ঢাকা ১১:৩৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিএনপি জামাত অপশক্তিকে আমরা যেকোনো মূল্যে প্রতিহত করব: শিক্ষা মন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি

ডা. দীপু মনি বলেন, ১৯৭১ সালের মানবতাবিরোধী যুদ্ধাপরাধীরা যখন ক্ষমতায় আসলো, তাদের যখন বিচার হলো না, তখন মানবাধিকার ক্ষুণ্ণ হয়নি? ১৯৭৫ সালে শিশুপুত্র রাসেলসহ বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করা হলো তখন মানবাধিকার ক্ষুণ্ণ হয়নি? ১৯৮১ সালে বঙ্গবন্ধুকন্যা ফিরে এসে নিহত বাবা-মাসহ পরিবারের সদস্যদের জন্য সেই বাড়িটিতে একটু দোয়া পড়তে ছেয়েছিলেন, তাকে তা করতে এবং বাড়িতে ডুকতে দেওয়া হয়নি।

Model Hospital

তিনি বলেন, পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী যে ৯৫ হাজার আত্মসমর্পণ করেছিল, সে আত্মসমর্পণকারীদের মধ্যে বাঙালি নামধারী কিছু কুলাঙ্গার পাকিস্তানি সেনা অফিসার ছিল। এই রকিবুল হুদা ছিল তার মধ্যে একজন। অতএব সে বঙ্গবন্ধুকন্যাকে হত্যার চেষ্টা করবে এটাই স্বাভাবিক। বঙ্গবন্ধুকন্যাকে হত্যার জন্য কমপক্ষে ২১ বার চেষ্টা করা হয়েছে। মন্ত্রী বলেন, ১৯৭৫ সালের এই দিনে স্বাধীনতা বিরোধী বিএনপি জামাত অপশক্তিকে আমরা যেকোনো মূল্যে প্রতিহত করব, ইনশাআল্লাহ।

আগামী সংসদ নির্বাচনে সকল ষড়যন্ত্রকে রুখে দিয়ে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করে আবারো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শেখ হাসিনাকে বিজয় করব।

এবং তার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়বো আমরা। আমরা শোককে শক্তিতে পরিণত করেছি, শোক থেকে জাগরনের জন্ম হয়েছে, জাতির পিতা বলেছিলেন আমাকে কেউ দাবায় রাখতে পারবে না, আমাদেরকে কোন অপশক্তি দাবায় রাখতে পারবে না ইনশাআল্লাহ। আজকে দেশি বিদেশি অনেকেই মানবাধিকারের নামে মায়ের কান্না করে।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, যখন ২০০১ সালে অব্যাহতভাবে মাসের পর মাস সারা বাংলাদেশকে বিএনপি জামায়াতের সন্ত্রাসীরা মৃত্যুপুরীতে পরিণত করেছিল। যখন মহিমা, ফাহিমা, পূর্ণিমা, লতিফাদের একের পর এক ধর্ষণ করা হয়েছিল, তখন কোথায় ছিল মানবাধিকার?

১৫ই আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজিত দোয়া, মিলাদ ও তবারক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী ডা দীপু মনি এমপি।

শোক দিবস অনুষ্ঠানে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুর হোসেন পাটোয়ারীর পরিচালনায় ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হুমায়ুন কবির প্রধানীয়ার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর ৩ আসনের সাংসদ সদস্য শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তোফাজ্জেল হোসেন এসডু পাটওয়ারী, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল, পৌরসভার প্যানেল মেয়র মোহাম্মদ আলী মাঝি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামীলীগ উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা এস.এম. সালাহ্ উদ্দীন, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান টুটুলসহ জেলা ও উপজেলার ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, সেচ্ছাসেবকলীগ, ছাত্রলীগসহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

বিএনপি জামাত অপশক্তিকে আমরা যেকোনো মূল্যে প্রতিহত করব: শিক্ষা মন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি

আপডেট সময় : ০৯:১৮:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৬ অগাস্ট ২০২৩

ডা. দীপু মনি বলেন, ১৯৭১ সালের মানবতাবিরোধী যুদ্ধাপরাধীরা যখন ক্ষমতায় আসলো, তাদের যখন বিচার হলো না, তখন মানবাধিকার ক্ষুণ্ণ হয়নি? ১৯৭৫ সালে শিশুপুত্র রাসেলসহ বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করা হলো তখন মানবাধিকার ক্ষুণ্ণ হয়নি? ১৯৮১ সালে বঙ্গবন্ধুকন্যা ফিরে এসে নিহত বাবা-মাসহ পরিবারের সদস্যদের জন্য সেই বাড়িটিতে একটু দোয়া পড়তে ছেয়েছিলেন, তাকে তা করতে এবং বাড়িতে ডুকতে দেওয়া হয়নি।

Model Hospital

তিনি বলেন, পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী যে ৯৫ হাজার আত্মসমর্পণ করেছিল, সে আত্মসমর্পণকারীদের মধ্যে বাঙালি নামধারী কিছু কুলাঙ্গার পাকিস্তানি সেনা অফিসার ছিল। এই রকিবুল হুদা ছিল তার মধ্যে একজন। অতএব সে বঙ্গবন্ধুকন্যাকে হত্যার চেষ্টা করবে এটাই স্বাভাবিক। বঙ্গবন্ধুকন্যাকে হত্যার জন্য কমপক্ষে ২১ বার চেষ্টা করা হয়েছে। মন্ত্রী বলেন, ১৯৭৫ সালের এই দিনে স্বাধীনতা বিরোধী বিএনপি জামাত অপশক্তিকে আমরা যেকোনো মূল্যে প্রতিহত করব, ইনশাআল্লাহ।

আগামী সংসদ নির্বাচনে সকল ষড়যন্ত্রকে রুখে দিয়ে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করে আবারো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শেখ হাসিনাকে বিজয় করব।

এবং তার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়বো আমরা। আমরা শোককে শক্তিতে পরিণত করেছি, শোক থেকে জাগরনের জন্ম হয়েছে, জাতির পিতা বলেছিলেন আমাকে কেউ দাবায় রাখতে পারবে না, আমাদেরকে কোন অপশক্তি দাবায় রাখতে পারবে না ইনশাআল্লাহ। আজকে দেশি বিদেশি অনেকেই মানবাধিকারের নামে মায়ের কান্না করে।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, যখন ২০০১ সালে অব্যাহতভাবে মাসের পর মাস সারা বাংলাদেশকে বিএনপি জামায়াতের সন্ত্রাসীরা মৃত্যুপুরীতে পরিণত করেছিল। যখন মহিমা, ফাহিমা, পূর্ণিমা, লতিফাদের একের পর এক ধর্ষণ করা হয়েছিল, তখন কোথায় ছিল মানবাধিকার?

১৫ই আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজিত দোয়া, মিলাদ ও তবারক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী ডা দীপু মনি এমপি।

শোক দিবস অনুষ্ঠানে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুর হোসেন পাটোয়ারীর পরিচালনায় ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হুমায়ুন কবির প্রধানীয়ার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর ৩ আসনের সাংসদ সদস্য শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তোফাজ্জেল হোসেন এসডু পাটওয়ারী, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল, পৌরসভার প্যানেল মেয়র মোহাম্মদ আলী মাঝি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামীলীগ উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা এস.এম. সালাহ্ উদ্দীন, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান টুটুলসহ জেলা ও উপজেলার ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, সেচ্ছাসেবকলীগ, ছাত্রলীগসহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।