ঢাকা ০৩:২৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লেখক জেসমিন মুন্নীর সম্মাননা স্মারক অর্জন

সজীব খান : প্রখ্যাত লেখক জেসমিন মুন্নী বাংলাদেশ ব্যাংক কলোনী স্কুল প্রাক্তণ ছাত্র ছাত্রী পরিষদের চট্রগ্রামের সম্মাননা স্মারক অর্জন করেছেন।
১৬ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ ব্যাংক কলোনী স্কুল প্রাক্তণ ছাত্র ছাত্রী পরিষদ চট্রগ্রামের বাংলাদেশ ক্লাব লিমিটেড উত্তরায় ঢাকা চ্যাপ্টারের আয়োজনে জেসমিন আরা মুন্নীকে কবিতা আবৃত্তি ও প্রাক্তণ ছাত্রী হিসেবে তাকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।
জেসমিন আরা মুন্নী আশিকাটি এম এম নুরুল হক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা নুরুল হকের একমাত্র পুত্রবধু এবং এম এম নুরুল হক উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষা উপদেষ্টা। ব্যাক্তিগত জীবনে তিনি দুই কণ্যা সন্তানের জননী, ইতিমধ্যে তার কয়েকটি গল্পের বই বাজারে রয়েছে, দীর্ঘদিন যাবৎ তিনি শিক্ষকতার পাশাপাশি লেখালেখি করছেন।
লেখক জেসমিন মুন্নী বলেন, স্কুল বলতেই নস্টালজিয়া। ১৯৬০ সালে কেজিতে ভর্তি হওয়া প্রথম ব্যাচের জাফর সাঈদ থেকে শুরু করে সদ্য পাশ করা টগবগে যুবক সবার এক মিলন মেলা হয়েছে। স্কুলটা ষাটের দশকে শুরু হলেও আমাদের সময় এসে এসএসতে বসি। প্রথম ব্যাচ বলে একটু বাড়তি কদর। অনুষ্ঠানটা ছিলো মূলত ঢাকাবাসীদের নিয়ে। আয়োজকদের আন্তরিকতার কোন কমতি ছিলো না। কবিতাপাঠ ও সম্মাননা ছিলো বিশেষ পাওয়া।
৮৬ ব্যাচের পক্ষ থেকে সুলতান, খোরশেদ ,আতিক, আতাউরের  অক্লান্ত প্রচেষ্টার কারেছেন, কৃতজ্ঞতা জানাই এবং চট্টগ্রাম থেকে আগত সবার প্রতি রইলো ভালোবাসা। আনন্দময়  সুন্দর একটা বিকেল উপহার দেবার জন্য ধন্যবাদ সংশ্লিষ্ট সবাইকে।
ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

স্কুলের শ্রেণিকক্ষে ‘আপত্তিকর’ অবস্থায় ছাত্রীসহ প্রধান শিক্ষক আটক

লেখক জেসমিন মুন্নীর সম্মাননা স্মারক অর্জন

আপডেট সময় : ১২:১০:২৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২
সজীব খান : প্রখ্যাত লেখক জেসমিন মুন্নী বাংলাদেশ ব্যাংক কলোনী স্কুল প্রাক্তণ ছাত্র ছাত্রী পরিষদের চট্রগ্রামের সম্মাননা স্মারক অর্জন করেছেন।
১৬ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ ব্যাংক কলোনী স্কুল প্রাক্তণ ছাত্র ছাত্রী পরিষদ চট্রগ্রামের বাংলাদেশ ক্লাব লিমিটেড উত্তরায় ঢাকা চ্যাপ্টারের আয়োজনে জেসমিন আরা মুন্নীকে কবিতা আবৃত্তি ও প্রাক্তণ ছাত্রী হিসেবে তাকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।
জেসমিন আরা মুন্নী আশিকাটি এম এম নুরুল হক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা নুরুল হকের একমাত্র পুত্রবধু এবং এম এম নুরুল হক উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষা উপদেষ্টা। ব্যাক্তিগত জীবনে তিনি দুই কণ্যা সন্তানের জননী, ইতিমধ্যে তার কয়েকটি গল্পের বই বাজারে রয়েছে, দীর্ঘদিন যাবৎ তিনি শিক্ষকতার পাশাপাশি লেখালেখি করছেন।
লেখক জেসমিন মুন্নী বলেন, স্কুল বলতেই নস্টালজিয়া। ১৯৬০ সালে কেজিতে ভর্তি হওয়া প্রথম ব্যাচের জাফর সাঈদ থেকে শুরু করে সদ্য পাশ করা টগবগে যুবক সবার এক মিলন মেলা হয়েছে। স্কুলটা ষাটের দশকে শুরু হলেও আমাদের সময় এসে এসএসতে বসি। প্রথম ব্যাচ বলে একটু বাড়তি কদর। অনুষ্ঠানটা ছিলো মূলত ঢাকাবাসীদের নিয়ে। আয়োজকদের আন্তরিকতার কোন কমতি ছিলো না। কবিতাপাঠ ও সম্মাননা ছিলো বিশেষ পাওয়া।
৮৬ ব্যাচের পক্ষ থেকে সুলতান, খোরশেদ ,আতিক, আতাউরের  অক্লান্ত প্রচেষ্টার কারেছেন, কৃতজ্ঞতা জানাই এবং চট্টগ্রাম থেকে আগত সবার প্রতি রইলো ভালোবাসা। আনন্দময়  সুন্দর একটা বিকেল উপহার দেবার জন্য ধন্যবাদ সংশ্লিষ্ট সবাইকে।