ঢাকা ১১:০০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হাইইমচরে এসএসসিতে- পাসের হার ৭৪.৫৭% , দাখিলে ৮৬.৬০%, ভোকেশনাল ৯২.৮% এ প্লাস ১১২

প্রকাশিত ফলাফলে জানা যায়, হাইমচরে ১৩টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭৫৫ জন শিক্ষার্থী কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসি- পরীক্ষায় অংশগ্রহন করেন। অংশগ্রহণকৃত পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ৫৬৩ জন শিক্ষার্থী কৃতকার্য হয়েছেন । পাশের হার হয়েছে ৭৪.৫৭%। জিপিএ -৫ পেয়েছেন ২৪ জন। গত বছরের তুলনায় এবছর পাশের হার এবং জিপি এ -৫ অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছে।

Model Hospital

১০টি মাদ্রাসার ৩৫১জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে পাস করেছেন ৩০৪জন। পাসের হার হয়েছে ৮৬.৬০%। গতবছর জিপিএ -৫ পাঁচজন শিক্ষার্থী অর্জন করতে পারলেও এ বছর তা অর্জন করতে পারিনি কোন শিক্ষার্থী এবং পাশের হারেও রয়েছে পিছিয়ে।

শুধুমাত্র কমলাপুর দাখিল মাদরাসা শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে।

ভোকেশনাল শাখায় ২৪০ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ২২১ জন কৃতকার্য হয়েছেন, পাশের হার ৯২.৮%। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৮৮ জন।

হাইমচর উপজেলার বাজাপ্তী রমনী মহন উবির ১০৫ জন শিক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে কৃতকার্য হয়েছে ৯২ জন। পাসের হার ৮৭. ৬২%।চরভৈরবী উচ্চ বিদ্যালয়ে ৩১ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে কৃতকার্য হয়েছে ২২জন। পাসের হার ৭০.৯৭%।

চরভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৭৩ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহন করে কৃতকার্য হয়েছেন ৫৯ জন। পাশের হার ৮০.৮২%। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১১জন। দূর্গাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে ৭৭জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে পাস করেছেন ৭২জন। পাসের হার ৯৩.৫১%। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৭জন। ঈশানবালা এমজেএস উচ্চ বিদ্যালয়ে ৫৬জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে পাস করেছেন ৪২জন। পাসের হার ৭৫%। গন্ডামারা উচ্চ বিদ্যালয়ে ১০৯জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহন করে ১০৩জন কৃতকার্য হয়েছেন। পাসের হার ৯৪.৫০%। জিপিএ -৫ পেয়েছেন ৩ জন। হাইমচর সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে ৫২জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে ২৭ জন পাস করেছেন। পাসের হার ৫১.৯২%।

বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৫২জন পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে ৪৬জন কৃতকার্য হয়েছেন।
পাসের হার ৮৮.৪৬%। কেভিএন উচ্চবিদ্যালয়ে ৬৬জন পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে পাস করেন ৫৫জন। পাসের হার ৮৭.৩৩%। এমজেএস বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৩৫জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে ৩০জন কৃতকার্য হয়েছেন। পাসের হার ৮৫.৭১%।

মোয়াজ্জেম হোসেন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৩০জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে পাস করেছেন ২৫জন। পাসের হার ৮৩.৩৩%। নীলকমল ওচমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয় ১০৫জন পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে পাস করেছেন ৯৪জন। পাসের হার ৮৯.৫২%। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১জন। আদর্শ শিশু নিকেতন স্কুল থেকে ১৬ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে কৃতকার্য হয়েছেন ১৪ জন।

মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ফারুক-ই-আজম (রাঃ) আদর্শ দাখিল মাদ্রাসার ২৪ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ২০ জন পাস করেছে। পাসের হার ৮৩.৩৩%। গাউছুল আজম ছবরিয়া দাখিল মাদ্রাসার ৩৪শিক্ষার্থী অংশগ্রহন করে পাস করেছে ২৯ জন। পাসের হার ৮৫.২৯% চরভাঙ্গা ডিএস দাখিল মাদ্রাসায় ৩৬ শিক্ষার্থীর ৩৩ জন পাস করেছে। পাসের হার ৯১.৬৬%।

