বিজয়ের প্রাক্কালে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী ও তাদের সাথে রাজাকার, আল বদর, আল শামস বাহিনী বাংলাদেশের অসংখ্য শিক্ষাবিদ, গবেষক, চিকিৎসক, প্রকৌশলী, সাংবাদিক, কবি ও সাহিত্যিকদের চোখ বেঁধে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে তাঁদের নির্যাতনের পর হত্যা করে।

বাংলাদেশের মুক্তিবাহিনীর চুড়ান্ত বিজয়ের প্রাক্কালে স্বাধীন বাংলাদেশকে মেধাশূন্য করতে পরিকল্পিতভাবে এ হত্যাযজ্ঞ সংগঠিত হয়। পরবর্তীতে ঢাকার মিরপুর, রায়ের বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে গণকবরে তাঁদের মৃতদেহ পাওয়া যায়।

১৬ই ডিসেম্বর মুক্তিযুদ্ধে বিজয় অর্জনের পর নিকটাত্মীয়রা মিরপুর ও রাজারবাগ বধ্যভূমিতে স্বজনের মৃতদেহ শনাক্ত করেন। তাদের ইতিহাস তোমাদের নতুন প্রজন্মকে ভাল ভাবে জানতে হবে।