ঢাকা ০৫:৫৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ভারতের রপ্তানি বন্ধের খবরে চাঁদপুরে পেঁয়াজের দাম দ্বিগুণ

  • মাসুদ হোসেন
  • আপডেট সময় : ১০:৩৯:৪৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২৩
  • 177
চাঁদপুরে ফের অস্থির হয়েছে পেঁয়াজের বাজার। চাহিদার তুলনায় উৎপাদন, আমদানি ও সরবরাহ পর্যাপ্ত থাকলেও ভারত থেকে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের ঘোষণায় খুচরা বাজারে কেজিপ্রতি ১০০ থেকে ১৫০ টাকা বেড়েছে। বৃদ্ধি পাওয়া দামে এক কেজি দেশি পেঁয়াজ কিনতে স্থান বেদে ক্রেতার ১৫০ থেকে ২২০- ২৩০ টাকা খরচ করতে হচ্ছে। শনিবার (৯ ডিসেম্বর) চাঁদপুরের কয়েকটি খুচরা বাজার ঘুরে ক্রেতা ও বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্য জানা গেছে।
বাজারসংশ্লিষ্টরা বলছেন- ভারত পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করলেও বর্তমানে দেশের বাজারে প্রভাব পড়ার কোনো কারণ নেই। দেশে চাহিদার তুলনায় উৎপাদন ও আমদানি পর্যাপ্ত পরিমাণে হয়েছে। পাশাপাশি নতুন মুড়িকাটা পেঁয়াজ বাজারে উঠতে শুরু করেছে। ফলে এখন দাম বাড়া অযৌক্তিক। তাই তদারকির মাধ্যমে বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। তা না হলে অসাধু মহল আবার পেঁয়াজের দাম নিয়ে ভোক্তাকে নাজেহাল করে ফেলবে।
শুক্রবার সন্ধ্যার পর পাল্টে যায় পেঁয়াজের বাজারের দৃশ্য। হঠাৎ করে বেড়ে যায় কেজি প্রতি ৩০ থেকে ৫০ টাকা। রাতে বাজারে খবর নিয়ে জানা গেছে, ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকায়, আর দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৭০ থেকে ১৮০ টাকায়। তবে শনিবার (৯ ডিসেম্বর) দাম বেড়ে দাড়িয়েছে ২০০ টাকার উপরে। এই দাম বাড়ার কারণ হিসেবে খুচরা ব্যবসায়ীরা বলছেন, ভারত পেয়াজ রপ্তানি নিষিদ্ধ করেছে।
এমন খবর আসতে না আসতেই পেঁয়াজের দাম বেড়ে গেছে। পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। তাই দ্রুত খুচরা বাজারেও বেড়ে গেছে পেঁয়াজের দাম। কোনো আদেশ নিষেধ নয়, নিজেরাই বাড়তি দামে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন খুচরা ব্যবসায়ীরা।
এ বিষয়ে চাঁদপুর জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক নুর হোসেন রুবেল প্রিয় চাঁদপুরকে বলেন, রবিবার থেকে পেঁয়াজের বাজারে অভিযান পরিচালনা করা হবে। তবে ব্যবসায়ীরা কি কারনে পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধি করেছেন তা খতিয়ে দেখা হবে। এবং অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীন সংস্থা ডিরেক্টরেট জেনারেল অব ফরেন ট্রেড পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের নির্দেশনা দিয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার পেঁয়াজ রফতানির নীতিতে গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন এনেছে। বৃহস্পতিবার থেকে রফতানি বন্ধ কার্যকর হয়েছে। আর ৩১ মার্চ পর্যন্ত ভারত থেকে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ থাকবে।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

রমজানের আগেই ‘দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ কমিশন’ দাবি নতুনধারার

ভারতের রপ্তানি বন্ধের খবরে চাঁদপুরে পেঁয়াজের দাম দ্বিগুণ

আপডেট সময় : ১০:৩৯:৪৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২৩
চাঁদপুরে ফের অস্থির হয়েছে পেঁয়াজের বাজার। চাহিদার তুলনায় উৎপাদন, আমদানি ও সরবরাহ পর্যাপ্ত থাকলেও ভারত থেকে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের ঘোষণায় খুচরা বাজারে কেজিপ্রতি ১০০ থেকে ১৫০ টাকা বেড়েছে। বৃদ্ধি পাওয়া দামে এক কেজি দেশি পেঁয়াজ কিনতে স্থান বেদে ক্রেতার ১৫০ থেকে ২২০- ২৩০ টাকা খরচ করতে হচ্ছে। শনিবার (৯ ডিসেম্বর) চাঁদপুরের কয়েকটি খুচরা বাজার ঘুরে ক্রেতা ও বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্য জানা গেছে।
বাজারসংশ্লিষ্টরা বলছেন- ভারত পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করলেও বর্তমানে দেশের বাজারে প্রভাব পড়ার কোনো কারণ নেই। দেশে চাহিদার তুলনায় উৎপাদন ও আমদানি পর্যাপ্ত পরিমাণে হয়েছে। পাশাপাশি নতুন মুড়িকাটা পেঁয়াজ বাজারে উঠতে শুরু করেছে। ফলে এখন দাম বাড়া অযৌক্তিক। তাই তদারকির মাধ্যমে বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। তা না হলে অসাধু মহল আবার পেঁয়াজের দাম নিয়ে ভোক্তাকে নাজেহাল করে ফেলবে।
শুক্রবার সন্ধ্যার পর পাল্টে যায় পেঁয়াজের বাজারের দৃশ্য। হঠাৎ করে বেড়ে যায় কেজি প্রতি ৩০ থেকে ৫০ টাকা। রাতে বাজারে খবর নিয়ে জানা গেছে, ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকায়, আর দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৭০ থেকে ১৮০ টাকায়। তবে শনিবার (৯ ডিসেম্বর) দাম বেড়ে দাড়িয়েছে ২০০ টাকার উপরে। এই দাম বাড়ার কারণ হিসেবে খুচরা ব্যবসায়ীরা বলছেন, ভারত পেয়াজ রপ্তানি নিষিদ্ধ করেছে।
এমন খবর আসতে না আসতেই পেঁয়াজের দাম বেড়ে গেছে। পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। তাই দ্রুত খুচরা বাজারেও বেড়ে গেছে পেঁয়াজের দাম। কোনো আদেশ নিষেধ নয়, নিজেরাই বাড়তি দামে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন খুচরা ব্যবসায়ীরা।
এ বিষয়ে চাঁদপুর জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক নুর হোসেন রুবেল প্রিয় চাঁদপুরকে বলেন, রবিবার থেকে পেঁয়াজের বাজারে অভিযান পরিচালনা করা হবে। তবে ব্যবসায়ীরা কি কারনে পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধি করেছেন তা খতিয়ে দেখা হবে। এবং অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীন সংস্থা ডিরেক্টরেট জেনারেল অব ফরেন ট্রেড পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের নির্দেশনা দিয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার পেঁয়াজ রফতানির নীতিতে গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন এনেছে। বৃহস্পতিবার থেকে রফতানি বন্ধ কার্যকর হয়েছে। আর ৩১ মার্চ পর্যন্ত ভারত থেকে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ থাকবে।