ঢাকা ১০:৫১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে প্রেমিক গেল কবরে, প্রেমিকা শ্বশুরবাড়ি

নিজস্ব প্রতিনিধি : দীর্ঘদিনের প্রিয় মানুষটির অন্যত্র বিয়ে হয়ে যাচ্ছে- এমন খবর শুনে ক্ষোভ আর অভিমানে ফেসবুক এ পোস্ট করে আত্মহত্যা করেছেন চাঁদপুরের হাজীগঞ্জের যুবক রাহিমুল ইসলাম শুভ (২৫)।

Model Hospital

মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকালে রাজধানীর মিরপুরের একটি মেস থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এর আগে সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে শুভ বলেন, ‘প্রিয়তমা অন্যত্র চলে যাচ্ছে (বিয়ে হয়ে যাচ্ছে)। সুতরাংবেঁচে থেকে আর কোনো লাভ নেই। তাই চিরবিদায় নিয়ে আমিও চলে গেলাম।’

শুভ হাজীগঞ্জ উপজেলার পূর্ব হাঁটিলা গ্রামের মনির হোসেনের ছেলে। তিনি ঢাকার মিরপুর এলাকায় একটি বেসরকারি অফিসে চাকরি করতেন।

স্বজনরা জানান, শুভ তার পাশের গ্রামের একটি মেয়েকে ভালোবাসতেন। দীর্ঘদিন ধরে তাদের দুজনের মধ্যে বেশ ঘনিষ্ঠতাও ছিল। ঢাকার কর্মস্থল থেকে গ্রামের বাড়িতে গেলে শুভ তার পছন্দের মানুষটিকে নিয়ে বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়াতেন। তাছাড়া ফেসবুকে মেয়েটিকে নিয়ে ইতিবাচক পোস্টও দিতেন।

শুভর বাবা মনির হোসেন বলেন, ‘হঠাৎ করে শুভর পছন্দের সেই মেয়ের অভিভাবক অন্যত্র বিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিলে ভেঙে পড়ে শুভ। একপর্যায়ে মেয়েটির অন্যত্র বিয়ের দিন তারিখের খবর পেয়ে ফেসবুকে এসে মনের কষ্টের কথা জানিয়ে পরে সিলিংফ্যানের সঙ্গে গামছা পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে।’

শুভ যাকে ভালোবাসতেন মঙ্গলবার দুপুরে সেই মেয়েটির অন্যত্র বিয়ে হয়ে যায়। অন্যদিকে ঢাকায় পুলিশি কার্যক্রম শেষে গ্রামের বাড়িতে পরিবারের সদস্যদের কাছে শুভর মরদেহ হস্তান্তর করা হয়।

বিকেলেই পারিবারিক গোরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

স্কুলের শ্রেণিকক্ষে ‘আপত্তিকর’ অবস্থায় ছাত্রীসহ প্রধান শিক্ষক আটক

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে প্রেমিক গেল কবরে, প্রেমিকা শ্বশুরবাড়ি

আপডেট সময় : ০৫:৫৯:৪৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২

নিজস্ব প্রতিনিধি : দীর্ঘদিনের প্রিয় মানুষটির অন্যত্র বিয়ে হয়ে যাচ্ছে- এমন খবর শুনে ক্ষোভ আর অভিমানে ফেসবুক এ পোস্ট করে আত্মহত্যা করেছেন চাঁদপুরের হাজীগঞ্জের যুবক রাহিমুল ইসলাম শুভ (২৫)।

Model Hospital

মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকালে রাজধানীর মিরপুরের একটি মেস থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এর আগে সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে শুভ বলেন, ‘প্রিয়তমা অন্যত্র চলে যাচ্ছে (বিয়ে হয়ে যাচ্ছে)। সুতরাংবেঁচে থেকে আর কোনো লাভ নেই। তাই চিরবিদায় নিয়ে আমিও চলে গেলাম।’

শুভ হাজীগঞ্জ উপজেলার পূর্ব হাঁটিলা গ্রামের মনির হোসেনের ছেলে। তিনি ঢাকার মিরপুর এলাকায় একটি বেসরকারি অফিসে চাকরি করতেন।

স্বজনরা জানান, শুভ তার পাশের গ্রামের একটি মেয়েকে ভালোবাসতেন। দীর্ঘদিন ধরে তাদের দুজনের মধ্যে বেশ ঘনিষ্ঠতাও ছিল। ঢাকার কর্মস্থল থেকে গ্রামের বাড়িতে গেলে শুভ তার পছন্দের মানুষটিকে নিয়ে বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়াতেন। তাছাড়া ফেসবুকে মেয়েটিকে নিয়ে ইতিবাচক পোস্টও দিতেন।

শুভর বাবা মনির হোসেন বলেন, ‘হঠাৎ করে শুভর পছন্দের সেই মেয়ের অভিভাবক অন্যত্র বিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিলে ভেঙে পড়ে শুভ। একপর্যায়ে মেয়েটির অন্যত্র বিয়ের দিন তারিখের খবর পেয়ে ফেসবুকে এসে মনের কষ্টের কথা জানিয়ে পরে সিলিংফ্যানের সঙ্গে গামছা পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে।’

শুভ যাকে ভালোবাসতেন মঙ্গলবার দুপুরে সেই মেয়েটির অন্যত্র বিয়ে হয়ে যায়। অন্যদিকে ঢাকায় পুলিশি কার্যক্রম শেষে গ্রামের বাড়িতে পরিবারের সদস্যদের কাছে শুভর মরদেহ হস্তান্তর করা হয়।

বিকেলেই পারিবারিক গোরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।