ঢাকা ০২:১২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ফরিদগঞ্জে স্বতন্ত্র প্রার্থীর মাইক ভাংচুর, পুলিশি হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে

ছবির বাম থেকে, ফরিদগঞ্জ উপজেলার ২নং বালিথুবা পূর্ব ইউপির নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী জিএম হাসান তাবাচ্ছুম ও আনারস প্রতীকে বিদ্রোহী প্রার্থী হারুনুর রশিদ পথসভায় বক্তব্য রাখছেন। পাশে অজ্ঞাত দূর্বৃত্তদের হামলায় ক্ষতিগ্রস্থ নির্বাচনী প্রচারনার মাইক, জেনারেটরসহ বিভিন্ন যন্ত্রাংশ।

নিজস্ব প্রতিনিধি : ফরিদগঞ্জ উপজেলার ২ নং বালিথুবা পূর্ব ইউনিয়নে নির্বাচনী প্রচারনায় বুধবার ছিল উত্তপ্ত ও ভীতিকর পরিস্থিতি। পুরো দিন ছিল পুলিশ ও ডিবি পুলিশের সতর্ক পাহারা। এই পরিস্থিতিতে আ’লীগের নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর আনারসের শো-ডাউনে ছিল বালিথুবা পূর্ব ইউনিয়ন সরব। পুলিশী সতর্কতার পরেও দুবৃর্ত্তরা আনারস প্রতীকের গাড়ী, সাউন্ড বক্স এবং মাইক ভাংচুর করেছে এবং একটি জেনারেটরে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে।
আ’লীগে বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আনারস প্রতীকের প্রার্থী হারুনুর রশীদের পূর্ব নির্ধারিত শো-ডাউন ছিল। দুপুরের পরে ওই ইউনিয়নের দেইচর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে তার সমর্থকরা পিকআপ গাড়িতে সাউন্ড বক্স বসিয়ে মিছিলের প্রস্ততি নিলে সেখানে একদল অজ্ঞাত দূর্বৃত্ত হানা দিয়ে তাদের প্রস্তুতি ভন্ডুলসহ গাড়ী ও সাউন্ড বক্স ভাংচুর করে। এই সময় তারা একটি জেনারেটর পুড়িয়ে দেয়। পরে বিকালে স্বতন্ত্র প্রার্থী হারুন অর রশীদ তার সমর্থকদের নিয়ে পাটওয়ারী বাজার ও বালিথুবায় শো-ডাউন  করে। এর কিছুক্ষন পর আ’লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী জিএম হাসান তাবাচ্ছুম তার সমর্থকদের নিয়ে বালিথুবা বাজারে শো-ডাউন করে।
বালিথুবা বাজারে নৌকা সমর্থিত প্রার্থী জিএম হাসান তাবাচ্ছুম পরে এক পথ সভায় বক্তব্য রাখেন। সেখানে তিনি বলেন, দেশ ও জনগণের ভাগ্য পরিবর্তন ও বালিথুবা ইউনিয়নের উন্নয়ণের জন্য নৌকা প্রতীকের বিজয়ের বিকল্প নেই। তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হারুনকে উদ্দেশ্য করে বলেন, যদি আপনি সত্যিকারি অর্থে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ভালোবাসেন ও আ’লীগ করেন, তাহলে নৌকা বিরোধী পথ ছেড়ে আমাদের কাতারে আসেন। বহিরাগতদের নিয়ে ভোট করতে বালিথুবায় আসবেন না।
অপরদিকে বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতীকের হারুন অর রশীদ, তার শো-ডাউন শেষে বালিথুবা বাজারে এক পথ সভায় বলেন, তৃণমূলের নির্বাচনে জনগন তাদের কল্যাণে ভালো প্রার্থীকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবে। অতীতে যে জনগণের উন্নয়ণে কাজ করেছে, আমার বিশ্বাস সাধারন ভোটাররা তাকেই ভোট দিবেন। সে বিশ্বাস থেকেই আমি আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছি। আমি জেলা ও উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনকে অনুরোধ করছি আমাদেরকে নির্বাচনী কাজ করার সুষ্ঠ পথ তৈরি করে দেন এবং জনগণকে নির্বিঘ্নে ভোট দেওয়ার সুযোগ করে দেন।
তিনি বলেন, আমি এবং আমার কর্মীরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। প্রতিনিয়ত কয়েকটি মাইক্রোবাস নিয়ে বেশ কিছু সন্ত্রাসী বিভিন্ন অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব করছে। ভোটার এবং কর্মীদের হুমকি-ধমকি দিচ্ছে, পোষ্টার ছেড়া থেকে শুরু করে মাইক ভাংচুর এবং কর্মীদের মারধর করছে। এসব বিষয়ে পুলিশি হস্তক্ষেপ কামনা করেও কোন প্রতিকার পাচ্ছি না।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

