ঢাকা ০২:৪৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পদ্মা সেতু দেখতে গিয়ে ফেরা হলো না চাঁদপুরের ৩ বন্ধুর, এলাকায় শোকের ছায়া

গাজী মোঃ মহসিন : পদ্মা সেতু দেখতে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় চাঁদপুরের তিনজনসহ মোট ৬ জন নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (২ জুন) রাত পৌনে একটার সময় মুন্সিগঞ্জের নিমতলি হাসারা হাইওয়েতে কাভার্ড ভ্যান ও সিএনজির সংঘর্ষে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে চাঁদপুরের ৩ যুবক ও বিক্রমপুরের ৩ জন।
জানা যায়, চাঁদপুরের ৩ যুবকের মধ্যে চাঁদপুর সদর উপজেলার বাগাদী ইউনিয়নের ইচলী এলাকার কলমতর গাজী বাড়ির এনায়েত উল্যাহ গাজীর একমাত্র ছেলে সামাদ গাজী (২৪), শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড দমকের গাঁও কাজী বাড়ির জাহাঙ্গীর কাজীর ছেলে জিহাদ কাজী (২০) ও একই ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড কেতুয়া পাটওয়ারী বাড়ির আবুল কালাম পাটওয়ারীর ছেলে আহাদ পাটওয়ারী (২০)। এবং অন্য তিনজনের মধ্যে তাদের বন্ধু বিক্রমপুরের একজন, সিএনজি চালক একজন ও ঐ এলাকার যাত্রী একজন। চাঁদপুরের ৩জন ঢাকায় নিউ মার্কেট এলাকায় বিভিন্ন পেশায় কর্মরত ছিলেন এবং একে অপরের আত্মীয়। হাইওয়ে টহল পুলিশ তাদের উদ্ধার করেন।
সামাদের বড় ভাই জানান, তারা চার বন্ধু মিলে শুক্রবার পদ্মা সেতু দেখতে যাওয়ার কথা ছিল। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রওনার দেয়ার কথা থাকলেও রাত ১০-১১টার দিকে রওনা দেন একটি সিএনজি নিয়ে। তাদের সিএনজিতে একজন যাত্রীও উঠেন। সিএনজি চলা অবস্থায় সামনে একটি লড়ি ইউটার্ন করার সময় সিএনজিটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পেছন দিক থেকে আঘাত করে। এসময় সিএনজিতে থাকা পাঁচ যাত্রী ও চালকসহ সকলেই ঘটনাস্থল ও হাসপাতালে নেয়ার পর নিহত হন। চাঁদপুরের তিনজনের সাথে বিক্রমপুরের দুইজনের মধ্যে একজন তাদের বন্ধু ও অন্যজন তাদের রিসিভ করার কথা ছিল। এবং ইলিশা হোটেলে ডিনার করে ওখানেই রাত্রীযাপন করবে বলে জানা যায়।
নিহতদের মরদেহ ময়নাতদন্ত ছাড়াই পুলিশের কাছে আবেদন করে নিয়ে আসা হয়েছে। এবং দুর্ঘটনায় নিহতদের ভিন্ন ভিন্ন জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

রমজানের আগেই ‘দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ কমিশন’ দাবি নতুনধারার

পদ্মা সেতু দেখতে গিয়ে ফেরা হলো না চাঁদপুরের ৩ বন্ধুর, এলাকায় শোকের ছায়া

আপডেট সময় : ০৩:৪৬:১৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ জুন ২০২২
গাজী মোঃ মহসিন : পদ্মা সেতু দেখতে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় চাঁদপুরের তিনজনসহ মোট ৬ জন নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (২ জুন) রাত পৌনে একটার সময় মুন্সিগঞ্জের নিমতলি হাসারা হাইওয়েতে কাভার্ড ভ্যান ও সিএনজির সংঘর্ষে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে চাঁদপুরের ৩ যুবক ও বিক্রমপুরের ৩ জন।
জানা যায়, চাঁদপুরের ৩ যুবকের মধ্যে চাঁদপুর সদর উপজেলার বাগাদী ইউনিয়নের ইচলী এলাকার কলমতর গাজী বাড়ির এনায়েত উল্যাহ গাজীর একমাত্র ছেলে সামাদ গাজী (২৪), শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড দমকের গাঁও কাজী বাড়ির জাহাঙ্গীর কাজীর ছেলে জিহাদ কাজী (২০) ও একই ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড কেতুয়া পাটওয়ারী বাড়ির আবুল কালাম পাটওয়ারীর ছেলে আহাদ পাটওয়ারী (২০)। এবং অন্য তিনজনের মধ্যে তাদের বন্ধু বিক্রমপুরের একজন, সিএনজি চালক একজন ও ঐ এলাকার যাত্রী একজন। চাঁদপুরের ৩জন ঢাকায় নিউ মার্কেট এলাকায় বিভিন্ন পেশায় কর্মরত ছিলেন এবং একে অপরের আত্মীয়। হাইওয়ে টহল পুলিশ তাদের উদ্ধার করেন।
সামাদের বড় ভাই জানান, তারা চার বন্ধু মিলে শুক্রবার পদ্মা সেতু দেখতে যাওয়ার কথা ছিল। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রওনার দেয়ার কথা থাকলেও রাত ১০-১১টার দিকে রওনা দেন একটি সিএনজি নিয়ে। তাদের সিএনজিতে একজন যাত্রীও উঠেন। সিএনজি চলা অবস্থায় সামনে একটি লড়ি ইউটার্ন করার সময় সিএনজিটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পেছন দিক থেকে আঘাত করে। এসময় সিএনজিতে থাকা পাঁচ যাত্রী ও চালকসহ সকলেই ঘটনাস্থল ও হাসপাতালে নেয়ার পর নিহত হন। চাঁদপুরের তিনজনের সাথে বিক্রমপুরের দুইজনের মধ্যে একজন তাদের বন্ধু ও অন্যজন তাদের রিসিভ করার কথা ছিল। এবং ইলিশা হোটেলে ডিনার করে ওখানেই রাত্রীযাপন করবে বলে জানা যায়।
নিহতদের মরদেহ ময়নাতদন্ত ছাড়াই পুলিশের কাছে আবেদন করে নিয়ে আসা হয়েছে। এবং দুর্ঘটনায় নিহতদের ভিন্ন ভিন্ন জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।