চরভৈরবী আজিজিয়া আজহারুল উলুম দাখিল মাদ্রাসার ২১ শিক্ষার্থীর মধ্যে ১৭জন পাস করেছেন। পাসের হার ৮০.৯৫%। জামিলায়ে মহিলা দাখিল মাদ্রাসার ২৯শিক্ষার্থীর মধ্যে ২৬ জন পাস করেছে। পাসের হার ৮৯.৬৫%। আল-আমিন আদর্শ মহিলা দাখিল মাদ্রাসায় ৪২ জনের মধ্যে পাস করেছে ২৯ জন পাসের হার ৬৯.৪%। গন্ডামারা এবিএস ফাযিল মাদ্রাসার ৫৮ শিক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছে ৫৩জন। আলগীবাজার আলিম মাদ্রাসায় ৪৭শিক্ষার্থী পরিক্ষায় অংশগ্রহন করে ৪২ জন পাস করেছে। পাসের হার ৮৯.৩৬%। কাটাখালি হমিদিয়া মাদরাসা ৩৪জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ২৯জন। পাসের হার ৮৫.২৯%।কমলাপুর দাখিল মাদরাসা ২৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৬ জনই পাস করেছেন। পাসের হার ১০০%।

ভোকেশনাল শাখায় চরভৈরবী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১১০ জন পরীক্ষা অংশগ্রহণ করে কৃতকার্য হয়েছেন ১০১ জন। পাশের হার ৯১.৮১%। জিপিএ -৫ পেয়েছেন ৪৩ জন।
দুর্গাপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে শতভাগ পাস করেছেন। এমজেএস বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৬৮ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৬৬ জন পাস করেছেন। পাশের হার ৯৭.৫%। জিপিএ -৫ পেয়েছেন ২৬ জন।
নীলকমল উসমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৪২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ৩৪ জন। পাশের হার ৮০.৯৫%। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১২ জন।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁদপুরের তিন উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা কে কত ভোট পেলেন

হাইইমচরে এসএসসিতে- পাসের হার ৭৪.৫৭% , দাখিলে ৮৬.৬০%, ভোকেশনাল ৯২.৮% এ প্লাস ১১২

আপডেট সময় : ১১:৩৪:৩৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ জুলাই ২০২৩

প্রকাশিত ফলাফলে জানা যায়, হাইমচরে ১৩টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭৫৫ জন শিক্ষার্থী কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসি- পরীক্ষায় অংশগ্রহন করেন। অংশগ্রহণকৃত পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ৫৬৩ জন শিক্ষার্থী কৃতকার্য হয়েছেন । পাশের হার হয়েছে ৭৪.৫৭%। জিপিএ -৫ পেয়েছেন ২৪ জন। গত বছরের তুলনায় এবছর পাশের হার এবং জিপি এ -৫ অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছে।

Model Hospital

১০টি মাদ্রাসার ৩৫১জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে পাস করেছেন ৩০৪জন। পাসের হার হয়েছে ৮৬.৬০%। গতবছর জিপিএ -৫ পাঁচজন শিক্ষার্থী অর্জন করতে পারলেও এ বছর তা অর্জন করতে পারিনি কোন শিক্ষার্থী এবং পাশের হারেও রয়েছে পিছিয়ে।

শুধুমাত্র কমলাপুর দাখিল মাদরাসা শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে।

ভোকেশনাল শাখায় ২৪০ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ২২১ জন কৃতকার্য হয়েছেন, পাশের হার ৯২.৮%। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৮৮ জন।

হাইমচর উপজেলার বাজাপ্তী রমনী মহন উবির ১০৫ জন শিক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে কৃতকার্য হয়েছে ৯২ জন। পাসের হার ৮৭. ৬২%।চরভৈরবী উচ্চ বিদ্যালয়ে ৩১ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে কৃতকার্য হয়েছে ২২জন। পাসের হার ৭০.৯৭%।

চরভাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৭৩ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহন করে কৃতকার্য হয়েছেন ৫৯ জন। পাশের হার ৮০.৮২%। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১১জন। দূর্গাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে ৭৭জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে পাস করেছেন ৭২জন। পাসের হার ৯৩.৫১%। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৭জন। ঈশানবালা এমজেএস উচ্চ বিদ্যালয়ে ৫৬জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে পাস করেছেন ৪২জন। পাসের হার ৭৫%। গন্ডামারা উচ্চ বিদ্যালয়ে ১০৯জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহন করে ১০৩জন কৃতকার্য হয়েছেন। পাসের হার ৯৪.৫০%। জিপিএ -৫ পেয়েছেন ৩ জন। হাইমচর সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে ৫২জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে ২৭ জন পাস করেছেন। পাসের হার ৫১.৯২%।

বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৫২জন পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে ৪৬জন কৃতকার্য হয়েছেন।
পাসের হার ৮৮.৪৬%। কেভিএন উচ্চবিদ্যালয়ে ৬৬জন পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে পাস করেন ৫৫জন। পাসের হার ৮৭.৩৩%। এমজেএস বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৩৫জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে ৩০জন কৃতকার্য হয়েছেন। পাসের হার ৮৫.৭১%।

মোয়াজ্জেম হোসেন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৩০জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে পাস করেছেন ২৫জন। পাসের হার ৮৩.৩৩%। নীলকমল ওচমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয় ১০৫জন পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে পাস করেছেন ৯৪জন। পাসের হার ৮৯.৫২%। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১জন। আদর্শ শিশু নিকেতন স্কুল থেকে ১৬ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে কৃতকার্য হয়েছেন ১৪ জন।

মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ফারুক-ই-আজম (রাঃ) আদর্শ দাখিল মাদ্রাসার ২৪ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ২০ জন পাস করেছে। পাসের হার ৮৩.৩৩%। গাউছুল আজম ছবরিয়া দাখিল মাদ্রাসার ৩৪শিক্ষার্থী অংশগ্রহন করে পাস করেছে ২৯ জন। পাসের হার ৮৫.২৯% চরভাঙ্গা ডিএস দাখিল মাদ্রাসায় ৩৬ শিক্ষার্থীর ৩৩ জন পাস করেছে। পাসের হার ৯১.৬৬%।

চরভৈরবী আজিজিয়া আজহারুল উলুম দাখিল মাদ্রাসার ২১ শিক্ষার্থীর মধ্যে ১৭জন পাস করেছেন। পাসের হার ৮০.৯৫%। জামিলায়ে মহিলা দাখিল মাদ্রাসার ২৯শিক্ষার্থীর মধ্যে ২৬ জন পাস করেছে। পাসের হার ৮৯.৬৫%। আল-আমিন আদর্শ মহিলা দাখিল মাদ্রাসায় ৪২ জনের মধ্যে পাস করেছে ২৯ জন পাসের হার ৬৯.৪%। গন্ডামারা এবিএস ফাযিল মাদ্রাসার ৫৮ শিক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছে ৫৩জন। আলগীবাজার আলিম মাদ্রাসায় ৪৭শিক্ষার্থী পরিক্ষায় অংশগ্রহন করে ৪২ জন পাস করেছে। পাসের হার ৮৯.৩৬%। কাটাখালি হমিদিয়া মাদরাসা ৩৪জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ২৯জন। পাসের হার ৮৫.২৯%।কমলাপুর দাখিল মাদরাসা ২৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২৬ জনই পাস করেছেন। পাসের হার ১০০%।

ভোকেশনাল শাখায় চরভৈরবী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১১০ জন পরীক্ষা অংশগ্রহণ করে কৃতকার্য হয়েছেন ১০১ জন। পাশের হার ৯১.৮১%। জিপিএ -৫ পেয়েছেন ৪৩ জন।
দুর্গাপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে শতভাগ পাস করেছেন। এমজেএস বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৬৮ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৬৬ জন পাস করেছেন। পাশের হার ৯৭.৫%। জিপিএ -৫ পেয়েছেন ২৬ জন।
নীলকমল উসমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ৪২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ৩৪ জন। পাশের হার ৮০.৯৫%। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১২ জন।