শাহরাস্তিতে নিজের পায়ুপথে ৬ ইঞ্চি ডাব প্রবেশ করিয়ে বিপাকে যুবক

ফরিদগঞ্জে স্বতন্ত্র প্রার্থীর মাইক ভাংচুর, পুলিশি হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে

আপডেট সময় : ০৩:৫৫:১৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ ডিসেম্বর ২০২১
নিজস্ব প্রতিনিধি : ফরিদগঞ্জ উপজেলার ২ নং বালিথুবা পূর্ব ইউনিয়নে নির্বাচনী প্রচারনায় বুধবার ছিল উত্তপ্ত ও ভীতিকর পরিস্থিতি। পুরো দিন ছিল পুলিশ ও ডিবি পুলিশের সতর্ক পাহারা। এই পরিস্থিতিতে আ’লীগের নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর আনারসের শো-ডাউনে ছিল বালিথুবা পূর্ব ইউনিয়ন সরব। পুলিশী সতর্কতার পরেও দুবৃর্ত্তরা আনারস প্রতীকের গাড়ী, সাউন্ড বক্স এবং মাইক ভাংচুর করেছে এবং একটি জেনারেটরে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে।
আ’লীগে বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আনারস প্রতীকের প্রার্থী হারুনুর রশীদের পূর্ব নির্ধারিত শো-ডাউন ছিল। দুপুরের পরে ওই ইউনিয়নের দেইচর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে তার সমর্থকরা পিকআপ গাড়িতে সাউন্ড বক্স বসিয়ে মিছিলের প্রস্ততি নিলে সেখানে একদল অজ্ঞাত দূর্বৃত্ত হানা দিয়ে তাদের প্রস্তুতি ভন্ডুলসহ গাড়ী ও সাউন্ড বক্স ভাংচুর করে। এই সময় তারা একটি জেনারেটর পুড়িয়ে দেয়। পরে বিকালে স্বতন্ত্র প্রার্থী হারুন অর রশীদ তার সমর্থকদের নিয়ে পাটওয়ারী বাজার ও বালিথুবায় শো-ডাউন  করে। এর কিছুক্ষন পর আ’লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী জিএম হাসান তাবাচ্ছুম তার সমর্থকদের নিয়ে বালিথুবা বাজারে শো-ডাউন করে।
বালিথুবা বাজারে নৌকা সমর্থিত প্রার্থী জিএম হাসান তাবাচ্ছুম পরে এক পথ সভায় বক্তব্য রাখেন। সেখানে তিনি বলেন, দেশ ও জনগণের ভাগ্য পরিবর্তন ও বালিথুবা ইউনিয়নের উন্নয়ণের জন্য নৌকা প্রতীকের বিজয়ের বিকল্প নেই। তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হারুনকে উদ্দেশ্য করে বলেন, যদি আপনি সত্যিকারি অর্থে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ভালোবাসেন ও আ’লীগ করেন, তাহলে নৌকা বিরোধী পথ ছেড়ে আমাদের কাতারে আসেন। বহিরাগতদের নিয়ে ভোট করতে বালিথুবায় আসবেন না।
অপরদিকে বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতীকের হারুন অর রশীদ, তার শো-ডাউন শেষে বালিথুবা বাজারে এক পথ সভায় বলেন, তৃণমূলের নির্বাচনে জনগন তাদের কল্যাণে ভালো প্রার্থীকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবে। অতীতে যে জনগণের উন্নয়ণে কাজ করেছে, আমার বিশ্বাস সাধারন ভোটাররা তাকেই ভোট দিবেন। সে বিশ্বাস থেকেই আমি আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছি। আমি জেলা ও উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনকে অনুরোধ করছি আমাদেরকে নির্বাচনী কাজ করার সুষ্ঠ পথ তৈরি করে দেন এবং জনগণকে নির্বিঘ্নে ভোট দেওয়ার সুযোগ করে দেন।
তিনি বলেন, আমি এবং আমার কর্মীরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। প্রতিনিয়ত কয়েকটি মাইক্রোবাস নিয়ে বেশ কিছু সন্ত্রাসী বিভিন্ন অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব করছে। ভোটার এবং কর্মীদের হুমকি-ধমকি দিচ্ছে, পোষ্টার ছেড়া থেকে শুরু করে মাইক ভাংচুর এবং কর্মীদের মারধর করছে। এসব বিষয়ে পুলিশি হস্তক্ষেপ কামনা করেও কোন প্রতিকার পাচ্ছি না।