ঢাকা ০৬:২৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শাহরাস্তিতে স্মার্টফোনে নকল করতে গিয়ে আলিম পরীক্ষার্থী বহিষ্কৃত

শাহরাস্তিতে স্মার্টফোনের সহায়তায় নকল করতে গিয়ে এক আলিম পরীক্ষার্থী বহিষ্কার হয়েছে।

Model Hospital

রবিবার শাহরাস্তি উপজেলা ভোলদীঘি কামিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে আলিম পরীক্ষার প্রথম দিনে এ ঘটনা ঘটে।

পরীক্ষার সঙ্গে যুক্ত সংশ্লিষ্টরা জানান,ওইদিন চলতি আলিম পরীক্ষার কুরআন মাজিদ পরীক্ষা বিষয় কোড ২০১চলাকালীন সময় ভোলদীঘি কামিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী মোঃ জাবের হোসাইন সাব্বির স্মার্টফোনে অসৎউপায় অবলম্বন করছিল।

ওই সময় বিষয়টি পরীক্ষা পরিদর্শনে আসা উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি)এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা চৌধুরীর দৃষ্টিগোচর হয়।

পরে তিনি ওই শিক্ষার্থীর পরীক্ষার বিষয়টি পরীক্ষা কেন্দ্রে নিয়োজিত শিক্ষককে অবহিত করলে তিনি তল্লাশি চালিয়ে দেখেন।

ওই শিক্ষার্থী সাব্বির পরীক্ষার হলে স্মার্টফোন নিয়ে অন্য শিক্ষার্থীর লিখিত কাগজ থেকে ছবি তোলে সেই লেখা নিজ কাগজে লিখছে।এতে বিষয়টি পরীক্ষা আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক ও অপরাধ হিসেবে পরিগণিত হওয়ায় ওই শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়।বিষয়টি বাস্তবায়নে নির্দেশ প্রদান করেন, দায়িত্বপ্রাপ্ত এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা চৌধুরী ও ভিজিল্যান্স টিমের সদস্য এএসপি (কচুয়া সার্কেল) রিজওয়ান সাঈদ জিকু।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: ইয়াসির আরাফাত জানান, পরীক্ষা সুন্দর, সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করতে এবং শিক্ষার্থীদের মানসম্মত শিক্ষা উপহার দিতে প্রশাসন যে কোন অপরাধের বিরুদ্ধে সোচ্চার রয়েছে।

অপরাধী যেই হোক তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। পরীক্ষার কেন্দ্র সচিব মাওলানা আমিনুল ইসলাম বহিষ্কারের বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

স্কুলের শ্রেণিকক্ষে ‘আপত্তিকর’ অবস্থায় ছাত্রীসহ প্রধান শিক্ষক আটক

শাহরাস্তিতে স্মার্টফোনে নকল করতে গিয়ে আলিম পরীক্ষার্থী বহিষ্কৃত

আপডেট সময় : ০৯:১৯:৫৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ জুন ২০২৪

শাহরাস্তিতে স্মার্টফোনের সহায়তায় নকল করতে গিয়ে এক আলিম পরীক্ষার্থী বহিষ্কার হয়েছে।

Model Hospital

রবিবার শাহরাস্তি উপজেলা ভোলদীঘি কামিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে আলিম পরীক্ষার প্রথম দিনে এ ঘটনা ঘটে।

পরীক্ষার সঙ্গে যুক্ত সংশ্লিষ্টরা জানান,ওইদিন চলতি আলিম পরীক্ষার কুরআন মাজিদ পরীক্ষা বিষয় কোড ২০১চলাকালীন সময় ভোলদীঘি কামিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী মোঃ জাবের হোসাইন সাব্বির স্মার্টফোনে অসৎউপায় অবলম্বন করছিল।

ওই সময় বিষয়টি পরীক্ষা পরিদর্শনে আসা উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি)এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা চৌধুরীর দৃষ্টিগোচর হয়।

পরে তিনি ওই শিক্ষার্থীর পরীক্ষার বিষয়টি পরীক্ষা কেন্দ্রে নিয়োজিত শিক্ষককে অবহিত করলে তিনি তল্লাশি চালিয়ে দেখেন।

ওই শিক্ষার্থী সাব্বির পরীক্ষার হলে স্মার্টফোন নিয়ে অন্য শিক্ষার্থীর লিখিত কাগজ থেকে ছবি তোলে সেই লেখা নিজ কাগজে লিখছে।এতে বিষয়টি পরীক্ষা আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক ও অপরাধ হিসেবে পরিগণিত হওয়ায় ওই শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়।বিষয়টি বাস্তবায়নে নির্দেশ প্রদান করেন, দায়িত্বপ্রাপ্ত এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা চৌধুরী ও ভিজিল্যান্স টিমের সদস্য এএসপি (কচুয়া সার্কেল) রিজওয়ান সাঈদ জিকু।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: ইয়াসির আরাফাত জানান, পরীক্ষা সুন্দর, সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করতে এবং শিক্ষার্থীদের মানসম্মত শিক্ষা উপহার দিতে প্রশাসন যে কোন অপরাধের বিরুদ্ধে সোচ্চার রয়েছে।

অপরাধী যেই হোক তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। পরীক্ষার কেন্দ্র সচিব মাওলানা আমিনুল ইসলাম বহিষ্কারের বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন।