ঢাকা ০৭:০৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চাঁদপুরে প্রধান শিক্ষককে অস্ত্র ঠেকিয়ে জিম্মি করে নির্বাচনী নথি ছিনতাই

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার ইমামপুর পল্লী মঙ্গল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদকে অস্ত্র ঠেকিয়ে জিম্মি করে নির্বাচনী নথিপত্র ছিনতাইয়ের অভিযোগ উঠেছে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও বর্তমান সভাপতি প্রার্থী হাসান কাইয়ুম চৌধুরী ও অত্র বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সবির আহাম্মদের বিরুদ্ধে।

Model Hospital

এ বিষয়ে মতলব উত্তর থানায় ইমামপুর পল্লী মঙ্গল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ইমামপুর পল্লী মঙ্গল উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক শাখার নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। বর্তমানে সভাপতি নির্বাচনের নোটিশ করা হয়েছে এবং আগামী ২৯ মার্চ নির্ধারণ করা হয়েছে।

সোমবার (২৭ মার্চ) বর্তমান কমিটির সভাপতি এবং সভাপতি পদপ্রার্থী হাসান কাইয়ুম চৌধুরী আনুমানিক দুপুর ১২টায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের অফিস কক্ষে প্রবেশ করেন। তিনি প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদকে অস্ত্র দেখিয়ে জিম্মি করে প্রানে মেরে ফেলার হুমকি দেন। সেই সাথে বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ছবির আহাম্মদ প্রধান শিক্ষকের পকেট থেকে আলমারীর চাবি নিয়ে আলমারি থেকে নির্বাচনী ফাইলটি বের করেন। ফাইল থেকে তিনি মো. মুক্তার হোসেনের মনোনয়ন পত্র এবং প্রত্যাহার পত্রটি নিয়ে যান। তখন প্রধান শিক্ষক বাধা দিলে হাসান কাইয়ুম চৌধুরী এবং তার সহকারী ছবির আহাম্মদ তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেন।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও বর্তমান সভাপতি প্রার্থী হাসান কাইয়ুম চৌধুরীর জানান, আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। আমি সকালে বিদ্যালয়ে গিয়েছিলাম, গিয়ে বিদ্যালয়ের খোঁজ খবর নিয়ে চলে এসেছি। আমি কোন ফাইল পত্র নেইনি।

মতলব উত্তর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও প্রিজাইডিং কর্মকর্তা আ. কাইয়ুম খান জানান, আমাকে ইমামপুর পল্লী মঙ্গল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ ফোনে জানিয়েছেন বিদ্যালয়ের সভাপতি ভয়ভীতি দেখিয়ে অফিস কক্ষ থেকে আলমারীর চাবি নিয়ে আলমারি থেকে নির্বাচনী ফাইলটি বের করে নিয়ে গেছে। আমি বলেছি ৩০ মিনিটের মধ্যে যদি কাগজ ফিরিয়ে না দেয় তাহলে থানা জিডি করতে। তাছাড়া আমি ইউএনও মহোদয়ের সাথে কথা বলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুরে রিমালে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান সুমন

চাঁদপুরে প্রধান শিক্ষককে অস্ত্র ঠেকিয়ে জিম্মি করে নির্বাচনী নথি ছিনতাই

আপডেট সময় : ০৪:১৮:২৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মার্চ ২০২৩

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার ইমামপুর পল্লী মঙ্গল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদকে অস্ত্র ঠেকিয়ে জিম্মি করে নির্বাচনী নথিপত্র ছিনতাইয়ের অভিযোগ উঠেছে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও বর্তমান সভাপতি প্রার্থী হাসান কাইয়ুম চৌধুরী ও অত্র বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সবির আহাম্মদের বিরুদ্ধে।

Model Hospital

এ বিষয়ে মতলব উত্তর থানায় ইমামপুর পল্লী মঙ্গল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ইমামপুর পল্লী মঙ্গল উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক শাখার নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। বর্তমানে সভাপতি নির্বাচনের নোটিশ করা হয়েছে এবং আগামী ২৯ মার্চ নির্ধারণ করা হয়েছে।

সোমবার (২৭ মার্চ) বর্তমান কমিটির সভাপতি এবং সভাপতি পদপ্রার্থী হাসান কাইয়ুম চৌধুরী আনুমানিক দুপুর ১২টায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের অফিস কক্ষে প্রবেশ করেন। তিনি প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদকে অস্ত্র দেখিয়ে জিম্মি করে প্রানে মেরে ফেলার হুমকি দেন। সেই সাথে বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ছবির আহাম্মদ প্রধান শিক্ষকের পকেট থেকে আলমারীর চাবি নিয়ে আলমারি থেকে নির্বাচনী ফাইলটি বের করেন। ফাইল থেকে তিনি মো. মুক্তার হোসেনের মনোনয়ন পত্র এবং প্রত্যাহার পত্রটি নিয়ে যান। তখন প্রধান শিক্ষক বাধা দিলে হাসান কাইয়ুম চৌধুরী এবং তার সহকারী ছবির আহাম্মদ তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেন।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও বর্তমান সভাপতি প্রার্থী হাসান কাইয়ুম চৌধুরীর জানান, আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। আমি সকালে বিদ্যালয়ে গিয়েছিলাম, গিয়ে বিদ্যালয়ের খোঁজ খবর নিয়ে চলে এসেছি। আমি কোন ফাইল পত্র নেইনি।

মতলব উত্তর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও প্রিজাইডিং কর্মকর্তা আ. কাইয়ুম খান জানান, আমাকে ইমামপুর পল্লী মঙ্গল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ ফোনে জানিয়েছেন বিদ্যালয়ের সভাপতি ভয়ভীতি দেখিয়ে অফিস কক্ষ থেকে আলমারীর চাবি নিয়ে আলমারি থেকে নির্বাচনী ফাইলটি বের করে নিয়ে গেছে। আমি বলেছি ৩০ মিনিটের মধ্যে যদি কাগজ ফিরিয়ে না দেয় তাহলে থানা জিডি করতে। তাছাড়া আমি ইউএনও মহোদয়ের সাথে কথা বলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।