ঢাকা ০৩:৩৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শাহরাস্তিতে দেবরের কোদালের কো’পে ভাবির মৃ’ত্যু

চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে সম্পত্তিগত বিরোধের জেরে দেবরের কোদালের কোপে ভাবির মৃত্যু হয়েছে।

Model Hospital

মঙ্গলবার (৭ মে) বেলা আড়াইটায় ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গত ৬ মে সোমবার সকালে উপজেলার মেহের উত্তর ইউনিয়নের বরুলিয়া গ্রামের মিয়াজি বাড়ির মৃত মান্নান মিয়াজির পুত্র মোঃ আঃ রহিম প্রকাশ সাদ্দাম (৩৩) তার আরেক ভাই প্রবাসী মোঃ সোহেল রানার নির্মাণাধীন বসত ঘরের পিলারের গর্ত জোরপূর্বক মাটি দিয়ে ভরাট করে ফেলছিলেন। ওই সময় সোহেল রানার স্ত্রী রুজিনা আক্তার (৩৩) ঘটনাটি ভিডিও কলে স্বামীকে দেখাতে উদ্যত হলে আঃ রহিম তার হাতে থাকা কোদাল দিয়ে রুজিনার মাথায় কোপ দিয়ে গুরুতর আহত করে।

বাড়ির লোকজন তাকে উদ্ধার করে শাহরাস্তি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় সেখান থেকে ঢাকায় পাঠালে মঙ্গলবার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহতের শিশু পুত্র শাহাদাত হোসেন (৮) জানান, কাল সকালে সাদ্দাম কাকা মা কে কোদাল দিয়ে মেরেছে।

নিহতের শাশুড়ী শরীফা খাতুন (৭৫) জানান, ঘটনার সময় আমি সাদ্দামকে বাধা দিতে যাই। এক পর্যায়ে রুজিনার মাথায় কোদালের আঘাত লাগে।

ইউপি সদস্য মোঃ জহিরুল ইসলাম জানান, দেবরের কোদালের কোপে ভাবি আহত হওয়ার পর ঢাকার একটি হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়েছে। নিহতের পিতার পরিবারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শাহরাস্তি মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন জানান, গৃহবধু নিহতের ঘটনায় পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে কাজ করছে। এখন পর্যন্ত কেউ কোন অভিযোগ বা মামলা করে নি।
মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নিহতের মৃতদেহ ঢাকা থেকে এলাকায় আনার প্রস্তুতি চলছিলো।

প্রসঙ্গত, নিহতের বাবার বাড়ি উপজেলার টামটা দক্ষিণ ইউনিয়নের সোনাচোঁ গ্রামে। তিনি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ তাজুল ইসলামের কন্যা।

ট্যাগস :

শাহরাস্তিতে দেবরের কোদালের কো’পে ভাবির মৃ’ত্যু

আপডেট সময় : ১১:৫৪:০২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ মে ২০২৪

চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে সম্পত্তিগত বিরোধের জেরে দেবরের কোদালের কোপে ভাবির মৃত্যু হয়েছে।

Model Hospital

মঙ্গলবার (৭ মে) বেলা আড়াইটায় ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গত ৬ মে সোমবার সকালে উপজেলার মেহের উত্তর ইউনিয়নের বরুলিয়া গ্রামের মিয়াজি বাড়ির মৃত মান্নান মিয়াজির পুত্র মোঃ আঃ রহিম প্রকাশ সাদ্দাম (৩৩) তার আরেক ভাই প্রবাসী মোঃ সোহেল রানার নির্মাণাধীন বসত ঘরের পিলারের গর্ত জোরপূর্বক মাটি দিয়ে ভরাট করে ফেলছিলেন। ওই সময় সোহেল রানার স্ত্রী রুজিনা আক্তার (৩৩) ঘটনাটি ভিডিও কলে স্বামীকে দেখাতে উদ্যত হলে আঃ রহিম তার হাতে থাকা কোদাল দিয়ে রুজিনার মাথায় কোপ দিয়ে গুরুতর আহত করে।

বাড়ির লোকজন তাকে উদ্ধার করে শাহরাস্তি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় সেখান থেকে ঢাকায় পাঠালে মঙ্গলবার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহতের শিশু পুত্র শাহাদাত হোসেন (৮) জানান, কাল সকালে সাদ্দাম কাকা মা কে কোদাল দিয়ে মেরেছে।

নিহতের শাশুড়ী শরীফা খাতুন (৭৫) জানান, ঘটনার সময় আমি সাদ্দামকে বাধা দিতে যাই। এক পর্যায়ে রুজিনার মাথায় কোদালের আঘাত লাগে।

ইউপি সদস্য মোঃ জহিরুল ইসলাম জানান, দেবরের কোদালের কোপে ভাবি আহত হওয়ার পর ঢাকার একটি হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়েছে। নিহতের পিতার পরিবারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শাহরাস্তি মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন জানান, গৃহবধু নিহতের ঘটনায় পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে কাজ করছে। এখন পর্যন্ত কেউ কোন অভিযোগ বা মামলা করে নি।
মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নিহতের মৃতদেহ ঢাকা থেকে এলাকায় আনার প্রস্তুতি চলছিলো।

প্রসঙ্গত, নিহতের বাবার বাড়ি উপজেলার টামটা দক্ষিণ ইউনিয়নের সোনাচোঁ গ্রামে। তিনি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ তাজুল ইসলামের কন্যা।