ঢাকা ০২:৩২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফরিদগঞ্জে ইউপি নির্বাচনে প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ, বিভিন্ন স্থানে সংর্ঘষ

নিজস্ব প্রতিনিধি : ৫ জানুয়ারীর ৫ম ধাপের নির্বাচনে ফরিদগঞ্জে ১৩টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান, মেম্বার ও মহিলা মেম্বারসহ মোট ৬৯৩ জন প্রার্থীর মাঝে ২০ ডিসেম্বর সোমবার প্রতীক বরাদ্দ দেন দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটাণিং অফিসারবৃন্দ। প্রতীক পাওয়াকে কেন্দ্র করে সকাল থেকে উপজেলার বিভিন্ন নির্বাচনী এলাকার প্রার্থীদের হাজার হাজার সমর্থকরা উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে উপস্থিত হয়। এই সময় তাদের প্রার্থীর পক্ষে সমর্থকদের শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে পুরো এলাকা। তবে নির্বাচনী প্রচার শুরুর প্রথম দিনেই দুটি ইউনিয়নে সংর্ঘষের ঘটনার খরব পাওয়া গিয়েছে এবং থানায় অভিযোগও হয়েছে। এই ঘটনায় ১ চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ৩ জন আহত হয়।

Model Hospital

ফরিদগঞ্জ উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৭৩জন, সংরক্ষিত আসনের ১২৪ জন এবং সাধারণ আসনে ৪৯৬ জন প্রার্থীসহ মোট ৬৯৩জন প্রার্থী নির্বাচনী প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। এই প্রার্থীদের মাঝে ঘোষিত সময় অনুযায়ী সোমবার সকাল ১০ থেকে প্রতীক বরাদ্দ শুরু হয়। শুরুতে চেয়ারম্যান পদের প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক দেওয়া হয়। দলীয় প্রার্থীরা তাদের নিজ নিজ প্রতীক সংশ্লিষ্ট রিটাণিং অফিসারের কাছ থেকে তাদের প্রতীক গ্রহণ করে। অপরদিকে স্বতেন্ত্র প্রার্থীদের প্রায় বেশীর ভাগ প্রার্থীই আনারস প্রতীক চাওয়ায় তাদের মধ্যে লটারীর মাধ্যমে তাদের প্রতীক নির্ধারন করেন রিটাণিং অফিসারবৃন্দ। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীকে যারা নির্বাচন করছেন, তারা বিশাল বিশাল শো-ডাউন নিয়ে তাদের প্রতীক গ্রহণ করেন। প্রায় পুরোদিনই উপজেলা পরিষদ এলাকা ছিল নির্বাচনী আমেজে মুখরিত।

এদিকে প্রতীক পাওয়ার প্রথম দিনেই, ২নং বালিথুবা পূর্ব এবং ১৬নং রূপসা ইউনিয়নের প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী ও সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাণ্টা ধাওয়া ও সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে। এই সময় ২নং ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান স্বতেন্ত্র প্রার্থী হারুন অর-রশীদের সমর্থক শাহজালাল প্রতিপক্ষের হামলায় গুরুতর আহত হয়।

অপর দিকে ১৬ নং রূপসা দক্ষিণের সাবেক চেয়ারম্যান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী অহিদুর রহমান চশমা প্রতিক পেয়ে মিছিল করার সময় প্রতিপক্ষের সমর্থকদের কয়েকজন যুবকের সাথে কথাকাটাকাটির এক পর্যায় সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে। এতে প্রার্থী অহিদুর রহমান ও তার নাতী তানভীর হোসেন আহত হয়। এই ঘটনায় অহিদুর রহমান নিজেই ফরিদগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

ট্যাগস :
জনপ্রিয় সংবাদ

স্কুলের শ্রেণিকক্ষে ‘আপত্তিকর’ অবস্থায় ছাত্রীসহ প্রধান শিক্ষক আটক

ফরিদগঞ্জে ইউপি নির্বাচনে প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ, বিভিন্ন স্থানে সংর্ঘষ

আপডেট সময় : ০২:১৪:৫৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ ডিসেম্বর ২০২১

নিজস্ব প্রতিনিধি : ৫ জানুয়ারীর ৫ম ধাপের নির্বাচনে ফরিদগঞ্জে ১৩টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান, মেম্বার ও মহিলা মেম্বারসহ মোট ৬৯৩ জন প্রার্থীর মাঝে ২০ ডিসেম্বর সোমবার প্রতীক বরাদ্দ দেন দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটাণিং অফিসারবৃন্দ। প্রতীক পাওয়াকে কেন্দ্র করে সকাল থেকে উপজেলার বিভিন্ন নির্বাচনী এলাকার প্রার্থীদের হাজার হাজার সমর্থকরা উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে উপস্থিত হয়। এই সময় তাদের প্রার্থীর পক্ষে সমর্থকদের শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে পুরো এলাকা। তবে নির্বাচনী প্রচার শুরুর প্রথম দিনেই দুটি ইউনিয়নে সংর্ঘষের ঘটনার খরব পাওয়া গিয়েছে এবং থানায় অভিযোগও হয়েছে। এই ঘটনায় ১ চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ৩ জন আহত হয়।

Model Hospital

ফরিদগঞ্জ উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৭৩জন, সংরক্ষিত আসনের ১২৪ জন এবং সাধারণ আসনে ৪৯৬ জন প্রার্থীসহ মোট ৬৯৩জন প্রার্থী নির্বাচনী প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। এই প্রার্থীদের মাঝে ঘোষিত সময় অনুযায়ী সোমবার সকাল ১০ থেকে প্রতীক বরাদ্দ শুরু হয়। শুরুতে চেয়ারম্যান পদের প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক দেওয়া হয়। দলীয় প্রার্থীরা তাদের নিজ নিজ প্রতীক সংশ্লিষ্ট রিটাণিং অফিসারের কাছ থেকে তাদের প্রতীক গ্রহণ করে। অপরদিকে স্বতেন্ত্র প্রার্থীদের প্রায় বেশীর ভাগ প্রার্থীই আনারস প্রতীক চাওয়ায় তাদের মধ্যে লটারীর মাধ্যমে তাদের প্রতীক নির্ধারন করেন রিটাণিং অফিসারবৃন্দ। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীকে যারা নির্বাচন করছেন, তারা বিশাল বিশাল শো-ডাউন নিয়ে তাদের প্রতীক গ্রহণ করেন। প্রায় পুরোদিনই উপজেলা পরিষদ এলাকা ছিল নির্বাচনী আমেজে মুখরিত।

এদিকে প্রতীক পাওয়ার প্রথম দিনেই, ২নং বালিথুবা পূর্ব এবং ১৬নং রূপসা ইউনিয়নের প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী ও সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাণ্টা ধাওয়া ও সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে। এই সময় ২নং ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান স্বতেন্ত্র প্রার্থী হারুন অর-রশীদের সমর্থক শাহজালাল প্রতিপক্ষের হামলায় গুরুতর আহত হয়।

অপর দিকে ১৬ নং রূপসা দক্ষিণের সাবেক চেয়ারম্যান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী অহিদুর রহমান চশমা প্রতিক পেয়ে মিছিল করার সময় প্রতিপক্ষের সমর্থকদের কয়েকজন যুবকের সাথে কথাকাটাকাটির এক পর্যায় সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে। এতে প্রার্থী অহিদুর রহমান ও তার নাতী তানভীর হোসেন আহত হয়। এই ঘটনায় অহিদুর রহমান নিজেই ফরিদগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।